পাগলিটা মা হলেও বাবা হয়নি কেউ; কুমিল্লায় মহাসড়কের পাশে সন্তান প্রসব

পাগলিটা মা হলেও বাবা হয়নি কেউ; কুমিল্লায় মহাসড়কের পাশে সন্তান প্রসব

সাকিব অাল হেলাল।।শনিবার(২৬ মে) বিকেল ৪টায় মানসিক ভারসাম্যহীন এক নারী কুমিল্লা সদরের আমতলী মসজিদ সংলগ্ন এলাকায় মহাসড়কের পাশেই খোলা আকাশের নিচে একটি সন্তান প্রসব করেন । খবর পেয়ে নাজিরা বাজার ফাঁড়ী পুলিশের ইন্সপেক্টর মাহমুদ হাসান রুবেল সহ ফাঁড়ী পুলিশের সদস্যরা তাৎক্ষনিক ছুটে যান ঘটনাস্থলে। স্থানীয় কয়েকজন নারীকে ডেকে আনেন সহায়তার জন্য পুলিশ সদস্যরা। খবর দেয়া হয় হাসপাতালে এম্বুলেন্স পাঠানোর জন্য তবে গড়িমসি করছিলেন এম্বুলেন্স পাঠাতে। প্রায় একঘন্টা রাস্তার পাশেই পরেছিলো মা ও নবজাতক শিশুটি। এম্বুলেন্স পাঠাতে গাফিলতি করায় নবজাতক শিশুটিকে পুলিশ ভ্যানে করে নিয়ে যাওয়া হয় হাসপাতালে। ক্ষিপ্ত হয়ে ইন্সপেক্টর রুবেল আবারো ফোন দেন হাসপাতালে এম্বুলেন্স ছাড়া অসুস্থ এবং মানুষিক ভারসাম্যহীন নারীটিকে হাসপাতালে নেয়া সম্ভব হচ্ছিলো না। বাংলাদেশ পুলিশের অন্য আরেকটি মানবিক রুপ দেখছিলাম দাঁড়িয়ে এসময় । মনুষের প্রতি মমতা আর মানবিকতার যে দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন তারা তাতে বাংলাদেশের সাধারণ মানুষের হৃদয়ে পুলিশের প্রতি শ্রদ্ধা হাজারগুন বাড়িয়ে দেবে বলেই মনে করি। স্থানীয় ২নং দূর্গাপুর ইউপির ৩নং ওয়ার্ড মেম্বার খোরশেদ আলম কালু এবং আমতলী এপোলো ট্রেডার্স এর মালিক স্বপন পাগলি মা এবং তার নবজাতক কন্যা শিশুটির যাবতীয় চিকিৎসা ব্যায় বহন করবেন বলে জানিয়েছেন। স্থানীয়দের সহায়তায় ফাঁড়ীর পুলিশ ভ্যানে করে এবং এম্বুলেন্সে মা ও শিশুটিকে ক্যান্টনমেন্ট ময়নামতি জেনারেল হাসপাতালে নেয়া হয়েছে। মা এবং ফুটফুটে ফর্সা মেয়ে নবজাতক শিশুটি দুজনেই সুস্থ রয়েছেন বলে জানিয়েছেন হাসপাতালের চিকিৎসকগন । জানা গেল সুন্দর ফুটফুটে চেহার শিশুটিকে দত্তক নিতে ইতিমধ্যেই আগ্রহ প্রকাশ করেছেন অনেকেই। এবিষয়ে নাজিরা বাজার ফাঁড়ী পুলিশের ইন্সপেক্টর মাহমুদ হাসান রুবেল বলেন, খবরটি শুনে মানবিক দায়িত্ববোধ থেকেই তিনি সহ এস আই দয়াল, এএসআই রাজু, এএসআই ছুটে গিয়েছেন সেখানে। তাদের সুচিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়েছে। ফুটফুটে শিশুটি দেখে যে কারোই মায়া তৈরি হবে। মানসিক ভারসাম্যহীন নারীর দ্বারা শিশুটিকে লালান পালন করা সম্ভব নয় বলেই মনে হচ্ছে। তবে শিশুটির আগামীর সুন্দর ভবিষ্যৎ এর জন্য সচ্ছল এবং নিঃসন্তান কোন দম্পতিকে দত্তক দেয়াই সমীচীন বলে মনে করছি। সে ক্ষত্রে যথাযোগ্য কাউকে মনে হলে যাচাই বাছাই করেই দেয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*