ভারী বর্ষনে চৌদ্দগ্রামে বন্যার আশংকা 

ভারী বর্ষনে চৌদ্দগ্রামে বন্যার আশংকা 
জাকারিয়া ভূঁইয়া  : টানা দুই দিনের ভারী বর্ষনে এবং পাশ্ববতী ভারতের পাহাড়ী ঢলে চৌদ্দগ্রাম উপজেলার পৌর এলাকাসহ উত্তর অংশের ২-৩টি ইউনিয়নে বন্যার আশংকা দেখা দিয়েছে। এর মধ্যে কাকড়ি ব্রীজ বেষ্টিত উজিরপুর ও কালিকাপুর ইউনিয়নে পানির স্রোতের প্রবাহ অত্যন্ত বেশি। বুধবার (১৩ জুন) পর্যন্ত ইউনিয়নগুলোর অন্তত ১৫-২০টি গ্রাম প্লাবিত হওয়ার পরিস্থিতি দেখা দিয়েছে। এসব এলাকায় অনেক গ্রামে বাড়িঘরে পানি প্রবেশ করেছে। পাশাপাশি ২টি ইউনিয়নের বেশ কয়েকটি গরু ও মুরগীর খামার প্লাবিত হয়েছে। ইতিমধ্যেই বন্যার আশংকা ও পানি উঠে পড়া কালিকাপুর ইউনিয়নের বেশ কয়েকটি গ্রাম পরিদর্শণ করেছেন স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ভিপি মাহবুব হোসেন মজুমদার। কালিকাপুরের বিশেষ করে নোয়াপুর, দূর্গাপুর, ছুপুয়া, কালিকাপুর, বদরপুর, কিং ছুপুয়া, বর্ধনবাড়ী, সোনাপুর গ্রামগুলোর কোথাও ৫ ফুট, কোথাও ৩ফুট পানিতে প্লাবিত হয়েছে। স্থানীয়রা জানান, বুধবার ভোর বেলা হঠাৎ করে পাহাড়ি ঢলে বন্যার সৃষ্টি হয়। এছাড়া চৌদ্দগ্রাম পৌরসভার ভারত সংলগ্ন নোয়াপাড়া, বালুজুড়িসহ বেশ কয়েকটি গ্রামেও বন্যার আশংকা দেখা দিয়েছে। এসব এলাকায় ক্ষতিগ্রস্থ গ্রামগুলো পরিদর্শন করেছেন প্যানেল মেয়র নজরুল ইসলাম কামাল।
সরে জমিনে গিয়ে দেখা যায় ক্ষতিগ্রস্থ গ্রামগুলোর কমপক্ষে ৩০টি পুকুরের মাছ বন্যায় ভাসিয়ে নিয়ে যায়। এছাড়া ধানের বীজ তলাও ব্যাপক ক্ষয় ক্ষতি হয়। এ এলাকার প্রধান রাস্তা  ঢাকা-চট্রগ্রাম বিশ্বরোড থেকে ছুপুয়া বাজার পর্যন্ত রাস্তাটি অন্তত ৪ফুট পানিতে তলিয়ে গেছে। অনেকগুলো রাস্তা ডুবে যাওয়ায় এখানকার মানুষের চলাচল ব্যবস্থাও বিপর্যস্থ হয়ে পড়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*