কাহারোল উপজেলার সিংগারীগাঁ গণহত্যা দিবস উদ্বোধন হবে স্মৃতি স্তম্ভ

কাহারোল উপজেলার সিংগারীগাঁ গণহত্যা দিবস উদ্বোধন হবে স্মৃতি স্তম্ভ

মো. তোফাজ্জল হায়দার , প্রতিনিধি॥ ২৩ মে বুধবার দিনাজপুরের কাহারোল উপজেলার সিংগারীগাঁ গণহত্যা দিবস। ১৯৭১ সালের আজকের এই দিনে পাকিস্তানী বর্বর বাহিনী দুই শতাধিক মানুষকে গুলি করে ব্যানট দিয়ে খুঁচিয়ে খুঁচিয়ে হত্যা করে। স্বাধীনতার পর এবারই প্রথম দিবসটি পালিত হবে।

দিনাজপুর-১ (বীরগঞ্জ-কাহালোর) আসনের সংসদ সদস্য মনোরঞ্জন শীল গোপালে প্রচেষ্টায় ঘটনা স্থলে
নির্মীত হয়েছে স্মৃতি স্তম্ভ। দিবসটি উপলক্ষে উদ্বোধন করা হবে। দিনাজপুর জেলা কৃষক লীগেন সহ সভাপতি ও কাহারোল উপজেলা পূজা উৎযাপন কমিটির সভাপতি শ্রী গোপেশ চন্দ্র রায় জানান, ১৯৭১ সালের ২২ মে সিংগারীগাঁ , তারাপুর, দেড়গাঁও, পাহাড়পুরসহ বিভিন্ন স্থানের পাঁচ শতাধীক নারী, শিশু ও পুরুষ ভারতে আশ্রয় নেয়ার জন্য বোচাগঞ্জ উপজেলার টাঙ্গন নদী পার হয়ে চাঁদগাঁও সীমান্তের দিকে যাচ্ছিলেন। এ সময় রাজাকার শফিউদ্দিন মেম্বার খান সেনাদের খবর দিলে খান সেনারা তাদেরকে ধরে নিয়ে গিয়ে একটি স্কুলে বন্দি করে রাখে দেন। পরের দিন ২৩ মে খানসেনারা শিশু ও নারীদের ছেড়ে দিয়ে প্রায়দুই শতাধিক কিশোর, তরুণ- যুবক ও পুরুষকে গুলি করে ব্যানট দিয়ে খুঁচিয়ে খুঁচিয়ে হত্যা করে। লাশ নিয়ে পালিয়ে যায়। এতদিন বিষয়টি কেউ গুরুত্ব দেয়নি।
মনোরঞ্জন শীল গোপাল সংদস সদস্য নির্বাচিত হওয়ার পর তিনি ২০১২ সালে উদ্দ্যেগ গ্রহণ করেন এবং তার বিশেষ বরাদ্দ থেকে জেলা পরিষদের মাধ্যমে ১০ লক্ষ টাকা বরাদ্দ দিয়ে ঘটনা স্থলে স্মৃতি স্তম্ভ নির্মাণ কাজ শুরু করেন। যা আগামীকাল  সকাল ১১ টায় উদ্বোধন করা হবে।
এ ব্যাপরে জানতে চাইলে ঘটনাটি নিয়ে গবেষণারত দিনাজপুর আদর্শ কলেজের ইংরেজি বিভাগের প্রভাষক রুবি আফরোজ জানান, ৭১ সালের ২২ মে কিশোর, তরুণ-তরুণী- যুবক ও পুরুষকে ভারতে যাওয়ার সময় আটক করে একটি স্কুলে আটক করে রাখে খান সেনারা। তার ২৩ মে দুই লাইনে দাড় করিয়ে মহিলাদের ছেড়ে দিয়ে পুরুষদের ধরে নিয়ে যায়। পরে তাদের আর কোন খবর পায়নি পরিবারের লোকজনেরা। ধারনা করা হয় তাদেরকে টাঙ্গন নদীর দমনী ঘাটে নিয়ে গিয়ে হত্যা করে লাশ গুলো পুতে ফেলে অথবা নদীতে ভাসিয়ে দেয়।
এ ব্যাপারে জানতে চাইলে সংসদ সদস্য মনোরঞ্জন শীল গোপাল বলেন, স্বাধীনতার পর থেকে অনেকে ক্ষমতায় এসেছেন। কিন্তু কেউ বিষয়টি নিয়ে কোন উদ্যোগ গ্রহণ করেননি। আমি ২০১২ সালে ১০ লক্ষ টাকা বরাদ্দ দিয়ে জেলা পরিষদের মাধ্যমে সিংগারীগাঁ গণ কবর স্মৃতি স্তম্ভ নির্মাণ কাজ শুরু করি। যা আজ বুধবার উদ্বোধন করা হবে।  তিনি আরো জানান সে সময় দুই শতাধীক মানুষ গণহত্যার শিকার হলেও ৬৫ জনের মান এখন পর্যন্ত পাওয়া গেছে। বাকীদের নাম ঠিকানা সংগ্রহের কাজ চলছে। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থাকবেন সংসদ সদস্য মনোরঞ্জন শীল গোপাল,বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত থাকবেন জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আজিজুল ইমাম চৌধুরী, পুলিশ সুপার মোঃ হামিদুল আলম, উপজেলা চেয়ারম্যান মো. মামুনুর রশীদ চৌধুরী, উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাসিম আহমেদ, সেক্টর কমান্ডার ফরামের সভাপতি আবুল কালাম আজাদ, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি এ কে এম ফারুক, সাধারণ সম্পাদক হাফিজুর রহমান চৌধুরী, বিশিষ্ট সাংবাদিক চিত্ত ঘোষ,কাহারোল উপজেলা কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করবেন তারগাঁও ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোঃ সাইফুল ইসলাম ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*