খুলনার পাইকগাছায় তৈরি হচ্ছে ভাসমান ড্রাম সেতু

খুলনার পাইকগাছায় তৈরি হচ্ছে ভাসমান ড্রাম সেতু
ইমদাদুল হক,পাইকগাছা,খুলনা॥ খুলনার পাইকগাছায় তৈরি হচ্ছে ভাসমান ড্রাম সেতু। উপজেলার লতা ও দেলুটি ইউপির প্রত্যন্ত গ্রাম দিঘুলিয়া-মুনকিয়া গ্রামের সীমান্তে আলোকদ্বীপ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের পাশে নড়া নদীর উপর তৈরি হবে এই ভাসমান ড্রামের সেতু।
যানাযায়, উপজেলার লতা ইউপির আলোকদ্বীপ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রনজিৎ কুমার রায় ও সহকারী শিক্ষক সুকৃতি মোহন সরকারের প্রচেষ্টায় এবং অন্য শিক্ষকদের সহযোগিতায় তৈরি হচ্ছে এই ভাসমান সেতু। নদীর ওপার থেকে ছাত্র-ছাত্রীদের স্কুলে আসা যাওয়ার সুবিধা,এবং এলাকার মানুষের উপজেলা সদর সহ কপিলমুনি,জামতলা, বারহাড়িয়া,দেলুটি সহ বিভিন্ন এলাকায় নির্বিঘ্নে চলাচলের কথা বিবেচনা করে ড্রাম দিয়ে সেতু তৈরির উদ্যোগ নিয়েছেন। এই সেতু হলে লতা ও দেলুটি ইউপির যোগাযোগ ব্যবস্থা উন্নত হবে।
নড়া নদী প্রস্ত খুব বেশি না হলেও বেশ গভির রয়েছে। বিশেষ করে বর্ষা মৌসুমে নৌকায় নদী পার হয়ে স্কুলে আসতে বেশ সমস্যা হয় ছাত্র-ছাত্রীদের। কয়েকবার নৌকা ডুবিও হয়েছে। বই খাতা ভিজে লেখাপড়ার বেশ ক্ষতি হওয়ার কারনে এখানে একটা সেতুর প্রয়োজনীয়তা অনুভব করছেন স্কুলের শিক্ষক,শিক্ষার্থী,এবং গ্রামবাসী।শিক্ষক সুকৃতি মোহন সরকার বলেন এখানে নদীর প্রস্ত প্রায় ১৫০ ফুট,আমরা নিজ খরচে নদীর দু’পারে৫০ ফুট ইতিমধ্যে মাটিদিয়ে বাঁধিয়েছি বাকি ১০০ফুট ড্রাম দিয়ে ভাসমান সেতু তৈরির কাজ শুরু করবো। সেতুটির দৈর্ঘ্য ১০০ফুট এবং প্রস্ত হবে ৪ ফুট। ড্রাম কেনা হয়েগেছে, এখন শুধু লোহার পাত কিন্তে হবে ও মিস্ত্রি দিয়ে কাজ করতে হবে। সর্বমোট খরচ ধরা হয়েছে ২,৭০,০০০/ টাকা। ইতিমধ্যে প্রায় এক লক্ষ টাকা আমি ও প্রধান শিক্ষক ব্যক্তিগত তহবিল থেকে খরচ করেছি। বাকি টাকার জন্য জনপ্রতিনিধী, স্কুলের প্রাক্তন ছাত্র এবং গ্রামের লোকদের কাছে সেতু নির্মান কল্পে সাহায্যেরর হাত বাড়িয়েছি। আশা করি অচিরেই সকলের সহযোগিতাই ভাসমান সেতুর কাজ শেষ করতে পারবো।
লতা ইউনিয়ন ইউনিভারসিটি স্টুডেন্ট এ্যসোসিয়েশন (লুসা’র) সভাপতি নিউটন রায় বলেন আমাদের ইউনিয়নে এমন একটি ভাসমান ড্রাম সেতু হবে কখনো ভাবিনি। শিক্ষকদের এমন মহতি উদ্যোগের সাথে আমারা (লুসা) আছি এবং থাকবো। সকলের সার্বিক সহযোগিতায় আমাদের লতা আরো সামনে এগিয়ে যাবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*