জৈন্তিয়া ডিগ্রী কলেজ ছাত্রলীগের দু’গ্রুপে সংঘর্ষ:আহত ৩

জৈন্তিয়া ডিগ্রী কলেজ ছাত্রলীগের দু’গ্রুপে সংঘর্ষ:আহত ৩
জৈন্তাপুর প্রতিনিধি-জৈন্তিয়া ডিগ্রী কলেজ শাখা ছাত্রলীগের দু’গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। গত (০১ জুলাই) রবিবার সকাল ১০ টায় জৈন্তিয়া ডিগ্রী কলেজ কতৃপক্ষ ইন্টার প্রথম বর্ষের নবীন শিক্ষার্থীদের নিয়ে ওরিয়েন্টেশন ক্লাস করবে।কিন্তু ক্লাস শুরুর আগে কলেজ গেইটে নবীন ছাত্ররা মোবাইল দিয়ে ছবি তুলার কারণে শরীফ আহমদ নামের এক বহিরাগত ছাত্রলীগ কর্মী মটরসাইকেল থেকে নেমে এসে কলেজ ছাত্র ও ছাত্রলীগ কর্মী মামুনকে ছবি তুলায় মারদর করে।এখান থেকে ছাত্রলীগের দু’গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।এ সংঘর্ষের ঘটনায় দ্বাদশ শ্রেণীর ছাত্র মাওলানা নূরুল হকের ছেলে নুমান আহমদ,সালেক আহমদ ও যুবলীগ নেতা আব্দুল কুদ্দুসসহ ৩ ছাত্রলীগ ও যুবলীগ নেতাকর্মী জখম হন। সংঘর্ষের ঘটনায় নুমান আহমদ এর হাতের রগ কেটে নিলো ছাত্রলীগ। আহতদের সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। দু’গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনায় সাধারণ শিক্ষার্থীদের মধ্যেও আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।
জানা গেছে, জৈন্তিয়া ডিগ্রী কলেজে ইন্টার প্রথম বর্ষের নবীন শিক্ষার্থীদের নিয়ে আজ ওরিয়েন্টেশন ক্লাস করার কথা ছিলো কলেজ কতৃপক্ষের। কিন্তু বহিরাগত ছাত্রদের কারণে প্রতি বছর ওরিয়েন্টেশন ক্লাস করা যায় না।নবীন ছাত্ররা অনেক আনন্দ নিয়ে কলেজে আসলে ও ওরিয়েন্টেশন ক্লাস করতে পারেনি।সকাল ১০ টায় দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে জৈন্তাপুর উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা শাহীন আহমদ ও মাসুক আহমদের গ্রুপের অনুসারীদের মধ্যে তামাবিল মহাসড়কে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে দু’গ্রুপের কর্মীরা আহত হন। পরে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়।
জৈন্তিয়া ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ গোলাম রহমান বলেন, ছাত্রলীগ ও ছাত্রদল নেতারা কলেজ ক্যাম্পাসে আসেনি। কলেজ ক্যাম্পাসে কোন প্রকার সংঘর্ষ বা হাতাহাতি হয়নি তাই আমি কিছু বলতে পারবো না।
এবিষয়ে জানতে চাইলে জৈন্তাপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ খানঁ মোঃ মাইনুল জাকির বলেন- ঘটনার সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে করি। এ বিষয়টি গ্রামের শালিস মুরব্বিরা নিয়েছেন উনারা বিচার করবেন।আমার কাছে এখনো কোন লিখিত অভিযোগ আসেনি। অভিযোগ আসলে আমরা আইনানুগ ব্যাবস্থা গ্রহন করবো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*