গোল পোস্টে প্রচণ্ড আঘাত পাওয়া কৃতি ফুটবলার আলী হোসেন এখন মনাষিক ভারসাম্যহীন! মানবিক সাহায্যের আবেদন

গোল পোস্টে প্রচণ্ড আঘাত পাওয়া কৃতি ফুটবলার আলী হোসেন এখন মনাষিক ভারসাম্যহীন! মানবিক সাহায্যের আবেদন

শাহাদাত হোসেন , রাউজানঃ একসময়ের টগবগে তরুন রাউজান স্টেশন প্রাইমারী স্কুল ও রাউজান ছালামত উল্লাহ উচ্চ বিদ্যালয়ের মেধাবী ছাত্র এবং কৃতি ফুটবলার মো: আলী হোসেন দীর্ঘদিন যাবত মানসিক ভারসাম্যহীন হয়ে দিনযাপন করছে। ভাল ফুটবল খেলোয়াড় হিসাবে ভাল সুনাম অর্জন করেছিলেন তিনি। কিন্তু বিধাতার নিষ্টুর নিয়তি সে ফুটবলেই তার জীবন থেকে কেড়েনিল স্বাভাবিক জীবন। জানা যায়, রাউজান হাই স্কুল মাঠে ফুটবল খেলার সময় গোল পোস্টের সাথে মাথায় প্রচন্ড আঘাত পেয়ে মো:আলী হোসেনের জীবনের ছন্দপতন ঘটে। সেই থেকে পরিবার শুভাকাঙ্ক্ষী,বন্ধুমহলের আন্তরিক সহযোগিতায় অনেক চিকিৎসা করানো হয়। কিন্তু উন্নত চিকিৎসার অভাবে বেশীদূর আর এগোয়নি। আর্থিক টানাপোড়েনে ধারাবাহিক সুচিকিৎসা বন্ধ হয়ে যায়। অবশেষে ডাক্তারের পরামর্শে মানসিক পরিবর্তনের জন্য পরিবার তাকে বিয়ে দেয়। বর্তমানে তার সংসারে দুটি সন্তান রয়েছে। সহায় সম্বল বলতে একটুকরো ভিটে ছাড়া কিছুই নাই। জরাজীর্ন ঘরে পরিবার নিয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছে এ পরিবারটি। আলী হোসেনের এ দূরঅবস্থার কথা বন্ধুদের কয়েকজনের নজরে আসলে তারা তাকে একটি আধাপাকা ঘর নির্মাণ করে দেওয়ার উদ্যেগ নিয়েছে। তার বন্ধু মহল এ ব্যাপারটি নিয়ে এলাকার লোকজনের সাথে আলাপ করলে সবাই সাহায্য করার সম্মতি দেয় বলে জানান তার এক বন্ধু। অপর বন্ধু মনির হোসেন জানান, সাদ ও সাধ্যের বিস্তর ঘাটতি আছে সবার ভিতর। তবে আমরাও হতাশ নই “দশের লাঠি একের বোঝা”।সকলের সম্মিলিত প্রচেস্টায় আমরা এগিয়ে যাব বন্ধুর জন্য। অপরদিকে ব্ন্ধু ছাড়াও সমাজের বৃত্তবানদের এগিয়ে আসার আহবান জানিয়েছেন অপর বন্ধু ডা: প্রবীর শীল। তিনি বলেন, অনেক সময় অনেক টাকা অপব্যয় করে থাকি আমরা। না হয় আলী হোসেনের জন্য কিছুটা সাশ্রয় করে মানবিক কাজে নিজেকে গর্বিত অংশীদার হবো। মানুষতো মানুষের জন্য। এ বাক্যে বলিয়ান হই আমরা। সমাজের বিত্তবানসহ সকলের তরে আলী হোসনের প্রতি আমাদের মানবিক ও দায়িত্ববোধ রয়েছে। একজন ভাল মানুষের জন্য তার পাশে দাঁড়ায়। তার জন্য একটুকরো মাথা গোঁজার ঠাঁই করে দিই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*