ইসলামপুরে মুক্তিযোদ্ধাকে মারপিটের প্রতিবাদে সন্ত্রাসীদের শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন

ইসলামপুরে মুক্তিযোদ্ধাকে মারপিটের প্রতিবাদে
সন্ত্রাসীদের শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন

ইসলামপুর (জামালপুর) প্রতিনিধি : জামালপুরের ইসলামপুরে মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল গফুর প্রধানের উপর হামলাকারী সন্ত্রাসীদের শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করেছে উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড ও মুক্তিযোদ্ধা সন্তান প্রজন্ম কমিটি।
বৃহস্পতিবার দুপুরে স্থানীয় থানা মোড়ে প্রায় তিন ঘণ্টার ব্যাপী এ মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করা হয়। উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের সাবেক কমান্ডার মানিকুল ইসলাম মানিকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি সাবেক পৌর মেয়র জিয়াউল হক জিয়া, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগাঠনিক সম্পাদক পৌর মেয়র আব্দুল কাদের সেখ, জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের সাবেক কমান্ডার মোখলেছুর রহমান হিরু, ডেপুটি কমান্ডার সুজাত আলী সুজা, হাবিবুর রহমান হবি, আহত মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল গফুর প্রধান, তাসির উদ্দিন, উপজেলা যুবলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সরদার জাকিউল হক ও মুক্তিযোদ্ধা সন্তান প্রজন্ম কমিটির সাধারণ সম্পাদক মোবারক হোসেন প্রমুখ।
বক্তারা বলেন, আগামী ২৪ ঘন্টার মধ্যে মুক্তিযোদ্ধা উপর হামলাকারী রাজাকার পরিবারের সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার না করা হলে মুক্তিযুদ্ধারা ঐক্যবদ্ধভাবে ইসলামপুরে আবারও একটি যুদ্ধ ঘোষণা করবেন। মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের নেতৃবৃন্দ স্থানীয় এমপিকে উদ্দেশ্য করে বলেন আপনি রাজাকারদের এমপি। বঙ্গবন্ধুর শোক সভায় সভাপতিত্ব করার অপরাধে যে রাজাকারেরা মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল গফুরের উপর হামলা করেছে। আপনি তাদের পক্ষ নিয়েছেন। আমরা জানি আপনি কোন পরিবারের সদস্য। মুক্তিযুদ্ধের সময় আপনার বাবা কি করেছেন তাও আমরা ভাল করে জানি।
আগামী নির্বাচনে আপনাকে মনোনয়ন দিলে এ আসনে আওয়ামীলীগের ভরাডুবি হওয়ার সম্ভবনা রয়েছে। কারণ আপনি আওয়ামীলীগের ত্যাগী-তৃণমূল নেতাদের বঞ্চিত করে রাজাকারদের প্রতিষ্ঠিত করেছেন। এখন মুক্তিযুদ্ধাদের বিপক্ষে অবস্থান নিয়েছেন। ৩১ আগস্ট ইসলামপুরের গঙ্গাপাড়া বাজারে বঙ্গবন্ধুর শাহাদৎ বার্ষিকীর সভায় সভাপতির বক্তব্যে মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল গফুর প্রধান স্বাধীনতা বিরোধীদের নিয়ে কিছু কথা বলেন। এরই জেরধরে স্থানীয় এমপি ফরিদুল হক খান দুলালের রাজনৈতিক সহকর্মী ইউপি চেয়ারম্যান শাহীন চৌধুরীর লোকজন ১ সেপ্টেম্বর আব্দুল গফুর প্রধানকে বেধড়ক মারপিট করে।
এ ঘটনায় ইউপি চেয়ারম্যান শাহীন চৌধুরীকে প্রধান আসামী করে ১৪ জনের বিরুদ্ধে ৫ সেপ্টেম্বর ইসলামপুর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছে মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল গফুর প্রধান।
ইসলামপুর থানার ওসি শাহীনুজ্জামান খান অভিযোগের সত্যতা স্বীকার করেছেন।
ইসলামপুরে মুক্তিযোদ্ধাকে মারপিটের প্রতিবাদে
সন্ত্রাসীদের শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন
ইসলামপুর (জামালপুর) প্রতিনিধি : জামালপুরের ইসলামপুরে মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল গফুর প্রধানের উপর হামলাকারী সন্ত্রাসীদের শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করেছে উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড ও মুক্তিযোদ্ধা সন্তান প্রজন্ম কমিটি।
বৃহস্পতিবার দুপুরে স্থানীয় থানা মোড়ে প্রায় তিন ঘণ্টার ব্যাপী এ মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করা হয়। উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের সাবেক কমান্ডার মানিকুল ইসলাম মানিকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি সাবেক পৌর মেয়র জিয়াউল হক জিয়া, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগাঠনিক সম্পাদক পৌর মেয়র আব্দুল কাদের সেখ, জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের সাবেক কমান্ডার মোখলেছুর রহমান হিরু, ডেপুটি কমান্ডার সুজাত আলী সুজা, হাবিবুর রহমান হবি, আহত মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল গফুর প্রধান, তাসির উদ্দিন, উপজেলা যুবলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সরদার জাকিউল হক ও মুক্তিযোদ্ধা সন্তান প্রজন্ম কমিটির সাধারণ সম্পাদক মোবারক হোসেন প্রমুখ।
বক্তারা বলেন, আগামী ২৪ ঘন্টার মধ্যে মুক্তিযোদ্ধা উপর হামলাকারী রাজাকার পরিবারের সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার না করা হলে মুক্তিযুদ্ধারা ঐক্যবদ্ধভাবে ইসলামপুরে আবারও একটি যুদ্ধ ঘোষণা করবেন। মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের নেতৃবৃন্দ স্থানীয় এমপিকে উদ্দেশ্য করে বলেন আপনি রাজাকারদের এমপি। বঙ্গবন্ধুর শোক সভায় সভাপতিত্ব করার অপরাধে যে রাজাকারেরা মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল গফুরের উপর হামলা করেছে। আপনি তাদের পক্ষ নিয়েছেন। আমরা জানি আপনি কোন পরিবারের সদস্য। মুক্তিযুদ্ধের সময় আপনার বাবা কি করেছেন তাও আমরা ভাল করে জানি।
আগামী নির্বাচনে আপনাকে মনোনয়ন দিলে এ আসনে আওয়ামীলীগের ভরাডুবি হওয়ার সম্ভবনা রয়েছে। কারণ আপনি আওয়ামীলীগের ত্যাগী-তৃণমূল নেতাদের বঞ্চিত করে রাজাকারদের প্রতিষ্ঠিত করেছেন। এখন মুক্তিযুদ্ধাদের বিপক্ষে অবস্থান নিয়েছেন। ৩১ আগস্ট ইসলামপুরের গঙ্গাপাড়া বাজারে বঙ্গবন্ধুর শাহাদৎ বার্ষিকীর সভায় সভাপতির বক্তব্যে মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল গফুর প্রধান স্বাধীনতা বিরোধীদের নিয়ে কিছু কথা বলেন। এরই জেরধরে স্থানীয় এমপি ফরিদুল হক খান দুলালের রাজনৈতিক সহকর্মী ইউপি চেয়ারম্যান শাহীন চৌধুরীর লোকজন ১ সেপ্টেম্বর আব্দুল গফুর প্রধানকে বেধড়ক মারপিট করে।
এ ঘটনায় ইউপি চেয়ারম্যান শাহীন চৌধুরীকে প্রধান আসামী করে ১৪ জনের বিরুদ্ধে ৫ সেপ্টেম্বর ইসলামপুর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছে মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল গফুর প্রধান।
ইসলামপুর থানার ওসি শাহীনুজ্জামান খান অভিযোগের সত্যতা স্বীকার করেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*