কে হচ্ছেন কমলগঞ্জের ২৩ টি চা- বাগানের ভ্যালি প্রধান; সংগ্রাম কমিটি থেকে ৩ টি প্যানেল,নাগরিক ঐক্য থেকে ১ টি

কে হচ্ছেন কমলগঞ্জের ২৩ টি চা- বাগানের ভ্যালি প্রধান; সংগ্রাম কমিটি থেকে ৩ টি প্যানেল,নাগরিক ঐক্য থেকে ১ টি

কমলগঞ্জ (মৌলভীবাজার)প্রতিনিধি : ২৪ জুন আসন্ন বাংলাদেশ চা- শ্রমিক ইউনিয়ন নির্বাচনে মনু-ধলই ভ্যালির ২৩ টি চা- বাগানে জমে উঠেছে প্রচার-প্রচারণা। চায়ের কাপ থেকে শুরু করে কর্মক্ষেত্রে সব জায়গায় চলছে প্রার্থী নিয়ে আলোচনা সমালোচনা। এবার ভ্যালীতে ৪ টি প্যানেল তাদের নির্বাচনী প্রচারণায় ব্যাস্ত দিন কাটাচ্ছে প্রতিশ্রুতির বুলি নিয়ে ছুটে যাচ্ছেন ভোটারের বাড়ি বাড়ি। এবার সংগ্রাম কমিটিকে সমর্থন করে ৩ টি প্যানেল। শমশেরনগর ইউনিয়ন পরিষদের ২ বারের নির্বাচিত সদস্য ও কমলগঞ্জ আওয়ামিলীগের সদস্য মাসিক চা- মজদুর পত্রিকার সম্পাদক ও প্রকাশক সীতারাম বিন সভাপতি ও ক্লীন ইমেইজের নেতা হিসেবে পরিচিত পাত্রখলা চা- বাগানের ২বারের নির্বাচিত সাবেক ইউ পি সদস্য কুশল চাষা ও ধলই চা- বাগানের মহিলা নেত্রী আলোমণি রবিদাস কে নিয়ে সীতারাম -কুশল-আলোমণি প্যানেল ( আম প্রতিক)। ও বর্তমান সভাপতি সংগ্রামী নেতা মাধবপুর চা- বাগানের গোপাল নুনীয়া সভাপতি এবং কানিহাটি চা- বাগানের চা- শ্রমিক নেতা মাখন রবিদাশ সম্পাদক ও মহিলা নেত্রি কবিতা কর্মকার কে নিয়ে গঠিত গোপাল-মাখন-কবিতা প্যানেল (গোলাপফুল প্রতিক)। এবং ১নং রহিমপুর ইউনিয়নের ২ বারের নির্বাচিত সদস্য মিরতিংগা চা-বাগানের ধনা বাউরী সভাপতি,ভ্যালীর বর্তমান সম্পাদক সমশের নগর চা- বাগানের নির্মল পাইনকা ও বর্তমান সহ-সভাপতি ধলই চা- বাগানের গায়ত্রী ভর কে নিয়ে ধনা -নির্মল-গায়েত্রী প্যানেল ( রিক্সা প্রতিক)। এবং ঐক্য পরিষদের সমর্থিত মদনমহনপুর চা বাগানের শ্রমিক নেতা প্রদ্বীপ কালোয়ার সভাপতি,এবং চাম্পারায় চা- বাগানের ছাত্রলীগ নেতা সুযন মুন্ডা সম্পাদক এবং মাধবপুর চা- বাগানের শ্যামলী বোনার্জী ( মালতি) সহ-সভাপতি পদে প্রদ্বীপ-সুজন-শ্যামলী প্যানেল ( কাঠাঁল প্রতিক) নিয়ে প্রতিদনন্দিতা করছেন। সভাপতি প্রার্থী সীতারাম বীন আমাদের প্রতিনিধি কে জানান ” আমি শুধু নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেছি এর জন্য ভ্যালীর ২৩ টি বাগানে বিচরণ করছি না। আমি সবসময় এ ভ্যালীর বাগানের চা- শ্রমিকদের পাশে থাকি বাংলাদেশের সব নির্যাতিত চা- শ্রমিকদের সমস্যা আমার নিজের সমস্যা মনে করি তায় আমি অনেক কষ্ঠকর হলেও চা- শ্রমিকদের জীবন- জীবিকা নিয়ে চা- মজদুর নামের একটি মাসিক পত্রিকা নিয়মিত প্রকাশ করি। আমি যদি নির্বাচিত হয় তবে মুজুরী বৃদ্ধি সহ চা- শ্রমিকের শিক্ষা,উন্নত চিকিৎসা,বাসস্থান এবং শ্রমিকের ন্যায্য অধিকার নিশ্চিত ও শিক্ষিত বেকার চা- শ্রমিক সন্তানের চাকুরী নিশ্চিতের লক্ষে সবসময় নিজেকে নিবেদিত রাখব। আরেক সভাপতি পদপ্রার্থী বর্তমান সভাপতি গোপাল নুনীয়া জানান ” আমি মনু-ধলই ভ্যালীর সভাপতি হয়ে সব সময় চেষ্টা করেছি চা- শ্রমিকের পাশে থাকতে। তাদের সমস্যা সমাধান করতে তবে সাংগঠনিক কারনে অনেক সময় পারি নায়। এবার আমার প্যানেল পূনগঠন করেছি চা- শ্রমিকরা যদি সুযোগ দেয় তবে শেস বারের মতো তাদের সেবা করে যাবো “। তার প্যানেলের সম্পাদক অন্য প্যানেলে যাবার কারণ জানতে চাইলে বলেন ” আমাকে সে কোন কিছু না জানিয় রহস্যগত ভাবে অন্য প্যানেলে যুক্ত হয়েছে আমি অন্যায় কোন দিন মেনে নেই নাই হয়তো বা এটা একটা কারন হতে পারে। সংগ্রাম কমিটি থেকে সমর্থিত আরেক সভাপতি প্রার্থী ধনা বাউরির সাথে একাধিক বার মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করে পাওয়া যায় নি তবে তার একজন মূখ্য কর্মির কাছ থেকে জানা যায় তিনি মিরতিংগা চা- বাগানকে একটি মডেল বাগান হিসেবে পরিচিত করেছেন। এবং মনু-ধলই ভ্যালির সব বাগানকে মডেল বাগান তৈরী করবেন তিনি আরো জানান তিনি ( ধনা বাউরি) নির্বাচিত হলে সব বাগানে পঞ্চায়েতদের বসার একটি কার্যালয় মালিক পক্ষথেকে আদায় করবেন। নাগরিক ঐক্য সমর্থিত সভাপতি প্রার্থী প্রদ্বীপ কালোয়ার জানান ” চা- শ্রমিক আমাকে খুব ভালোবাসে আর তাদের ভালোবাসা নিয়ে সব সময় তাদের ন্যায্য অধিকার আদায়ের সংগ্রাম করে যাব এই প্রত্যাশা। আমি আগে ও চা- শ্রমিক ইউনিয়নের এডহক কমিটির সদস্য ছিলাম এবং চা- শ্রমিকের জন্য তখন থেকে এ পর্যন্ত কাজ করে যাচ্ছি। কথা হয় তিলকপুর চা- বাগানের চা- শ্রমিক স্বপন বাউরীর সাথে জানতে চাইলে শ্রমিক নির্বাচনের কথা তিনি জানান ” এখন কত নেতা দেখছি কাকে ভোট দিবো আবার ” ভ্যালি সভাপতি পদে ৪ জন খাড়া ( দাড়িয়েছন) হয়েছে। কাউকে দিবো “। কাকে সমর্থন করেন জানতে চাইলে বলেন ” এমনে ত সবসময় সিতারাম বীন কে দেখি চিনি আর বাকি গিলানের ( জনের) খালি নাম শুনেছি এখন আবার ধনা বাউরী বেজান ( অনেক) আসছে। সময় হলে দেখা যাবে। মিরতিংগা চা- বাগানের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন চা- শ্রমিক জানান ” ধনা বাউরি একজন মেম্বার ( ইউ পি সদস্য) কিন্তু বাগানের সব বিষয়ে সে থাকে এমন কি মিরতিংগা র সভাপতি ও পঞ্চায়েত প্যানেল কে শ্রমিকরা চিনেই না এখানে নিয়োগ থেকে শুরু করে সব কাজ সে ( ধনা বাউরি) করে থাকে। এমন কি রহস্যজনকভাবে গত ৫/৬ মাস আগে কোম্পানি তাকে হুট করে নামের কাজ দেয় ঠিক কিছু বুঝি না “। নির্বাচন নিয়ে কথা হয় আলীনগর চা- বাগানের মধুসুধন ব্যাক্তির সাথে ” তিনি জানান সীতারাম বীন একবার বিজয় গ্রুপ একবার সংগ্রাম গ্রুপ ২ খাসুয়া ( উভয় দিক) হয়। আর নাইলে তাকে সবসময় চা- শ্রমিকের সব আন্দোলনে পাওয়া যায় যদি ২ দিক না হত তবে পাশ করতে এতো কষ্ট করতে হত না। মাধবপুর চা- বাগানের চা- শ্রমিক গুণধর নুনীয়া জানান ” সংগ্রাম গ্রুপ থেক ৩ টি প্যানেল আর বিজয় গ্রুপ ( নাগরিক ঐক্য) থেকে ১ টি এরা ( সংগ্রাম) ভোট বাটাবাটি হবে তবে যায় হক হাড্ডা হাড্ডি লড়ায় হবে সীতারাম আর প্রদ্বীপ কালোয়ারের। তবে সকল জল্পনা কল্পনার অবসান হবে আগামি ২৪ তারিক ভোটার তাদের ভােটাধিকার প্রয়োগ করে নির্বাচন করবেন আগামী ৩ বছরের জন্য কার্যকরি সভাপতি প্যানেল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*