প্রাচীন ঐতিহ্য কাঠের খরম-পাদুকা এখন অার চোখে পড়ে না

প্রাচীন ঐতিহ্য কাঠের খরম-পাদুকা এখন অার চোখে পড়ে না

সাকিব অাল হেলাল।। সারা দেশে প্রাচীন আমলে খরম -পাদুকা হিসাবে ব্যবহার হতো। সম্ভ্রান্ত পরিবারের একমাত্র পছন্দনীয় পাদুকা ছিল কাঠের তৈরি খরম।খরম বিশেষ ভাবে তৈরী হতো কাঠ দিয়ে।উপড়ে একটি কাঠের বল্টু থাকত।যাতে আঙ্গুল আটকে দিয়ে হাটতে সুবিধা হত।পরবর্তীতে খরমের ব্যবহার আরো একটু সহজ করার জন্য একটি বেল্ট লাগানো হয়।সাধারন ও শ্রমজীবি মানুষ খরম ব্যবহার করতো না।তারা এক প্রকার পেলাষ্টিকের নাগড়া সাদৃশ্য জুতা ব্যবহার করত। তবে বেশীর ভাগ মানুষ খালি পায়ে থাকত।এ বিষয়ে নতুন প্রজন্মের অনেকের অজানা ও ইতিহাস হয়ে থাকলেও এমনই কথা জানা যায় কুমিল্লার বরুড়া উপজেলার বগাবাড়িয়া গ্রামের প্রায় ৮০ উর্দ্ধে বয়সের অাব্দুল মতিন কবিরাজের কাছ থেকে।কালের আবর্তে দিনে দিনে পণ্যটি বর্তমানে সম্পুর্ন বিলুপ্ত।এখন শুধুই ইতিহাস। যেটা দেশের অনেক জাদুঘর কিংবা কোন প্রদর্শনীর জন্য রাখা অাছে। তিনি অারো বলেন,খরমের প্রচলন প্রায় ৫০ -৬০ বছর পূর্বে উঠে গেছে।কালের আবর্তে যান্ত্রিক জীবনে ডিজিটাল যুগের ছোঁয়ায় প্রচলিত ও আরামপ্রদ বিভিন্ন প্রকারের পাদুকা খরমকে ইতিহাসের বুকে আশ্রয় দিয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*