কক্সবাজার-টেকনাফ সড়কের সম্প্রসারণ শুরু

কক্সবাজার-টেকনাফ সড়কের সম্প্রসারণ শুরু :পরিদর্শনে এডিবির ভাইস প্রেসিডেন্ট

শ.ম.গফুর,উখিয়া,কক্সবাজার: নানা কষ্ট আর দুর্ভোগের অবসান হতে যাচ্ছে কক্সবাজার-টেকনাফ আরাকান সড়কের। ইতিমধ্যেই সম্প্রসারণ কাজ শুরু হয়েছে।২ শত ৭৬ কোটি টাকা ব্যয়ে এ মেগা প্রকল্পটি অর্থায়ন করছেন এশিয়ান ডেপলামেন্ট ব্যাংক (এডিবি)। বৃহস্পতিবার শুরু হওয়া উখিয়ায় চলমান উন্নয়ন কাজ পরিদর্শনে আসেন এডিবি’র ভাইস প্রেসিডেন্ট মি: স্যাকসিন সেন।

কক্সবাজার সড়ক ও জনপদ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী পিন্টু চাকমা জানান, দু’টি প্যাকেজে কক্সবাজার-টেকনাফ সড়কের ৫০ কিলোমিটার রাস্তার সম্প্রসারণ কাজ শুরু করা হয়েছে। কক্সবাজারস্থ লিংক রোড হতে উখিয়ার ফায়ার সার্ভিস ষ্টেশন পর্যন্ত ২৫ কিলোমিটার প্রথম প্যাকেজে ১ শত ২২ কোটি টাকা এবং উখিয়ার ফায়ার সার্ভিস হতে টেকনাফের উনচি প্রাং পর্যন্ত ২৫ কিলোমিটার ১ শত ৫৪ কোটি টাকা।
তিনি আরও বলেন, রাস্তার দু’পাশে ৩ ফুট করে ৬ ফুট নতুন করে সম্প্রসারণ করা হবে। এছাড়াও যানজট নিরসনে কোর্টবাজার, মরিচ্যা, উখিয়া সদর, কুতুপালং, বালুখালী, থাইংখালী, পালংখালী সহ সড়কের গুরুত্বপূর্ন ষ্টেশন গুলোকে প্রায় ৪৫ ফুট বৃদ্ধি করা হবে।
এডিবি’র ভাইস প্রেসিডেন্ট মি: স্যাকসিন সেন এর নেতৃত্বে পরির্দশনের আসা উচ্চ পর্যায়ের টিমের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, এডিবি’র বাংলাদেশস্থ কান্ট্রি ডাইরেক্টর মি: মংমং প্রকাশ, সড়ক ও জনপদ অধিদপ্তরের অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী সোয়েব আহমদ, কক্সবাজার সড়ক ও জনপদ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী পিন্টু চাকমা, সুপারেন্টেন প্রকৌশলী, উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী মুজিবুর রহমান সহ এডিবি’র উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তাগন। পরির্দশনে আসা এডিবি’র ভাইস প্রেসিডেন্ট মি: স্যাকসিন সেন উখিয়ার রাজাপালং মাদ্রাসা সংলগ্ন কাজের সাইট ম্যাপ পরির্দশন করেন।

কক্সবাজার সড়ক ও জনপদ বিভাগ সূত্রে জানা যায়, লিংক রোড থেকে উখিয়া ফায়ার সার্ভিস ষ্টেশন পর্যন্ত প্রথম প্যাকেজের ২৫ কিলোমিটার সড়কের কাজ বাস্তাবায়ন করছেন টিকাদারী প্রতিষ্টান টিসিসিএল এন্ড মের্সাস জামিল ইকবাল লি: এবং উখিয়া ফায়ার সার্ভিস ষ্টেশন হতে টেকনাফ উনচি প্রাং পর্যন্ত দ্বিতীয় প্যাকেজের ২৫ কিলোমিটার বাস্তবায়ন করছেন তাহের ব্রাদার্স লি:, হাসান টেকনো বিন্ডার্স লি: ও সালেহ আহমদ বাবুল।

সরেজমিনে দেখা যায়, ২০১৭ সালের আগষ্ট মাসে লক্ষ লক্ষ মিয়ানমারের নাগরিক রোহিঙ্গা জনগোষ্টি পালিয়ে উখিয়া ও টেকনাফে আশ্রয় নেয়। সে থেকে তাদের মানবিক সেবায় নিয়োজিত আইএনজিও/এনজিও সংস্থার শত শত গাড়ি ও ত্রাণ কাজে ব্যবহৃত অসংখ্য ট্রাক, মিনি ট্রাক,পিক আপ মাত্রা অতিরিক্ত চলাচলের কারণে কক্সবাজার-টেকনাফ সড়ক লন্ডভন্ড হয়ে গেছে। বাঁশ, ইট, সিমেন্ট ও রোহিঙ্গাদের জন্য ত্রাণ সামগ্রী বহন করতে গিয়ে সড়কটি মারাত্মক অনুপযোগী হয়ে পড়ে। প্রতিদিন খানা খন্দকে পড়ে সড়ক দূঘর্টনায় পতিত হয়ে অন্তত ২০ জনের অধিক যাত্রী মারা গেছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, এশিয়ান ডেপলামেন্ট ব্যাংক (এডিবি) কক্সবাজার টেকনাফ সড়কটি উন্নয়ন ও সম্প্রসারণ করার জন্য এগিয়ে আসেন। বর্তমান সরকারের দেন দরবারে এডিবি ২শত ৭৬ কোটি টাকা বরাদ্দ প্রদান করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*