দলের বিশৃঙ্খলা দেখলেই এ্যাকশন

দলের বিশৃঙ্খলা দেখলেই এ্যাকশন

স্টাফ রিপোর্টারঃ জাতীয় নির্বাচনের আগে গুরুত্বপূর্ণ এই সময়ে বিশৃঙ্খলা বরদাশত করা হবে না বলে দলের নেতা-কর্মীদের সতর্ক করেছেন ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেছেন, “বিশৃঙ্খলা করবেন না। বিশৃঙ্খলাকারীদের বিরুদ্ধে অ্যাকশন শুরু হয়ে গেছে। তিন দিনের মধ্যেই শোকজ যাবে। দিনাজপুর যাবে, রাজশাহী যাবে, বরগুনা যাবে, সিলেট যাবে।” বিভিন্ন স্থানে আওয়ামী লীগের কোন্দলের খবর প্রকাশের প্রেক্ষাপটে শনিবার ট্রেনে উত্তরাঞ্চল সফরের সময় টাঙ্গাইল রেল স্টেশনে যাত্রাবিরতির সময় এক পথসভায় এই হুঁশিয়ারি দেন কাদের। তিনি নেতা কর্মীদের সতর্ক করে আরও বলেন, “ঘরের মধ্যে ঘর বানানোর চেষ্টা করবেন না। মশারির মধ্যে মশারি টানানোর চেষ্টা করবেন না। শেখ হাসিনার অ্যাকশন ডাইরেক্ট অ্যাকশন।” সবাইকে ঐক্যবদ্ধ থেকে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনেও আওয়ামী লীগকে বিজয়ী করার আহ্বান জানান তিনি। টাঙ্গাইলের পর নাটোর রেল স্টেশনে পথসভায় কাদের আগামী নির্বাচনে নৌকায় ভোট দেওয়ার আহ্বান জানান। তিনি বলেন, “বিএনপিকে ভোট দেওয়ার মতো কোন কারণ কি তারা দেখাতে পারবেন? দেশে উন্নয়ন অগ্রগতির এমন কী আছে, যা দেখে বিএনপিকে মানুষ ভোট দিবে। নেতিবাচক রাজনীতির কারণে তাদের জনপ্রিয়তা তিলে তিলে কমে গেছে। “আমি আপনাদের বলতে চাই, জননেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আপনাদের পাশে আছে থাকবে। আমি আশা করি, নাটোরের বনলতা সেন নৌকা মার্কায় ভোট দিতে ভুল করবে না।” সরকারের জনপ্রিয়তা নেই বলে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের বক্তব্যের জবাবে কাদের বলেন, “এই নাটোরে আজকে দেখেন কী অবস্থা, আসছি পথসভা করতে, হয়ে গেছে জনসভা।” সকালে একদল কেন্দ্রীয় নেতাকে নিয়ে নীলফামারীগামী নীলসাগর এক্সপ্রেসে চেপেছেন সড়ক পরিবহনমন্ত্রী কাদের। পথে টাঙ্গাইল ও নাটোরের পর বগুড়ার শান্তাহার, জয়পুরহাট, জয়পুরহাটের আক্কেলপুর, দিনাজপুরের বিরামপুর, ফুলবাড়ি, পার্বতীপুর ও নীলফামারীর সৈয়দপুর স্টেশনে পথসভা করার কথা রয়েছে তার। আওয়ামী লীগ নেতারা জানান, স্বাভাবিক সময়ে এই ট্রেনের যাত্রাবিরতি ৩ থেকে ৪ মিনিট হলেও পথসভা উপলক্ষে নীলসাগর এক্সপ্রেসের যাত্রাবিরতি হবে ১০ মিনিট। ফলে এই ট্রেনের যাত্রীদের শনিবার গন্তব্যে পৌঁছতে দেরি হবে। টাঙ্গাইলের পথসভায় স্থানীয়দের দাবির পরিপেক্ষিতে মন্ত্রী কাদের বলেন, “একটু অপেক্ষা করুন। ঢাকা-টাঙ্গাইল অফিসগামী ট্রেনও চালু হবে।” উত্তরাঞ্চলে এই সফরে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদকের সঙ্গে রয়েছে যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক হাছান মাহমুদ, সাংস্কৃতিক সম্পাদক অসীম কুমার উকিল, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, বি এম মোজাম্মেল হক, আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, উপ দপ্তর বিপ্লব বড়ুয়া।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*