ইসলামপুরে মুক্তিযোদ্ধাকে মারধরের ঘটনায় স্থানীয় এমপি’র পদত্যাগ দাবি

ইসলামপুরে মুক্তিযোদ্ধাকে মারধরের ঘটনায় স্থানীয় এমপি’র পদত্যাগ দাবি
ইসলামপুর (জামালপুর) প্রতিনিধি : ইসলামপুর উপজেলায় আব্দুল গফুর প্রধান নামে এক গেরিলা মুক্তিযোদ্ধাকে মারধরের ঘটনায় স্থানীয় এমপি ও এক ইউপি চেয়ারম্যানের পদত্যাগ দাবি করেছে বিক্ষোব্ধ এলাকাবাসীসহ আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা। রবিবার (২ সেপ্টম্বর) বিকাল সাড়ে চারটায় উপজেলার সদর ইউনিয়নের গংগাপাড়া গ্রামে সেন্টার বাজারে মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল গফুর প্রধানকে মারধরের ঘটনায় অনুষ্ঠিত প্রতিবাদ সভায় বিক্ষোব্ধ আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা স্থানীয় এমপি ফরিদুল হক খান দুলাল ও সদর ইউপি চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান শাহীনের পদত্যাগ দাবি করেন।

আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা অভিযোগ করেন, এমপি ফরিদুল হক খান দুলাল ও সদর ইউপি চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান শাহীনের প্রত্যাক্ষ মমদে মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল গফুর প্রধানকে পিটিয়ে আহত করা হয়।

স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা হাবিবুর রহমান ফাগু প্রধানের সভাপতিত্বে যুবলীগ নেতা মাহবুবুর রহমান উজ্জলের সঞ্চালনে ওই প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য দেন, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি সাবেক মেয়র জিয়াউল হক জিয়া, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আব্দুস সালাম, ইসলামপুর পৌর মেয়র আব্দুল কাদের সেক, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান শফিকুল আলম দুলাল, কেন্দ্রীয় যুবলীগ নেতা কৃষিবিদ মঞ্জুরুল মোরর্শেদ হ্যাপী, উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সরদার মাকছুদুর রহমান লাভলু, উপজেলা যুবলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সরদার জাকিউল হক, সাবেক ছাত্রলীগের সভাপতি জিয়াউল হক জুয়েল, আ’লীগ নেতা রিয়াজুল ইসলাম সেলিম, ইউনিয়ন যুবলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম ইঞ্জু, নাজমুল হাসান বিপ্লব, রফিকুল ইসলাম প্রমুখ।

এ সময় বক্তারা বলেন, এমপি দুলাল একজন রাজাকার, আল-বদর, আল-সামছ, জামায়াতসহ বিএনপি থেকে আ’লীগে যোগদানকারীদের এমপি। সেকারনেই তার প্রত্যাক্স মদদে একজন মুযোদ্ধাকে পিটিয়ে আহত করা হয়। আমরা এমপি দুলাল ও ইউপি চেয়ারম্যান শাহীনের আওয়ামী লীগের পদ থেকে পদত্যাগ চাই। এছাড়া ওই ঘটনার সঠিক বিচার না হওয়া পর্যন্ত চেয়ারম্যান শাহীনের পরিবারের লোকজন এলাকায় জুতা পায়ে দিয়ে চলা ফিরা করতে দেওয়া হবে না মর্মেও বক্তারা হুশিয়ারি দেন।

উল্লেখ্য, গত ৩১ আগস্ট গঙ্গাপাড়া সেন্টার বাজারে স্থানীয় আওয়ামী লীগ আয়োজিত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাহাদত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবসের আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্যে মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল গফুর প্রধান স্বাধীনতা যোদ্ধের সময় ইসলামপুর থানা শান্তি কমিটির সভাপতি কুক্ষ্যাত রাজাকার মতিয়ার রহমান চৌধুরী পরিবারের অত্যাচার নির্যাতনের ভূমিকা তুলে ধরেন।

তার ওই বক্তব্যে ক্ষুব্ধ হয়ে রাজাকার মতিয়ার রহমান চৌধুরী পরিবারের সদস্যরা আব্দুল গফুর প্রধানকে গত শনিবার সকালে রাস্তা থেকে তুলে ইসলামপুর সদর ইউপি চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান চৌধুরী শাহীনের বাড়ির সামনে নিয়ে তাকে বেধরক পিটিয়ে আহত করে পালিয়ে যায়। আহত মুক্তিযোদ্ধাকে চিকিৎসার জন্য ঢাকায় প্রেরণ করেছেন তার স্বজনরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*