শৈলকুপায় নয়ন কারিগরি শাখা থেকে জিপিএ-৫: অর্থাভাবে অনিশ্চিত উচ্চ শিক্ষা

শৈলকুপায় নয়ন কারিগরি শাখা থেকে জিপিএ-৫: অর্থাভাবে অনিশ্চিত উচ্চ শিক্ষা
টিপু সুলতান, শৈলকুপা:পরিশ্রম সৌভাগ্যের প্রসূতি। সৌভাগ্য নিয়ে পৃথিবীতে কোনো মানুষের জন্ম হয় না। কর্মের মাধ্যমে তার ভাগ্য গড়ে নিতে হয়। কঠোর পরিশ্রমের মাধ্যমে কঠিন কাজও সহজ হয়। জীবনে উন্নতি করতে হলে পরিশ্রমের কোনো বিকল্প নেই। এমনিভাবে তার বাস্তব প্রমাণ দিয়েছেন সারাদিন চা বিক্রয় করে রাতে অধ্যয়ন শেষে এসএসসিতে জিপিএ-৫ অর্জন করা নয়ন। শৈলকুপা উপজেলা ভূমি অফিসের সামনে গেলেই চোখে পড়বে ড্রেনের উপর চা বিক্রয় করছে নয়ন। সবাইকে অবাক করে দিয়ে ২০১৮ এসএসসিতে পেয়েছে জিপিএ-৫।
এদিকে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, পিতার পক্ষে ছেলের লেখা পড়ার খরচ চালানো সম্ভব না হলেও নয়নের ইচ্ছা আর অদম্য মনোবলের কারণে দরিদ্রতাকে জয় করে চায়ের দোকানের সারাদিন চা বিক্রয়ের উপার্জিত অর্থে লেখাপড়া করে এসএসসিতে জিপিএ-৫ পেয়েছে নয়ন। শৈলকুপা পাইলট মডেল উচ্চ বিদ্যালয় থেকে কারিগরি বিভাগে এসএসসি’র ২০১৮ ফলাফলে নয়ন জিপিএ-৫ পাওয়ায় ঈদের খুশি দোলা দিয়েছে তার পরিবারসহ ওই গ্রামে। নয়ন পৌর এলাকার  মালিপাড়া গ্রামের দরিদ্র সাহেব আলীর ছেলে।
নয়ন জানায়, স্কুল শিক্ষকদের আন্তরিকতায়  সবকিছু সম্ভব হয়েছে। সারাদিন চা বিক্রয় শেষে রাতের বেলায় যতটুকু সময় পেয়েছি ততটুকু সময় অধ্যয়ন করেই আমার এ সাফল্য অর্জন।অপরদিকে, সম্প্রতি নয়নের মা মারা গেছে। বাবা নাকি অনত্র আরেকটি বিয়ে করেছে। নয়নের স্বপ্ন উচ্চ শিক্ষা লাভ করে ভাল চাকুরি করা। কিন্তু পরিবারের আর্থিক অনটনের কারণে এখন তার কলেজে ভর্তি হওয়াই অনিশ্চিত হয়ে পরেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*