ঠাকুরগাঁওয়ে ইমন বেকারিতে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে তৈরি হচ্ছে খাবার

ঠাকুরগাঁওয়ে ইমন বেকারিতে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে তৈরি হচ্ছে খাবার

ঠাকুরগাঁও সংবাদদাতা ;; ঠাকুরগাঁও এর বড় খোঁচাবাড়ী নামক এলাকায় অপরিকল্পিতভাবে ইমন বেকারি কারখানায় খাদ্যসামগ্রী তৈরি হচ্ছে। ইমন বেকারি নামে পরিচিতি এর মালিক জাহাঙ্গীর আলম। বেকারিটি স্যাঁতসেঁতে মাটিসহ খোলা নোংরা পরিবেশ, বাঁশের তৈরি ভাঙ্গা বেড়া দিয়ে অসম্পূর্ণ গঠিত। ভাঙা বেড়া দিয়ে প্রতিনিয়ত কুকুর, বিড়াল, ইঁদুর ও অন্যান্য পশুপাখি বেকারির খাদ্যসামগ্রী খাচ্ছে । ফাস্টফুড খাদ্যসামগ্রী হিসেবে বিস্কুট, কেক, পাউরুটিসহ নানা জাতীয় বেকারি খাবারে ব্যবহার করা হচ্ছে পচা ডিম, ময়লা বাসি তেল, নষ্ট ময়দা ও চিনি, ক্ষতিকর রং, বিষাক্ত পদার্থ সেকারিং ও ভাঙ্গাচুরা ময়লা জিনিসপত্র ইত্যাদি। ফলে সাধারণ মানুষ এসব খেয়ে পেটের পীড়াসহ নানা রোগে আক্রান্ত হচ্ছে। দেখার কি কেউ নেই? ফাস্টফুড খাদ্যসামগ্রী হিসেবে বিস্কুট, কেক, পাউরুটিসহ নানা জাতীয় বেকারি খাবার পরিবারের প্রায় সকলেই খেয়ে থাকে। শিশুদের পছন্দের খাবার হিসেবেও এসব খাবার তাদের কাছে প্রিয়। গ্রাম থেকে শহরসহ প্রত্যন্ত অঞ্চলে হরহামেশাই প্রতিদিন পৌঁছে যায় এসব খাদ্যসামগ্রী। এসবের বেশির ভাগ পণ্যে থাকে লেবেল। ফলে মানুষ নিরাপদ বা স্বাস্থ্যসস্মত মনে করেই এসব খেয়ে থাকেন। কিন্তু এসব তৈরির ক্ষেত্রে কিছু নিয়মনীতি রয়েছে। যা বাধ্যতামূলক। ওই বেকারির অভ্যন্তরে প্রবেশ করলে মনে হবে এটি একটি ভাঙ্গা ঘর বা পরিত্যক্ত বাসা, স্যাঁতসেঁতে মাটিসহ নোংরা পরিবেশ। নামমাত্র একটি ঘরে বড় আকারে চুলা বসিয়ে এসব পণ্য দীর্ঘদিন ধরে তৈরি করা হচ্ছে। ভিতরে দেখা যায়, শ্রমিকরা মাটিতে দাঁড়িয়ে অপরিছন্ন শরীরে এসব পণ্য তৈরিতে ব্যস্ত। বেকারিটি বিএসটিআই’র এর অনুমোদনহীন। এর আগে ভ্রাম্যমান আদালত বেশ কয়েকবার জরিমানা করলেও বেকারিটি দীর্ঘদিন যাপত অস্বাস্থ্যকর নোংরা পরিবেশে খাবার তৈরি করে যাচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*