সাবেক ডিসি আবুল কাসেম মোঃ মহিউদ্দিনের সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে শুভেচ্ছা সফর

সাবেক ডিসি আবুল কাসেম মোঃ মহিউদ্দিনের সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে শুভেচ্ছা সফর

হেলাল উদ্দীন , সাতক্ষীরা জেলা প্রতিনিধিঃ সাতক্ষীরা ছেড়ে গেলে ভুলে যাইনি এখানকার মানুষের কথা। ভুলে যাবোও না কোনদিন। পেশাগত জীবনের ব্যস্ততার মধ্যেও আমি আপনাদের কথা মনে রেখেছি। আমি সাতক্ষীরার জন্য কিছু কাজ করতে পেরেছি ভেবে এখনও তৃপ্তি বোধ করি। তবে অতৃপ্তি রেয়েছে সব কাজ সম্পন্ন করতে না পারার।
সোমবার সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে আকষ্মিক শুভেচ্ছা সফরে এসে এ কথা বলেন সাতক্ষীরার সাবেক জেলা প্রশাসক বর্তমান জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব আবুল কাশেম মোহাম্মদ মহিউদ্দিন। তিনি বলেন সাতক্ষীরায় দিন দিন উন্নয়ন হচ্ছে। এই ধারা অব্যাহত থাকলে সাতক্ষীরা আরও এগিয়ে যাবে। তিনি বলেন এখন সাতক্ষীরায় দরকার একটি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়। সরকার বিষয়টি ভাবছে জানিয়ে তিনি বলেন এখানকার শিক্ষার্থীরা একদিন নিজেদের জেলায় উচ্চ শিক্ষা লাভ করতে পারবে বলে মন্তব্য করেন তিনি। তিনি বলেন সাতক্ষীরায় মেডিকেল কলেজ হয়েছে এটি একটি বড় অর্জন। বাইপাস সড়ক হয়েছে। মানুষের যাতায়াত সুবিধা বৃদ্ধি পাচ্ছে। একদিন রেল সংযোগ হবে বলেও আশা প্রকাশ করেন তিনি। এ সময় তার সহধরর্মীনি সেলিনা আফরোজ ও মেয়ে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রী মুমতাসিন আফরোজ নীহা উপস্থিত ছিলেন।
এর আগে যুগ্ম সচিব ও তার পরিবারের সদস্যদের স্বাগত  জানান সাতক্ষীরা প্রেসক্লাব সভাপতি অধ্যক্ষ আবু আহমেদ ও সাধারণ সম্পাদক আব্দুল বারী। এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন সাংবাদিক সুভাষ চৌধুরী, প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি আবুল কালাম আজাদ, ইন্ডিপেন্ডেন্ট টিভির আবুল কাসেম, মোহনা টিভির আব্দুল জলিল, ডিবিসি টিভির এম জিল্লুর রহমান, বাংলাদেশ বেতারের ফারক মাহবুবুর রহমান, সাতক্ষীরা জেলা সাংবাদিক ফোরামের সাধারণ সম্পাদক শেখ আমিনুর হোসেন প্রমূখ সাংবাদিক। শুভেচ্ছা মত বিনিময়কালে সাংবাদিকরা তার সময়ের বিভিন্ন উনয়ন কর্মকান্ড তুলে ধরেন। আলোচনায় অনেক বিষয়ের মধ্যে উঠে আসে তার হাতে গড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সাতক্ষীরা কালেক্টরেট স্কুলের কথা। স্কুলটি এখন ভাল রেজাল্ট করছে জানিয়ে মত বিনিময় সভায় বলা হয় সাতক্ষীরা কালেক্টরেট স্কুলটি একদিন আদর্শ প্রতিষ্ঠানে পরিণত হবে। আবুল কাসেম মো. মহিউদ্দিন বলেন তিনি যেখানে থাকুন সাতক্ষীরার উন্নয়নে এতোটুকু অংশ নিতে পারলে খুশী হবো। তিনি আরও বলেন সাতক্ষীরার মানুষের আচরন চমৎকার । একারণে তাদের সাথে আমার নৈকট্য গড়ে উঠেছে। এই নৈকট্য আগামিতে আরও বৃদ্ধি পাবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি। সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সুন্দরবন পিকনিক আয়োজন তাকে পারিবারিক ভাবে নিমন্ত্রণ জানানো হলে তা তিনি সাদরে গ্রহণ করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*