রামগড়ে ট্রাফিক সপ্তাহের ৬ষ্ঠ দিনে ভ্রাম্যমাণ আদালত- মামলা

বেশিরভাগ মোটর সাইকেল চালকেরই নেই হেলমেট
রামগড়ে ট্রাফিক সপ্তাহের ৬ষ্ঠ দিনে ভ্রাম্যমাণ আদালত- মামলা

সাইফুল ইসলাম ভূঁইয়া, ট্রাফিক সপ্তাহের ৬ষ্ঠ দিন আজ। এবারের ট্রাফিক সপ্তাহ অন্যান্য বছরের চেয়ে অনেকটাই আলাদা। সাম্প্রতিক বেপরোয়া বাসের চাপায় শহিদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের দুই শিক্ষার্থীর মর্মান্তিক মৃত্যুকে কেন্দ্র করে ঢাকা সহ সারাদেশে নিরাপদ সড়কের দাবীতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলন নাড়া দিয়েছে জাতীর বিবেককে। মহাসড়কে মৃত্যুর মিছিল ঠেকাতে এবং নানাবিধ অনিয়ম রোধে বিআরটিএ (বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটি) এবং আইন শৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনীকে আরো সোচ্ছার হওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তাই এবারের ট্রাফিক সপ্তাহে সারাদেশ ব্যাপী ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা-জনসচেতনতা সহ নানাবিধ কার্য্যক্রম পরিচালনা করছে বাংলাদেশ ট্রাফিক পুলিশ এবং বিআরটিএ। এ কার্য্যক্রমে অংশ নিচ্ছে বাংলাদেশের বিভিন্ন থানা পুলিশও। খাগড়াছড়ি জেলার রামগড় থানা কর্তৃক আজ ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালিত হয় ঢাকা- খাগড়াছড়ি সড়কের মহামুনি এলাকায়। সরেজমিনে দেখা যায় বেশির ভাগ মোটর সাইকেলের চালকেরই নেই হেলমেট এবং ড্রাইভিং লাইসেন্স। দীর্ঘদিন থেকে চলে আসা অনিয়ম মহা-সড়কে নিয়ম হয়ে দাড়িয়েছে। অভিযোগ আছে হেলমেট এবং ড্রাইভিং লাইসেন্স না থাকলেও দু-চারশো টাকার বিনিময়ে পার পেয়ে যান বেশিরভাগ চালক। এবং ক্ষমতাসীন অনেকেরই আইন না মানার প্রবণতাও লক্ষণীয়। ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার দায়িত্বে থাকা রামগড় থানার উপ-পরিদর্শক নোমান বলেন, সরকারের নির্দেশ অনুসারে আমরা জিরো ট্রলারেন্স নীতিতে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করছি। গাড়ীর ফিটনেস, ড্রাইভিং লাইসেন্স, অতিরিক্ত যাত্রী বোঝাই, মোটর সাইকেল চালকের হেলমেট সহ ট্রাফিক আইনের যেকোন ব্যত্যয় দেখলেই মামলা দিচ্ছি এবং এই প্রক্রিয়া চলমান থাকবে। এই সময় যাত্রীবাহী বাসের ছাদে মাল বোঝাইয়ের অপরাধে রাফসানা নাহিদ, ফেনী-জ ০৫-০০২৩ বাসটিকে মামলা দেয়া হয়। সাধারণ মানুষ মনে করেন সড়ক আইনের যথাযথ প্রয়োগই পারে সকল অনিয়ম রোধ করতে। তাছাড়া মোটর সাইকেল চালকদের হেলমেট ব্যবহারে সচেতনতা কার্য্যক্রম পরিচালনা করা উচিত। প্রত্যেক নাগরিকের জন্য মহাসড়ক নিরাপদ হবে এবং সকলের জন্য সমান হবে আইনের যথাযথ প্রয়োগ এমনটাই প্রত্যাশা সাধারণ মানুষের।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*