নওগাঁ জেলায় ৩০১টি কমিউনিটি ক্লিনিকে গত ৬ মাসে ১২ লাখ ১৫ হাজার ৯শ জনকে চিকিৎসা সেবা প্রদান করা হয়েছে

নওগাঁ জেলায় ৩০১টি কমিউনিটি ক্লিনিকে গত ৬ মাসে ১২ লাখ ১৫ হাজার ৯শ জনকে চিকিৎসা সেবা প্রদান করা হয়েছে

সুদাম চন্দ্র, নওগাঁ প্রতিনিধি : নওগাঁ জেলায় মোট ৩০১টি কমিউনিটি ক্লিনিকে বিগত ৬ মাসে মোট ১২ লাখ ১৫ হাজার ৯শ ৬৪ জন রোগীর চিকিৎসা প্রদান করা হয়েছে। এদের মধ্যে ৫ লাখ ৭ হাজার ৯শ ১৪ জন পুরুষ, ৬ লাখ ৩৪ হাজার ১শ ২৯ জন মহিলা এবং ৭৩ হাজার ৯শ ২১ জন শিশু। এসব ক্লিনিকে সেবা গ্রহিতার মধ্যে মহিলারাই বেশী। রোগিদের প্রয়োজনীয় ২৭ রকমের ঔষধ বিনামুল্যে প্রদান করা হয়েছে।

নওগাঁ’র সিভিলসার্জন ডাঃ মোমিনুল হক বলেছেন গত অক্টোবর’১৭ হ’তে মার্চ’১৮ পর্যন্ত জেলায় উল্লেখিত পরিমান রোগির চিকিৎসা প্রদান করা হয়েছে। তিনি বলেন নওগাঁ জেলার ১১টি উপজেলায় মোট ৩০১টি কমিউনিটি ক্লিনিক রয়েছে। প্রতিটি ক্লিনিকে একজন করে কমিউনিটি হেল্থ কেয়ার প্রোভাইডার দায়িত্ব পালন করছেন।

উপজেলা ভিত্তিক কমিউনিটি ক্লিনিকের সংখ্যা হচ্ছে আত্রাই উপজেলায় ২৬টি, বদলগাছি উপজেলায় ২৬টি, ধামইরহাট উপজেলায় ২১টি, মান্দা উপজেলায় ৪৮টি, মহাদেবপুর উপজেলায় ৩৬টি, নিয়ামতপুর উপজেলায় ৩০টি, পতœীতলা উপজেলায় ৩১টি, পোরশা উপজেলায় ১২টি, রানীনগর উপজেলায় ২৩টি, সাপাহার উপজেলায় ১৭টি এবং নওগাঁ সদর উপজেলায় ৩১টি।

সূত্রমতে এসব কমিউনিটি ক্লিনিকে উপজেলা ভিত্তিক চিকিৎসা সেবা গ্রহিতার সংখ্যা হচ্ছে নওগাঁ সদর উপজেলার ৩১টি ক্লিনিকে মোট ১ লাখ ২২ হাজার ৭শ ৮৩ জন। এর মধ্যে পুরুষ ৪৮ হাজার ৮শ ৩৯ জন, মহিলা ৬৪ হাজার ৯শ ৬২ জন ও শিশু ৮ হাজার ৯শ ৮২ জন।

আত্রাই উপজেলায় ২৬টি ক্লিনিকে মোট সেবা গ্রহিতার সংখ্যা ৮২হাজার ৭শ ৯৬ জন। এদের মধ্যে ৩৪ হাজার ৪শ ৬৬ জন পুরুষ, ৪১ হাজার ৪শ ৭৫ জন মহিলা ও ৬ হাজার ৮শ ৫৫ জন শিশু।

বদলগাছি উপজেলায় ২৬টি ক্লিনিকে সেবা গ্রহিতার মোট সংখ্যা ১ লাখ ৮ হাজার ৩শ ৯৯ জন। এর মধ্যে ৩৬ হাজার ৮শ ২৬ জন পুরুষ, ৬৬ হাজার ১৪ জন মহিলা ও ৫ হাজার ৫শ ৫৯ জন শিশু।

ধামইরহাট উপজেলায় ২১টি ক্লিনিকে মোট সেবা গ্রহন করেছেন ৭২ হাজার ৩শ ৩০ জন।এর মধ্যে ৩২ হাজার ১শ ১০ জন পুরুষ, ৩৬ হাজার ৩শ ২০ জন মহিলা এবং ৩ হাজার ৯শ জন শিশু।

মান্দা উপজেলায় ৪৮টি ক্লিনিকে মোট চিকিৎসা সেবা গ্রহন করেছন ২ লাখ ২৮ হাজার ৬ জন। এর মধ্যে ৯৩ হাজার ৯শ ৩১ জন পুরুষ, ১ লাখ ২১ হাজার ২শ ৬১ জন মহিলা এবং ১২ হাজার ৮শ ১৪ জন শিশু।

মহাদেবপুর উপজেলায় ৩৬টি ক্লিনিকে মোট চিকিৎসা গ্রহন করেছেন ২ লাখ ১১ হাজার ১শ ৩৮ জন। এদের মধ্যে ৮৯ হাজার ৮শ ৫৮ জন পুরুষ, ১ লাখ ৭ হাজার ৯শ ৮৫ জন মহিলা এবং ১৩ হাজার ২শ ৯৫ জন শিশু।

নিয়ামতপুর উপজেলায় ৩০টি কমিউনিটি ক্লিনিকে মোট সেবা গ্রহিতার সংখ্যা ৫৮ হাজার ৬শ ৫৭ জন। এদের মধ্যে ২৭ হাজার ৩শ ৭৭ জন পুরুষ, ২৮ হাজার ২শ ৭৯ জন মহিলা এবং ৩ হাজার ১ জন শিশু।

পতœীতলা উপজেলায় ৩১টি কমিউনিটি ক্লিনিকে এ ৬ মাসে মোট চিকিৎসাসেবা গ্রহন করেছেন ১ লাখ ৩৮ হাজার ৮শ ৪৭ জন। এদের মধ্যে ৫৭ হাজার ৯শ জন পুরুষ, ৭১ হাজার ৩শ ৯৬ জন মহিলা এবং ৯ হাজার ৫শ ৫১ জন শিশু।

পোরশা উপজেলায় ১২টি ক্লিনিকে এ পর্যন্ত মোট চিকিৎসা সেবা গ্রহিতার সংখ্যা ৫৪ হাজার ৩০ জন। এদের মধ্যে ২৫ হাজার ২শ ২০ জন পুরুষ, ২৬ হাজার ৩শ ১০ জন মহিলা এবং ২ হাজার ৫শ জন শিশু।

রানীনগর উপজেলায় ২৩টি ক্লিনিকে মোট চিকিৎসা সেবা গ্রহন করেছেন ৭৮ হাজার ৭শ ৪৭ জন। এর মধ্যে ৩৩ হাজার ১শ ৮৬ জন পুরুষ, ৪১ হাজার ১৭ জন মহিলা এবং ৪ হাজার ৫শ ৪৪ জন শিশু।

সাপাহার উপজেলায় ১৭টি কমিউনিটি ক্লিনিকে মোট চিকিৎসা সেবা গ্রহন করেছেন ৬০ হাজার ২শ ৩১ জন। এদের মধ্যে ২৮ হাজার ২শ ১ জন পুরুষ, ২৯ হাজার ১শ ১০ জন মহিলা এবং ৮ হাজার ৯শ ৮২ জন শিশু।

নওগাঁ’র জেলা প্রশাসক মোঃ মিজানুর রহমান বলেছেন বর্তমান সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিশেষ ১০টি উদ্যোগের মধ্যে কমিউনিটি ক্লিনিক উল্লেখযোগ্য। স্বাস্থ্যসেবা পাওয়া মানুষের মৌলিক অধিকারগুলোর উল্লেখযোগ্য একটি। গ্রামীন দরিদ্র জনগোষ্ঠীর একটি বিরাট অংশ এসব কমিউনিটি ক্লিনিকে চিকিৎসা সেবা পেয়ে দারুনভাবে উপকৃত হচ্ছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*