মহামতি বুদ্ধের নীতি আদর্শ অনুশীলন করলে সমাজে কোন অশান্তি থাকবে না

দুইদিন ব্যাপী বাংলাদেশ সংঘরাজ ভিক্ষু মহাসভা কর্তৃক আয়োজিত ত্রি-স্মৃতিবিজড়িত শুভ বুদ্ধ পূর্ণিমা উদযাপন শান্তি শোভাযাত্রা উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ ইলিয়া হোসেন

মহামতি বুদ্ধের নীতি আদর্শ অনুশীলন করলে সমাজে কোন অশান্তি থাকবে না
কুতুব উদ্দিন রাজু, চট্টগ্রাম :   চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ ইলিয়াছ হোসেন বলেছেন,বৌদ্ধ ধর্মের প্রবক্তা মহামতি গৌতম বুদ্ধ অহিংসা নীতি প্রচারের মাধ্যমে মানুষের মধ্যে মানবিক মুল্যবোধ সৃষ্টির কাজ করেছেন। তার প্রচারিত নীতি আর্দশ অনুশীলন করলে সমাজে কোন অশান্তি ও বিশৃংঙ্খলা থাকবে না। বাংলাদেশ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির দেশ। মুক্তিযুদ্ধের মুলমন্ত্র ও ছিল অসাম্প্রদায়িক চেতনা। এদেশের মানুষ স্মরনার্তীতকাল থেকে এক অপরের সাথে আন্তরিক ভাবে চলে আসছে। তারই ধারাবাহিকতা আমাদের মধ্যে বজায় রাখতে হবে। তিনি গত ১৭ মে শুভ বুদ্ধ,পূর্ণিমা, ৫ম ও ৬ষ্ঠ সংঘরাজদ্বয়ের স্মৃতি জয়ন্তী ও জাতীয় বৌদ্ধ মহাসম্মেলন উদযাপন উপলক্ষে আয়োজিত নগরীর ডিসি.হিল থেকে বিশ^শান্তি শোভাযাত্রার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উল্লেখিত অভিমত ব্যক্ত করেন। উপস্থিত ছিলেন উপ-সংঘরাজ শাসনস্তম্ভ ধর্মপ্রিয় মহাস্থবির, বুদ্ধরক্ষিত মহাস্থবির, সত্যপ্রিয় মহাস্থবির, প্রিয়ানন্দ মহাস্থবির, ড. জিনবোধি ভিক্ষু, এস. লোকজিৎ স্থবির, সুমনোপ্রিয় ভিক্ষু প্রমুখ ভিক্ষুসংঘ এবং বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।
শান্তি শোভাযাত্রাটি চট্টগ্রাম বৌদ্ধ বিহার সংলগ্ন ডিসি.হিল থেকে শুরু করে বোসবাদার্স, কোট বিল্ডিং,লালদীঘি, কোতোয়ালী, হতে পুর্ন ডিসি.হিল হয়ে লাভলাইন লালখান বাজার ওযাশা হয়ে বহদ্দারহাট,বাসটার্মিনাল,সিএন্ডবি হতে রাস্তার মাথা হয়ে বাহির সিগন্যাল বড়–য়া পাড়া চান্দগাঁও,সার্বজনীন,শাক্যমুনী বিহারে গিয়ে শেষ হয়। দুইদিন ব্যাপী অনুষ্ঠানে ১ম দিন বিশ^শান্তি শোভাযাত্রা ও ৫ম এবং ৬ষ্ঠ সংঘরাজদ্বয়ের জীবনী নিয়ে সেমিনার অনুষ্ঠিত হয় মুলপ্রবন্ধ উপাস্থাপন করেন যথাক্রমে অধ্যাপক ড. অর্থদর্শী বড়–য়া,প্রফেসর ড, জিনবোধি ভিক্ষু।
২য় দিন অষ্টপরিস্কারসহ মহাসংঘদান ও জাতীয় বৌদ্ধ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়,সভাপতিত্ব করেন উপ-সংঘরাজ স্মৃতিধর শীলানন্দ মহাস্থবির, আশীর্বাদক ছিলেন একুশে পদক প্রাপ্ত পন্ডিত সত্যপ্রিয় মহাস্থবির, এতে প্রধান অতিথি ছিলেন বৌদ্ধ সমিতি ঢাকা অঞ্চলের সাধারণ সম্পাদক স্বপন বড়–য়া চৌধুরী, উদ্বোধক ছিলেন এস. লোকজিৎ স্থবির, এতে প্রধান আলোচক ছিলেন ভদন্ত শাসনবংশ মহাস্থবির। বিকালের শেষ পর্বের অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন উপ-সংঘরাজ শাসনস্তম্ভ ধর্মপ্রিয় মহাস্থবির। সুমনোপ্রিয় ভিক্ষু ও তেজপ্রিয় ভিক্ষুর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত অনুষ্ঠানে প্রধান ধর্মদেশক ছিলেন ভিক্ষুসুনন্দ প্রিয়, সাধরণ সম্পাদক বুড্ডিস্ট ফেডারেনশন। বিশেষ অতিথি ছিলেন সত্যপ্রিয় মহাস্থবির,সুগতপ্রিয় মহাস্থবির,বিমলজ্যোতি মহাস্থবির,প্রকৌশলী মৃনাল কান্তি বড়–য়া, কেশব কুমার বড়–য়া ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*