ফটিকছড়িতে ছাত্রলীগের হামলায় ছাত্রদল নেতা মোরশেদ হাজারী আহত!

ফটিকছড়িতে ছাত্রলীগের হামলায় ছাত্রদল নেতা মোরশেদ হাজারী আহত!

সাইফুল ইসলাম:- ফটিকছড়িতে ছাত্রলীগের সন্ত্রাসী হামলায় ছাত্রদলের উত্তর জেলার সহ সভাপতি এম.মোরশেদ হাজারী মারাত্মকভাবে আহত হয়েছে। গত ১৮ জুলাই বুধবার সন্ধ্যার সময় উপজেলার রাজঘাট এলাকায় এ হামলার ঘটনা ঘটে। উপজেলা ছাত্রদল নেতা ওসমান তাহের সম্রাট জানান,লেলাং বিএনপি নেতা সরওয়ারকে দেখতে যাওয়ার প্রস্তুতি কালে আমার মিল থেকে মোরশেদ বের হয়ে মোবাইলে কথা বলতে বলতে হাটেন। তখন হঠাৎ করে মোরশেদ হাজারীকে ৬০- ৭০ জন মুখোশ পড়া কিরিচ ও লোহার রড নিয়ে এলোপাথারি চারপাশ থেকে ঘিরে মারতে থাকে। আশে পাশের ব্যবসায়ীরা বাঁচাতে আসলে হামলা কারীরা পালিয়ে যায়। এ সময় হামলায় তার মাথা ফেটে যাওয়ায় প্রচুর পরিমাণে রক্তক্ষরণ হওয়ায় মোরশেদ অজ্ঞান হয়ে মাটিতে পড়ে যায়। তাৎক্ষনিক তাকে উদ্ধার করে প্রথমে নাজিরহাটস্থ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এ নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য চমেকে পাঠিয়ে দেন। বর্তমানে সে প্রবর্তক মোড় হেলথ কেয়ার সেন্টারে চিকিৎসাধীন রয়েছে। হামলাকারীরা জয় বাংলা জয় বঙ্গবন্ধু বলে শ্লোগান দিতে দিতে হামলা করে বলে মোরশেদ হাজারীর বরাত দিয়ে সম্রাট আরো বলেন, উপজেলা ছাত্রলীগের সন্ত্রাসীরা এ ঘটনা ঘটিয়েছে। এদিকে মোরশেদ হাজারীর হামলার খরব শুনে সাথে সাথে হাসপাতালে দেখতে আসেন মহানগর বিএনপি স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক ডাঃ সরোয়ার হোসেন, ফটিকছড়ি উপজেলা বিএনপির নেতা এম শহিদুল আজম চেয়ারম্যান,উত্তরজেলা ছাত্রদল নেতা এম আব্দুল আজিজ,মহসিন কলেজ ছাত্রদলের আহবায়ক ইয়াকুব আলী সিফাত,ফটিকছড়ি যুবদল নেতা আমিন তালুকদার,সাংবাদিক এইচ.এম.সাইফুদ্দীন, ফটিকছড়ি কলেজ ছাত্রদলের আহবায়ক আব্দুল্লাহ আল মামুন,উপজেলা ছাত্রদল নেতা উজ্জ্বল,সাইমন ও রাব্বী। এ সময় তারা এ হামলার তীব্র নিন্দা জানিয়ে সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে মামলা করার প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে জানা যায়। এ বিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জামাল উদ্দীন বলেন, এ ঘটনা কে বা কারা ঘটিয়েছে জানিনা।ছাত্রলীগ করলে অবশ্যই জানতাম।তিনি বলেন,বিএনপির দলীয় কোন্দলের কারণে তারা একে অপরকে মেরে ছাত্রলীগের উপর দোষ চাপিয়ে দিতে চায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*