জেরুজালেমে মার্কিন দূতাবাস স্থানান্তরে নজিরবিহীন বিক্ষোভে ১৮ ফিলিস্তিনি হত্যা

জেরুজালেমে মার্কিন দূতাবাস স্থানান্তরে নজিরবিহীন বিক্ষোভে ১৮ ফিলিস্তিনি হত্যা

হেলাল আহমদ(লেবানন ব্যুরো প্রধান) :: সোমবার জেরুজালেমে যুক্তরাষ্ট্রের ইসরাইল দূতাবাস স্থানান্তরের প্রতিবাদে গাজা উপত্যকায় কমপক্ষে ১০ হাজারেরও বেশি ফিলিস্তিনি সমবেত হয়। এসময় ইসরাইলি নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে এখন পর্যন্ত ১৮ ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছে বলে জানিয়েছে কাতার ভিত্তিক সংবাদ মাধ্যম আলজাজিরা। সোমবার সকাল থেকে ফিলিস্তিনিরা অধিকৃত গাজা উপত্যকায় ইসরাইলের সীমান্তে সমবেত হতে থাকে এবং ব্যাপক সুরক্ষায় ঘেরা সীমান্ত বেড়া অতিক্রম করার চেষ্টা চালায় বলে জানিয়েছে আলজাজিরা।গত কয়েক সপ্তাহ ধরে ফিলিস্তিনিরা ভূমি দিবস উপলক্ষে ফিলিস্তিনি শরণার্থীরা তাদের নিজ ভূমিতে ফিরে যাওয়ার দাবীতে পদযাত্রার আয়োজন করে আসছে। ১৯৪৮ সালে তাদের ওই অঞ্চল থেকে জোর করে উচ্ছেদ করা হয়। এই কর্মসূচীর শুরুর পর ইসরাইলি বাহিনী গুলি চালিয়ে ৫৪ জনেরও বেশি ফিলিস্তিনিকে হত্যা করেছে। স্থানীয় সাংবাদিক মারাম হুমাইদ আলজাজিরাকে বলেন, ‘গত সাত সপ্তাহে এই বিক্ষোভ সমাবেশে যত মানুষ সমবেত হয়েছিল তার তুলনায় আজকে বহুগুণ বেশি ফিলিস্তিনি প্রতিবাদের জন্য জড়ো হয়েছেন।’ গত ৩০ মার্চ শুরু হওয়া এই শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভ কর্মসূচি শেষ হবে, আগামী(১৫ মে)। যে দিনটিকে আবার ফিলিস্তিনিরা নাকবা দিবস হিসেবে পালন করেন। ১৯৪৮ সালের ১৫ মেতে ইহুদিবাদী ইসরাইল সাড় সাত লাখের বেশি ফিলিস্তিনিকে তাদের বাড়ি-ঘর থেকে উচ্ছেদ করে তা দখল করে নেয়। সেই হিসেবে আগামীকাল ইসরাইলি আগ্রাসনের ৭০ বছর পূর্তি হবে। একই সাথে বিক্ষোভ কর্মসূচীর আয়োজকরা এই কর্মসূচিতে তেল আবিব থেকে জেরুজালেমে যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাস স্থানান্তরের প্রতিবাদ জানানোর পরিকল্পনা করেন। গাজা উপত্যকার ২০ লাখ মানুষের ৭০ শতাংশ উদ্বাস্তু হয়ে জীবন কাটাচ্ছে। গত ৩০ মার্চ থেকে শুরু হওয়া এ বিক্ষোভে ইসরায়েলি বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে কমপক্ষে ৫০ ফিলিস্তিনি মারা গেছেন। এছাড়া আহত হয়েছে আরো অন্তত সাড়ে ৮ হাজার। সূএঃএন.এফ.বি/এন.এম

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*