শেরপুরে বেড়েছে সবজির দাম; ক্রেতাদের নাভিশ্বাস

শেরপুরে বেড়েছে সবজির দাম; ক্রেতাদের নাভিশ্বাস
নাঈম ইসলাম, শেরপুর জেলা প্রতিনিধিঃ প্রতিবছর রমজান মাস এলে নিত্যপণ্যের দাম বেড়ে যায় । শেরপুরে মাত্র এক সপ্তাহের ব্যবধানে নিত্যপণ্যের বাজারে অস্থিরতা দেখা দিয়েছে । বিভিন্ন ধরনের সবজির দাম কেজিতে বেড়েছে ১০-৩০ টাকা পর্যন্ত। পবিত্র রমজান মাসে হুট করে সবজির মূল্যবৃদ্ধিতে ক্ষোভ জানিয়েছে সাধারণ ক্রেতারা । আর এতে বেশি বিপাকে পড়েছে খেটে খাওয়া মানুষরা । ক্রেতাদের অভিযোগ বাজারে পর্যাপ্ত সবজি থাকার পরও বেশি দামে বিক্রি হচ্ছে ।
তবে কাঁচামাল বিক্রেতাদের দাবি, বৈশাখী ঝড় ও শিলাবৃষ্টিতে সবজির আবাদে বেশ ক্ষতি হয় তাই চাহিদার তুলনায় সবজির সরবাহ কম । আর এ কারনেই মোকামেই দাম বেশি । তাই কিছুটা বেশি দামে বিক্রি করা হচ্ছে । আগামী কয়েকদিনের মধ্যে সবজির দাম সহনীয় হয়ে আসবে বলে আশা করছেন বিক্রেতারা ।
শনিবার শেরপুরের নয়ানী বাজার, বউ বাজার, হাজীর মোড়, খোয়ারপাড়, আখের বাজার ও বাজিতখিলা কাঁচাবাজার ঘুরে দেখা যায়, বেগুন গত সপ্তাহে ৪০ টাকা দরে বিক্রি হলেও এখন বেগুনের কেজি এক লাফে ৬০ টাকা, আলু কেজিতে বেড়েছে পাঁচ টাকা, কচুর লতি ৪৫ টাকা থেকে ৬৫ টাকা, ঝিজ্ঞা ও করলা ৪০ থেকে ৫০ টাকা, শশাঁ কেজিতে ১০ ও টমেটো কেজিতে পাঁচ টাকা বেড়েছে। এছাড়াও চিচিংগা, ঢেঁড়স, কাঁকরোল, পটল, বরবটি, পেঁপেঁর দামও বেড়েছে ।
মাঝারি আকারের জালি কুমড়া ৫০ টাকা, ছোট আকারের লাউ ৪০-৫০ টাকা দাম হাঁকছেন খুচরা বিক্রেতারা । দ্বিগুন বেড়েছে ডাটার দাম, থেমে নেই পাট শাক, পুঁই শাক, ধনিয়া পাতার দাম ।
এদিকে কয়েকদিনের ব্যবধানে মুড়ি ৬০ টাকা থেকে ৬৫, চিনি ৫৫ টাকা থেকে ৬০, সয়াবিন ৮০-৯০ টাকা, মসুর ডাল ৬০-৭০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে ।
রমজানের প্রভাব পড়েছে দুধ ও গোশতের বাজারেও । প্রতি লিটার দুধ বিক্রি হচ্ছে ৮০-১০০ টাকায়, বয়লার মুরগির দাম বেড়েছে কেজিতে ১৫-২০ টাকা ।
শহরের নয়ানী বাজারের সবজি বিক্রেতা শাজাহান মিয়া জানান, ডুবারচর থেকে একেকটি ঝালি কুমড়া কিনেছেন ৩৫ টাকা দরে আর লাউ কিনেছেন ৩২ টাকা দরে । চর থেকে বেশি দামে কিনে আনায় কিছুটা চড়া দামে বিক্রি করতে হচ্ছে ।
খোয়ারপাড় কাচাঁবাজারে সবজি কিনতে আসা শামসুন্নাহার বেগম বলেন, গত সপ্তাহের চেয়ে বর্তমানে সবকিছুতে দাম বেশি নিচ্ছে ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*