বাকেরগঞ্জে ব্যাংক কর্মকর্তাকে লাঞ্ছিত ও সন্ত্রাসী কর্তৃক হুমকি

বাকেরগঞ্জে ব্যাংক কর্মকর্তাকে লাঞ্ছিত ও সন্ত্রাসী কর্তৃক হুমকি

বরিশাল (বাকেরগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংকের বাকেরগঞ্জ শাখার দ্বিতীয় কর্মকর্তা মনিরুজ্জামান সোহাগের কে একই ব্যাংকের সুখী নীলগঞ্জ শাখার ব্যবস্থাপক ইমাম হোসেন লাঞ্ছিত ও সন্ত্রাসী কতৃক হুমকি প্রদান করছে  বলে অভিযোগ উঠছে । সরেজমিনে গিয়ে জনাযায়, গত (০৬) জানুয়ারী রবিবার বাংলােদশ কৃষি ব্যাংকের বাকেরগঞ্জ উপজেলার সুখীনীলগঞ্জ শাখার ব্যস্থাপক ইমাম হোসেন নগদ অর্থ গ্রহনের জন্য বাংলােদশ কৃষি ব্যাংকের বাকেরগঞ্জ শাখায় আসলে নগদ অর্থ প্রদান করা হয়। ঘটনার দিন মাসের প্রথম সপ্তাহে ব্যাংকে প্রচন্ড ভিড় থাকা সত্বেও ব্যবস্থাপককে নগদ অর্থ প্রদানে কতৃপক্ষ কোনো বিলম্ব করে নায়। তবে নগদ অর্থ প্রদানের পর এডভাইজ প্রদানে একটু দেড়ি হওয়ায়  ২য় কর্মকর্তা  মনিরুজ্জামান সোহাগের প্রতি ক্ষিপ্ত হয়ে ইমাম হোসেন গালাগালি শুরু করে এবং তাৎক্ষণিক ভাবে মুঠোফোনের মাধ্যমে ব্যাংকে ভিতরে বহিরাগত সন্ত্রাসী এনে হুমকি প্রদান করে।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক সুখীনীলগঞ্জ শাখার ব্যস্থাপক ইমাম হোসেনের কাছে জানতে চাইলে তিনি বহিরাগত সন্ত্রাসী কতৃক হুমকির বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, আমাদের মধ্যে সামান্য একটু তর্কাতর্কি হয়। তবে বিষয়টি আমাদের উর্দ্ধতন কর্মকর্তারা সমাধান করে দিয়েছে।

বাকেরগঞ্জ শাখার দ্বিতীয় কর্মকর্তা মনিরুজ্জামান সোহাগ বলেন, বিভিন্ন পত্রপত্রিকায় দেখলাম আমাদের মধ্যে মারধরের বিষয়ে বেশ কিছু সংবাদ প্রকাশ করা হয়েছে এগুলো মিথ্য এবং উদ্দেশ্যপ্রনিত মাত্র। মূলত আমাদের মধ্যে মারধরের কোনো বিষয় ঘটেনি সুখীনীলগঞ্জ শাখার ব্যবস্থাপক ইমাম হোসেন কে  নগদ অর্থ প্রদানের পর এডভাইজ প্রদানে একটু দেড়ি হওয়ায় তিনি আমার সাথে অসৌজন্যমূলক বাক্য বিনিময় করে। আমি তাকে অনুরোধ করা সত্্বেও তিনি না থামলে আমিও বুঝানোর চেষ্টা করলে তিনি আরো ক্ষিপ্ত হয়ে ব্যংকের ভিতরে বহিরাগত সন্ত্রাসী ডেকে এনে গন্ডগোল সৃষ্টির চেষ্টা করলে আমার ব্যবস্্থাপক তাদের বের করে দেয়।

প্রত্যক্ষদর্শী বাকেরগঞ্জ কৃষি ব্যাংক কর্মকর্তা ইউসুফ বলেন, সন্ত্রাসী বলতে বহিরাগত একটি ছেলে এসে ব্যবস্থাপকের কক্ষে প্রবেশ করে বলেন আপনি কোনো ব্যবস্থা না করলে আমরা আমাদের মতো করে ব্যবস্থা নিবো। তখন ব্যবস্থাপক তাকে বের করে দেন। এসময়ে ইমাম হোসেন বলেন আমি সিদ্ধান্ত না দেওয়া পর্যন্ত তোমরা কিছু করবে না।

বাকেরগঞ্জ শাখার ব্যবস্থাপক আনিসুর রহমানের সাথে মুঠোফোনে আলাপ করলে তিনি বলেন, সামান্য একটা বিষয়ে দুই কর্মকর্তার মধ্যে একটু কথা কাটা কাটি হয়। সন্ত্রাসী কতৃক হুমকির বিষয় জানতে চাইলে তিনি বলেন, সুখী নীলগঞ্জ শাখার ব্যবস্থাপক স্থানীয় বাসিন্দা হওয়ায় কিছু লোকজন ডাকে তবে আমি তাদের তাৎক্ষণিক ভাবে বের করে দেই এবং পরবর্তীতে আমাদের উর্দ্ধতন কর্মকর্তাদের মাধ্যমে বিষয়টি সমাধান করি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক কর্মকর্তা বলেন, ব্যাংক কর্মকর্তাদের লাঞ্ছিত হুমকির ঘঠনা অনেক শোনা যায়। তবে এটাই মনেহয় প্রথম যে এক কর্মকর্তা আরেক কর্মকর্তাকে সন্ত্রাসী কর্তৃক হুমকি দিয়েছে। এটা আসলে আমাদের জন্য খুবই লজ্জা জনক একটি বিষয়।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক বরিশাল শাখার মহা ব্যবস্থাপক আব্দুল হালিমের কাছে মুঠোফোনে জানতে চাইলে তিনি বহিরাগত সন্ত্রাসী প্রবেশ ও হুমকির বিষয়টি এড়িয়ে গিয়ে বলেন, ঐ খানে ঐরকম কোনো সন্ত্রাসী আছে নাকি? যারা হুমকি দিবে? মূলত সামন্য একটা বিষয় নিয়ে তাদের দুজনের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয় পরে বিষয়টি আমরা জানতে পেরে দুই বন্ধুকে মিলিয়ে দিয়েছি।

বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক বরিশাল শাখার মূখ্য আঞ্চলিক ব্যবস্থাপক ইউসুফ আলীর কাছে মুঠোফোনে জানতে চাইলে তিনি বলেন, নগদ অর্থ প্রদানের পর এডভাইজ প্রদানে একটু দেড়ি হওয়ায় দুই জনের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। সন্ত্রাসীর বিষয় জানতে চাইলে বলেন, সন্ত্রাসী বলতে বোধহয় স্থানীয় কিছু ছেলেরা বা গ্রাহক আসছিলো ব্যবস্থাপকের সাথে কথা বলে চা খেয়ে চলে গেছে। তবে বিষয়টি আমরা  পরর্বতীতে সমাধান করে দিয়েছে ।

তবে স্থানীয় সচেতন মহল ও গ্রাহকদের ধারনা, এক এলাকা থেকে এসে অন্য এলাকার স্থানীয় কর্মকর্তার অধিনে কাজ করছে বলেই এই লাঞ্ছিত ও হুমকির শিকার হয়েছে। পরবর্তীতে জানি এ ধরনের ঘটনার শিকার কাউকে না হতে হয় সে বিষয়ে উপরস্থ কর্মকর্তাদের হস্থক্ষেপ কামনা করেন গ্রাহকরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*