রমজান মাসে প্রতিদিন চকরিয়া পৌরসভার বিভিন্ন বাজার মনিটরিং করার ঘোষনা মেয়র আলমগীর চৌধুরী 

রমজান মাসে প্রতিদিন চকরিয়া পৌরসভার বিভিন্ন বাজার মনিটরিং করার ঘোষনা মেয়র আলমগীর চৌধুরী 
মোঃ নাজমুল সাঈদ সোহেল , কক্সবাজারের(চকরিয়া)প্রতিনিধি  ;; চলছে সিয়াম সাধনার মাস পবিত্র মাহে রমজান। অন্যান্য মাসের চেয়ে এই মাসে প্রত্যেক ধর্মপ্রাণ মুসলমান চায় একটু স্বস্তির সাথে রোজা পালন করতে। কিন্তু আমাদের দেশে প্রতি বছরে রমজান মাসে দ্রব্যমূল্যের উর্ধ্বগতির কারণে অনেকটা হিমশিম খেতে হয়। দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির কারণে নিম্ন ও মধ্যবিত্ত পরিবারে নানা কষ্টের সাথে পার করতে হয় পবিত্র মাহে রমজান মাস।সাধারণ মানুষের লড়তে হয় শোচনীয় দিনাতিপাত। ইতিপূর্বে চকরিয়া পৌরসভার সম্মেলন কক্ষে রমজানে মাসে দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির প্রবণতা রোধে বিভিন্ন ব্যবসায়ী বৃন্দের সাথে মতবিনিময় এবং প্রতিদিন বাজার মনিটরিং করার সিদ্ধান্ত গৃহীত হলেও অসাধু ব্যাবসায়ীরা চলছে বরাবরেরমত বেপরোয়া গতিতে।কিন্তুু অফিস সেমিনার ও মতবিনিময় সভার মধ্যে সীমাবদ্ধ নেই আধুনিক চকরিয়ার রূপকার মেয়র মোঃ আলমগীর চৌধুরী। নিজস্ব লোক দিয়ে গোপনীয়ভাবে বাজারের সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে বিভিন্ন তথ্য ও খবরাখবর সংগ্রহ করছেন।বাজারের পরিবেশ পরিস্থিতি কিছুটা অসাভাবিক সংবাদ পাওয়ায় আবারো ব্যাবসায়ীদের হুশিয়ার উচ্চারণ করে বলেন প্রতিদিন পৌরসভার বিভিন্ন বাজার মনিটরিং করা হবে।সুতরাং বিধিমোতাবক স্বচ্ছতা বজায় রেখে পবিত্র রমজান মাসে একে অপরের হক মাথায় রেখে ব্যাবসায়ীদের বেচাকেনা করার তাগিদ দেন।
এবিষয়ে মেয়র আলমগীর চৌধুরী বলেন,রমজান মাসে ইফতার সামগ্রী প্রস্তুতের জন্য প্রয়োজনীয় কাঁচামালের মূল্য বেড়ে যায়। অার প্রয়োজনে অপ্রয়োজনে সাথে সাথে নিত্যপ্রয়োজনীয় অন্যান্য দ্রব্যের ক্ষেত্রেও মূল্য বাড়ানোর প্রবণতা দেখা যায়।এতে সাধারণ মানুষের কষ্টের সীমা থাকে না। বিশেষ করে মধ্যবিত্ত ও নিম্মবিত্ত পরিবারের অবস্থা খুবই শোচনীয় হয়।পক্ষান্তরে কিছু অসাধু ব্যবসায়ীরা রমজান মাসকে পুঁজি করে লুফে নেয় অনেক অনেক মুনাফা। সারা বছরের জন্য টার্গেট থাকে তাদের এ মাসটি। অসাধু ব্যবসায়ীরা টাকার থলি ভরছে অার সর্বহারা হচ্ছে সাধারণ মানুষ। সুতরাং ইবাদাত- বন্দেগী ও রমজানে স্বাভাবিক দৈনন্দিন জীবন যাপনে যেন কোন ধরনের ছেদ না পড়ে তার জন্য দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি সহনীয় পর্যায়ে রাখা অতীব জরুরি।তাছাড়া রমজান মাসে খাদ্যে ভেজালের প্রবণতাও দেখা যায় বেশি। ফলে মানুষ স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে ভুগে।
তাই চকরিয়া পৌরসভার মেয়র আলমগীর চৌধুরী ও চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নুরুদ্দীন মুহাম্মদ শিবলী নোমান ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দদের সাথে নিয়ে চকরিয়া পৌরসভার সম্মেলন কক্ষে রমজান মাসে যেন দ্রব্যমূল্য কোনভাবেই বৃদ্ধি না পায় সে লক্ষে প্রয়োজনীয় মতবিনিময় ও নিয়মিত বাজার মনিটরিংয়ে নিরলস প্রচেষ্টা অব্যাহত থাকবে বলে অংঙ্গীকার ব্যাক্ত করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*