নীতির প্রশ্নে আপোষহীণ সাংবাদিক,সংগঠক ও মানবাধিকার কর্মি আবদুর রাজ্জাকের জীবন 

নীতির প্রশ্নে আপোষহীণ সাংবাদিক,সংগঠক ও মানবাধিকার কর্মি আবদুর রাজ্জাকের জীবন 

পটভূমিঃ-
সাংবাদিক,সংগঠক ও মানবাধিকার কর্মি আবদুর রাজ্জাক পর্যটন নগরী কক্সবাজার জেলার মহেশখালী পৌরসভার ৯ নং ওয়ার্ড়স্থ গোরকঘাটা চরপাড়া এলাকার মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সদস্য বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ইসলাম মঞ্জিল ও ইসলামিয়া হোিেটল এন্ড রেষ্টরেন্টের প্রোপাইটর বিশিষ্ট ব্যবসায়ী আলহাজ্ব সিরাজুল ইসলাম সওদাগর ও মৃত-নাজমা খাতুনের বড় ছেলে এবং মুক্তিযোদ্ধা ও জেলার প্রবীণ রাজনীতিবিদ মহেশখালী উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সফল সভাপতি ও র্বতমান জেলা আওয়ামীলীগের উপদেষ্টা ডা,নুরুল আমিনের আপন ভাতিজা। তিনি ১৯৭৪ সালের ২১ শে জুন মহেশখালী পৌরসভার নিজ বাড়ি ইসলাম মঞ্জিলে জন্ম গ্রহণ করেন।
শিক্ষাগত যোগ্যতাঃ-
সাংবাদিক,সংগঠক ও মানবাধিকার কর্মি আবদুর রাজ্জাক শিক্ষাগত জীবনে তিনি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের গন্ডি পেরিয়ে বিগত ১৯৯০ সালের মে মাসে মহেশখালী আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় থেকে দ্বীতৃয় বিভাগে এস.এস.সি ও ১৯৯২ সালের জুন মাসে মহেশখালী ডিগ্রী কলেজ থেকে দ্বীতৃয় বিভাগে কৃতিত্বের সাথে এইচ.এস.সি পাশ করে ১৯৯৬ সালে চটগ্রামস্থ কুয়াশ বুড়িশ্বর শেখ মো: কলেজ থেকে বি.এ পরীক্ষায় সফলতার সাথে অংশ গ্রহণ করে একটি পরীক্ষা দেওয়ার পর শারীরিকভাবে ভীষন অসুস্থতার কারণে বাকি পরীক্ষা গুলি দেওয়া তার পক্ষে সম্ভব না হওয়ায় সুস্থ হওয়ার পর তিনি তার শিক্ষাগত জীবণের ইতি টানেন। তিনি স্কুল জীবণ পেরিয়ে কলেজ জীবণ থেকে ছাত্র রাজনীতি,সাংস্কৃতিক আন্দোলন ও মহান সাংবাদিতা পেশার সাথে জড়িয়ে পড়েন।
মহান সাংবাদিকতা পেশার শুভসূচনা ও অভিজ্ঞতাঃ-
নীতির প্রশ্নে আপোষহীণ জেলার প্রবীণ সাংবাদিক আবদুর রাজ্জাক বিগত ১৯৯৪ সালে কক্সবাজার জেলার সর্ব প্রথম স্থানীয় দৈনিক সৈকত পত্রিকায় মহেশখালী উপজেলা প্রতিনিধি হিসেবে দায়িত্ব পালনের মধ্য দিয়েই মুলত তার সাংবাদিকতা জীবনের হাতেকড়ি।বলতে গেলে সাংবাদিক আবদুর রাজ্জাক ১৯৯৪ সালে থেকেই সাংবাদিকতা জীবণ শুরু করে নীতির প্রশ্নে আপোষহীণ থেকে সততার সহিত বস্তুনিষ্ঠ ও তথ্যসমৃদ্ধ সংবাদ প্রকাশের মধ্য দিয়েই দেশ ও জাতির কল্যাণে নিজেকে মহান সাংবাদিকতা পেশায় উৎর্সগ করেন। তিনি বিগত ১৯৯৫ সালে জাতীয় সাপ্তাহিক ম্যাগাজিন অপরাধচিত্র ও চিত্রবাংলা,১৯৯৭ সালে দৈনিক বাংলাবাজার পত্রিকা,১৯৯৮ সালের ১ লা ডিসেম্বর দৈনিক মানবজমিন পত্রিকা,২০১০ সালের ১লা জুলাই থেকে ২০১৮ সালের আগষ্ট র্পযন্ত চট্টগ্রামের বহল প্রচারিত দৈনিক র্পুবকোণ পত্রিকাসহ স্থানীয় দৈনিক আপনকণ্ঠ,দৈনিক দৈনন্দিন,দৈনিক রুপসীগ্রাম,দৈনিক ইনানী,দৈনিক আজকের কক্সবাজার পত্রিকায় মহেশখালী উপজেলা প্রতিনিধি সফলতার সহিত মহেশখালী ্উপজেলা প্রতিনিধির দায়িত্ব পালন করেন এবং ২০১০ সালের ১লা জুলাই থেকে অদ্যবধি জাতীয় দৈনিক জনকণ্ঠ প্রত্রিকায় নিজস্ব সংবাদদাতা,মহেশখালী উপজেলা (বৈতনিক) হিসেবে কর্মরত আছেন। তিনি বিগত ২০১৫ সাল থেকে অদ্যবদি জেলার স্থানীয় দৈনিক পত্রিকা সিনিয়র ষ্টাফ রির্পোটার র্বাতা সম্পাদক ও বিভিন্ন জাতীয় অনলাইন নিউজ র্পোটালে কক্সবাজার জেলা প্রতিনিধি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। গত ০১লা নভেম্বর ২০১৬ সাল থেকে ০১লা নভেম্বর ২০১৭ সাল পর্যন্ত স্থানীয় পত্রিকা দৈনিক কক্সবাজার বাণীতে সিনিয়র ষ্টাফ রির্পোটারের দায়িত্ব পালন করেন। বিগত ২০১৮ সালের ০১ লা জুলাই থেকে ২০ আগষ্ট পর্যন্ত স্থানীয় পত্রিকা দৈনিক গণসংযোগের র্বাতা সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন।
যে সব সম্মাননা পেলেনঃ-
সাংবাদিক,সংগঠক ও মানবাধিকার কর্মি হিসবে দেশ ও জাতির কল্যাণে মহান সাংবাদিকতা পেশায় নীতির প্রশ্নে আপোষহীণ থেকে সততার সহিত বস্তুনিষ্ঠ ও তথ্যসমৃদ্ধ সংবাদ প্রকাশ করায় সাংবাদিক আবদুর রাজ্জাক যে সব প্রতিষ্টান ও সংস্থা থেকে সম্মানণা পেলঃ-
বিগত ১৪ জানুয়ারী ১০১৮ ইংরেজী তারিখ কক্সবাজার ইলেকট্রনিক মিডিয়া র্জানালিষ্ট এসোসিয়েশন ও কেআইএমটি কর্তৃক হোটেল বেস্ট ওয়েসর্টাম প্লাস,কলাতলী ডলফিন সত্ত্বর মোড়,কক্সবাজার হলরুমে আয়োজিত সাংবাদিকতা প্রশিক্ষণ কর্মসুচিতে অংশগ্রহণ করে সফলতার সহিত সম্পন্œ করায় সার্টিফিকেট ও প্রশিক্ষণের সনদ প্রদান করেন,কেআইএমটি’র চেয়ারম্যান ড,মোঃআশ্রাফুল ইসলাম সজিব, ইন্টারন্যাশনাল কনসালটেন্ট অন এর্নাজি এন্ড ইনভআইসমেন্টের পরিচালক ইনজিনিয়ার খোন্দকার সালেক শফি ও কক্সবাজার ইলেকট্রনিক মিডিয়া র্জানালিষ্ট এসোসিয়েশনের চেয়ারম্যান মোঃ নজিবুল ইসলাম। গত ০৩ এপ্রিল ২০১৮ ইংরেজী ঢাকা,পল্টন মোড়স্থ,ফেনী সমিতির হলরুমে ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ পাবলিসিটি কাউন্সিল” কর্তৃক আয়োজিত মহান স্বাধীনতা দিবস ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে ‘বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ ” র্শীষক আলোচনা সভায় সাংবাদিক,সংগঠক ও মানবাধিকার কর্মি হিসবে দেশ ও জাতির কল্যাণে নীতির প্রশ্নে আপোষহীণ থেকে সততার সহিত বস্তুনিষ্ঠ ও তথ্যসমৃদ্ধ সংবাদ প্রকাশ করে সাংবাদিকতা পেশায় বিশেষ অবদান রাখায় সাংবাদিক আবদুর রাজ্জাককে “স্বাধীনতা স্মারক সম্মনানা” প্রদান করেন বাংলাদেশ প্রেস ক্উান্সিলের চেয়ারম্যান বিচারপতি মোঃ মমতাজ উদ্দিন আহমদ ও বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের কেন্দ্রীয় র্কাযনির্বাহী কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক মোহাম্মদ বদিউল আলম ।
গত ২৪ মে ২০১৮ ইংরেজী চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবস্থ ইনজিনিয়ার আবদুল খালেক মিলনায়তনে চট্টগ্রাম অনলাইন প্রেসক্লাব কর্তৃক আয়োজিত “মাহে রমজানের তাৎর্পয র্শীষক আলোচনা সভা,কৃত্বি শিক্ষার্থী ও বিশিষ্ট ব্যক্তিদের সংর্বধণা অনুষ্টান-২০১৮” তে র্দীঘ ২৪ বছর যাবত সাংবাদিকতা পেশায় বিশেষ অবদান রাখার জন্য সাংবাদিক আবদুর রাজ্জাককে সম্মননা প্রদান করেন,চ্ট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চেীধূর,িচট্টগ্রাম সিটি কর্রপোরেশনের প্যানেল মেয়র চেীধূরী হাসান মাহমুদ হাসনি,চ্ট্গ্রাম অনলঅইন প্রেসক্লাবের সভাপতি অধ্যক্ষ মুকতাদের আযাদ খান ও সিটিজি পোস্ট ডট কমের সম্পাদক স,ম জিয়াউর রহমান।
গত ০৩ নভেম্বর ২০১৮ ইংরেজী তারিখ ঢাকা,তেজগাও বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ মিলনায়তনে নির্বাচন কমিশনের আওতাভুক্ত ইলেকশন অবজার ক্উান্সিল(ইওসি) কর্তৃক একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জেলা পর্যায়ে নিবাচন পর্যবেক্ষক প্রশিক্ষণ কর্মসুুচি-২০১৮ ইং ,তে অংশ গ্রহণ করে সফলতার সহিত সম্পন্ন করায় সার্টিফিকেট ও প্রশিক্ষণের সনদ প্রদান করেন ইলেকশন অবজার ক্উান্সিলের চেয়ারম্যান।
গত ২৪ নভেম্বও ২০১৮ ইংরেজী জাতীয় শিশু একাডেমিতে নির্বাচন কমিশনের আওতাভুক্ত ইলেকশন অবজার ক্উান্সিল(ইওসি) কর্তৃক একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জেলা পর্যায়ে নিবাচন পর্যবেক্ষক প্রশিক্ষণ কর্মসুুচিতে অংশ গ্রহণ করে সফলতার সহিত সম্পন্ন করায় সার্টিফিকেট,প্রশিক্ষণের সনদ ও মেডেল প্রদান করেন আর্ন্তজাতিক মাবাধিকার সংস্থা আইন সহায়তা কেন্দ্র(আসক)ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক মোঃ সামসল হক ও প্রশিক্ষক রকিব আল মাহমুদ।
মানহানিসহ বিভিন্ন মিথ্যা মামলার শিকারঃ-
সাংবাদিক আবদুর রাজ্জাক দেশ ও জাতির কল্যাণে মহান সাংবাদিকতা পেশায় নীতির প্রশ্নে আপোষহীণ থেকে সততার সহিত বস্তুনিষ্ঠ ও তথ্যসমৃদ্ধ সংবাদ প্রকাশ করায় বিভন্ন সময় মানহানি মামলাসহ বিভিন্ন মিথ্যা মামলার শিকার হয়ে কারাভাগ করেন। সর্ব প্রথম তিনি মানহানি মামলার শিকার হন বিগত ১৯৯৬ সালের ২৬ শে মে। ১৯৯৬ সালের ২০ শে মে সাপ্তাহিক অপরাধচিত্র ম্যাগাজিনে “মহেশখালীতে দুই চেয়ারম্যানের দন্ডে জোড়া খুন” র্শীষক সংবাদ প্রকাশিত হওয়ার পর তৎকালিন বড় মহেশখালী ইউনিয়ন পরিষদের সফল চেয়ারম্যান ও বর্তমান মহেশখালী উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদের সদস্য আলহাজ্ব আনোয়ার পাশা চৌং বিগত ১৯৯৬ সালের ২৬ শে মে মহেশখালী চীফ জুড়িশিয়াল আদালতে সর্ব প্রথম মানহানি মামলা দায়ের করেন।এর পর গত ২০১০ সালের ৭ নভেম্বর দৈনিক রুপসী গ্রাম পত্রিকায়“মহেশখালী লিডারশীপ ইউনিভার্সিটি কলেজে প্রশাসনিক নজরদারী প্রয়োজন #অধ্যক্ষ ও চেয়ারম্যান সরাসরি জামায়াত রাজনীতির সাথে জড়িত#অফিস কক্ষে টাঙ্গানো হয়নি জাতির জনক ও সরকার প্রধানের ছবি#একক ব্যক্তির মর্জিমাফিক চলে প্রতিষ্টিানটি” র্শীষক সংবাদ প্রকাশিত হওয়ার পর লিডারশীপ ইউনিভার্সিটি কলেজ কর্তৃপক্ষ বিগত ২০১১ সালের ১০ জানুয়ারী মহেশখালী চীফ জুড়িশিয়াল আদালতে ২য় মানহানি মামলা দায়ের করেন । এর পর ২০১১ সালে ১০ সেপ্টেম্বর দৈনিক ইনানী ও দৈনিক পূর্বকোণ পত্রিকায় “ডিলারদের বিরুদ্ধে সার পাচারের অভিযোগ, মহেশখালীতে সারের জন্য কৃষকের হাহাকার” র্শীষক সংবাদ প্রকাশিত হওয়ার পর অভিযুক্ত ডিলার ছোট মহেশখালী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে পরাজিত চেয়ারম্যান প্রার্থী ও চট্রগ্রাম আদালতের আইনজীবি জামায়াত নেতা এড.কবির হোছাইন গত ২০১১ সালের ১৫ সেপ্টেম্বর চট্রগ্রাম আদালতে ৩য় মানহানী দায়ের করেন। এর পর সর্বশেষ গত ২০১১ সালের ১৯ অক্টোবর দৈনিক র্পূবকোণ ও দৈনিক ইনানী পত্রিকায় “সিন্ডিকেটের কবলে মহেশখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স” ও ২৫ শে অক্টোবর “মহেশখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে একটি চক্রের হাতে জিম্মি রোগীরা” র্শীষক সংবাদ প্রকাশিত হওয়ার পর হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ গত ২০১১ সালের ৩১ অক্টোবর মহেশখালী চীফ জুড়িশিয়াল আদালতে ৪র্থ মানহানি মামলা দায়ের করেন।্ সাংবাদিক আবদুর রাজ্জাক বিজ্ঞ আদালতে প্রকাশিত প্রতিটি সংবাদের বিপরীতে সঠিক তথ্য প্রমাণ ও প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট উপাস্থাপন করলে বিজ্ঞ বিচারক তা যাচাই বাচাই করার পর সাংবাদিক আবদুর রাজ্জাককে নির্দোষ প্রমাণিত করে তিনটি মামলা থেকে অব্যহতি প্রদান করেন।অপরদিকে মহেশখালী উপজেলার ছোট মহেশখালী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে পরাজিত চেয়ারম্যান প্রার্থী ও চট্রগ্রাম আদালতের আইনজীবি জামায়াত নেতা এড.কবির হোছাইন বাদী হয়ে চট্রগ্রাম জজ আদালতে সর্বশেষ মানহানী মামলাটি দায়ের করলে আদালতের বিজ্ঞ বিচারক উক্ত মামলাটি তদন্তের জন্য চট্রগ্রামের সহকারী পুলিশ কমিশনার মনজুর মোরশেদকে নির্দেশ প্রদান করলে সহকারী পুলিশ কমিশনার তদন্তে সার পাচারে মামলার বাদি জামায়াত নেতা এড.কবির হোছাইনের সম্পৃক্ত থাকার প্রমান পাওয়ায় উক্ত মানহানী মামলাটি প্রত্যাহারের জন্য আদালতের কাছে আবেদন জানান। পরে চট্রগ্রাম জজ আদালতের বিজ্ঞ বিচারক উক্ত মানহানী মামলা থেকে সাংবাদিক আবদুর রাজ্জাককে অব্যহতি প্রদানের নির্দেশ প্রদান করেন। র্বতমানে সাংবাদিক আবদুর রাজ্জাক জাতীয় দৈনিক জনকণ্ঠের নিজস্ব সংবাদদাতা,(বৈতনিক)মহেশখালী উপজেলা,চট্টগ্রামের বহুল প্রচারিত জনপ্রিয় অনলাইন নিউজ র্পোটাল সিটিজি পোস্ট ডট কমের বিশেষ প্রতিনিধি,জাতীয় অনলাইন নিউজ র্পোটাল নিউজ ভিশন বিডি ডট কমের কক্সবাজার জেলা প্রতিনিধি ও আর্ন্তজাতিক মানবাধিকার সংগঠন আইন সহায়তা কেন্দ্র (আসক ফাউন্ডেশন) কেন্দ্রীয় কমিটির ডি.এম এন্ড পরিচালকের দায়িত্ব পালন করছেন।তিনি জাতীয় অনলাইন প্রেসক্লাবের কেন্দ্রীয় কমিটি,চট্টগ্রাম অনলাইন প্রেসক্লাব ও মহেশখালী প্রেসক্লাবের উপদেষ্ঠা ও আজীবণ সদস্য।
রাজনৈতিক পরিচিতিঃ-
সাংবাদিক আবদুর রাজ্জাক কলেজ জীবনে বিগত ১৯৯১ সাল থেকে ১৯৯২ সাল পর্যন্ত ২ বছর মুুক্তিযোদ্ধার স্ব-পক্ষের দল বর্তমান ক্ষমতাসীন আওয়ামীলীগ সরকারের অংগ সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ মহেশখালী কলেজ শাখার সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। তিনি বিগত ২০১৭ সাল থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত বাংলাদেশ মুুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম লীগ কক্সবাজার জেলা শাখার সিনিয়র সহ-সভাপতি ও পরে সভাপতি (ভারপ্রাপ্ত)’র দায়িত্ব পালন করেছেন। র্বতমানে সাংবাদিক আবদুর রাজ্জাক বাংলাদেশ মুুক্তিযোদ্ধা প্রজিন্ম পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির সিনিয়র সহ-সভাপতি ও উপকুলীয় উন্নয়ন ফাউন্ডেশনের মহেশখালী উপজেলা শাখার সাধারন সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*