মহাকবি নবীন চন্দ্র সেন ছিলেন সাহিত্য জগতের উজ্জ্বল ধ্রুবতারা

মহাকবি নবীন চন্দ্র সেনের ১৭২তম জন্মদিনের অনুষ্ঠানে বক্তারা
মহাকবি নবীন চন্দ্র সেন ছিলেন সাহিত্য জগতের উজ্জ্বল ধ্রুবতারা

বাবর মুনাফ : সৃষ্টিকর্ম ও সৃজনশীল কাজের মধ্য দিয়ে মানুষ বেঁচে থাকে যুগ যুগান্তর ধরে। সৃষ্টি আর কর্মকে বন্দনা করে স্মরণীয় ও বরণীয় হয়ে আসছে কীর্তিমান মানুষেরা। একজন সৃষ্টিশীল ও সৃজনশীল কীর্তিমান মানুষ যুগে যুগে স্মরণীয় হয়ে রয় এবং ইতিহাসের পাতায় স্থান করে নেয় আপন আলোয়। মহাকবি নবীন চন্দ্র সেনের অমর কীর্তিগাথা ও সৃষ্টিশীল অবিনাশী কর্ম প্রজন্ম থেকে প্রজন্ম আজীবন অনুপ্রেরণা যোগাবে। স্মৃতির পাতা উল্টালে হাজার বছর আগের মানুষটিও একসময় নতুন প্রজন্মের কাছে হয়ে ওঠে অনুপম অনুকরণীয় আদর্শ। বাঙলা সাহিত্য ও সংস্কৃতির জগতের কীর্তিমান মহাকবি নবীন চন্দ্র সেন ছিলেন উজ্জ্বল ধ্রুবতারা। মহাকবি নবীন চন্দ্র সেনের ১৭২তম জন্মদিনের স্মরণ অনুষ্ঠানে বক্তারা এসব কথা বলেন।

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের অনুমোদিত বঙ্গবন্ধুর আদর্শে নিবেদিত জাতীয় সাংস্কৃতিক সংগঠন বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট চট্টগ্রাম বিভাগীয় শাখা ও ওস্তাদ মোহন লাল দাশ স্মৃতি সংসদের যৌথ উদ্যোগে আজ ১১ ফেব্রুয়ারী বিকাল ৫ টায় সংগঠনের মোমিন রোডস্থ কার্যালয়ে চট্টগ্রামের বরেণ্য সন্তান মহাকবি নবীন চন্দ্র সেনের ১৭২তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে স্মরণ অনুষ্ঠান সংগঠনের সহ সাংগঠনিক সম্পাদক ও বিশিষ্ট নারী নেত্রী মাসুমা কামালের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন ওস্তাদ মোহন লাল দাশ স্মৃতি সংসদের সভাপতি সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব স্বপন কুমার দাশ। সভায় প্রধান অতিথি’র বক্তব্যে ওস্তাদ স্বপন কুমার দাশ বলেন, মহাকবি নবীন চন্দ্র সেন বাঙালির গৌরব ও কালের কীর্তিমান মহামানব। তাঁর অনুপম সৃষ্টিকর্ম ও সাহিত্যমালা জাতিকে যেমনি সমৃদ্ধ করেছে তেমনি বাঙালিকেও করেছে বিশ্বসাহিত্য এবং সংস্কৃতিতে মহিমান্বিত। বাঙালি জাতি যতদিন বাংলা ভাষাকে চর্চা করবে ও বাংলায় কথা বলবে ততদিন মহাকবি নবীন চন্দ্র সেনকে শ্রদ্ধায় স্মরণ করবে। সভায় বক্তারা আরো বলেন, মহাকবি নবীন চন্দ্র সেন বাঙালির গৌরবময় ব্যক্তিত্ব হলেও অবহেলায়, অযতেœ হারিয়ে যাচ্ছে তার গ্রামের বাড়ি, স্মৃতি মন্দির ও সাহিত্য ভা-ার। বক্তারা সরকারি উদ্যোগে মহাকবি নবীন চন্দ্র সেনের সাহিত্য ভা-ারের পুনঃ মুদ্রণ পূর্বক সংরক্ষণ এবং তরুণ প্রজন্মের কাছে পৌঁছে দেওয়ার দাবী জানান। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন বঙ্গবন্ধু শিল্পী গোষ্ঠী চট্টগ্রামের সাধারণ সম্পাদক গীতিকার মোহাম্মদ লিপটন, দৈনিক ৭১ বাংলাদেশ এর সম্পাদক শেখ মো: সেলিম, সিটিজি পোস্ট ডটকমের বিশেষ প্রতিনিধি আব্দুর রাজ্জাক।
সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক স ম জিয়াউর রহমানের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন বীর মুক্তিযোদ্ধা এস.এম. লিয়াকত হোসেন, ডা: মো: জামাল উদ্দিন, প্রকৌশলী টি. কে. সিকদার, রাজনীতিবিদ স্বপন সেন, সংগঠক সুভাষ চৌধুরী টাংকু, অধ্যাপক সৈয়দ মিসবাহ উদ্দিন, কাজী সাইফুল ইসলাম, বীর মুক্তিযোদ্ধা রাখাল চন্দ্র ঘোষ, মো: কুতুব উদ্দিন রাজু, বাবর মুনাফ, মো: গোলাম রহমান, মো: শেখ সারুফ প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*