ফটিকছড়িতে বিজয়ের মালা পড়বেন কারা?

ফটিকছড়িতে বিজয়ের মালা পড়বেন কারা?

ফটিকছড়ি প্রতিনিধি : আগামী ১৮ মার্চ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ফটিকছড়িতে লড়ছেন ১১ প্রার্থী। চেয়ারম্যান পদে ৩ জন,মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৩ জন,ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৫ জন। চেয়ারম্যান পদে আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী ফটিকছড়ি আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক আলহাজ্ব মোহাম্মদ নাজিম উদ্দীন মুহুরী (নৌকা), স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে আওয়ামীলীগ নেতা এইচ এম আবু তৈয়ব (আনারস), ফটিকছড়ি জাতীয় পার্টি সভাপতি মুহাম্মদ আবছার উদ্দীন (লাঙ্গল), ভাইস চেয়ারম্যান পদে সাংবাদিক বিশ্বজিৎ রাহা (টিউবওয়েল), ইসমাঈল মজুমদার(উড়োজাহাজ),মাষ্টার রতন কান্তি চৌধুরী (চশমা),এডভোকেট মুহাম্মদ ছালামত উল্লাহ চৌধুরী (বই),সৈয়দ জাহেদ উল্লাহ কুরাইশী (তালা), মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে জেবুন নাহার মুক্তা (প্রজাপতি), রাজিয়া মাসুদ (পদ্মফুল), শারমিন আকতার নূপুর (কলসী) লড়ছেন। ১৮ মার্চ নির্বাচনকে সামনে রেখে জমে উঠেছ প্রচারনা।প্রার্থীরা নির্বাচনী প্রতীক পেয়ে অনুষ্ঠানিকভাবে নির্বাচনী প্রচার-প্রচার শুরু করেছেন।প্রতীক সম্বলিত সাদা কালো পোষ্টার,ব্যানার,ফেষ্টুনে ছেয়ে গেছে পুরো নির্বাচনী এলাকা।চলছে নানা শ্লোগানে মাইকিং।এছাড়া কর্মীসভা,পথসভা,ঘরোয়া বৈটক,গনসংযোগও চলছে। প্রার্থীরা ছুটে চলছেন নির্বাচনী এলাকার এ প্রান্ত থেকে ঐ প্রান্তে। দিচ্ছেন নির্বাচনি নানা প্রতিশ্রুতি। ইতোমধ্যে আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী মোহাম্মদ নাজিম উদ্দীন মুহুরী (নৌকা),ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী সাংবাদিক বিশ্বজিৎ রাহা (টিউবওয়েল),এডভোকেট মুহাম্মদ ছালামত উল্লাহ চৌধুরী শাহীন(বই), মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী জেবুন নাহার মুক্তা (প্রজাপতি), রাজিয়া মাসুদ (পদ্মফুল) উপজেলার বিভিন্নস্থানে ব্যপক গণসংযোগ করেছেন বলে জানান। প্রার্থীরা ভোটারদের মনযোগ আকর্ষনে দিচ্ছেন নানা প্রতিশ্রুতি। নৌকা প্রতীকের প্রার্থী আলহাজ্ব নাজিম উদ্দীন মুহুরী বলেন, বছরের প্রথম মাসের প্রথম তারিখে নতুন বই,বিনামূল্যে শিক্ষা এবং কম্পিউটার ট্রেনিং সহ সুশিক্ষায় শিক্ষিত করে একটি আলোকিত সমাজ প্রতিষ্ঠায় বর্তমান সরকার এর মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন এর বলিষ্ঠ নেতৃত্বে কাজ করছে নিরলশভাবে। তাই তিনি প্রশাসন কে গ্রাম থেকে ইউনিয়ন, ইউনিয়ন হতে উপজেলা পরিষদে শক্তিশালী অবকাঠামো তৈরী করতে দলীয় মনোনয়ন নৌকা দিয়ে পাঠিয়েছেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচনে। আমাকে আগামী ১৮ তারিখ নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে বিজয়ী করে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কে নৌকার চেয়ারম্যান উপহার দেওয়ার জন্য অনুরোধ করছি।আমি আপনাদের সম্মান অক্ষুণ্ণ রাখবো।চেয়ারম্যান নয় সেবক হিসাবে কাজ করবো এটাই অঙ্গীকার। স্বতন্ত্র প্রার্থী এইচ এম আবু তৈয়ব বলেন,প্রিয় ফটিকছড়িবাসি , আপনারা আমার জন্য দোয়া করবেন এবং মার্চের ১৮ তারিখ আমাকে আনারস মার্কায় ভোট দিবেন। আমি যেন আমার রাজনৈতিক প্রজ্ঞা দিয়ে আপনাদের জন্য কাজ করতে পারি, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সুদূরপ্রসারী উন্নয়ন কর্মকান্ডে সম্পৃক্ত থেকে আমাদের মাতৃভূমি প্রিয় বাংলাদেশের এবং আমাদের ফটিকছড়ির উন্নয়নের সকল পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করতে পারি। যতদিন বেঁচে থাকবো ততদিন আপনাদের সেবায় নিজেকে নিয়োজিত রাখবো। আমি আপনাদের সুন্দর, শান্ত,ডিজিটাল, ক্লিন এবং গ্রীণ ফটিকছড়ি উপহার দিব ইনশাআল্লাহ।শুধুমাত্র আমার উপর একবার আস্থা রাখুন,দেখুন আপনাদের জন্য কি করতে পারি। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী রাজিয়া মাসুদ বলেন,দীর্ঘদিন ধরে এলাকাবাসীর সেবায় নিয়োজীত আছি।আমার বাকি জীবন ফটিকছড়িবাসীর সেবার মধ্যে দিয়ে কাটানোর মহৎ ইচ্ছায় নির্বাচনে প্রার্থী হয়েছি। ভাইস চেয়ারম্যান পদ প্রার্থী এডভোকেট মুহাম্মদ ছালামত উল্লাহ চৌধুরী শাহীন বলেন, বর্তমান সরকার উন্নয়ন বান্ধব সরকার।সরকারের উন্নয়ন অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখতে আমি ফটিকছড়ির তৃণমূল পর্যায়ে কাজ করে যেতে আগ্রহী।সে লক্ষ্যে আমি আগামী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বই প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করছি।আমাকে এলাকাবাসী যদি নির্বাচিত করেন,এলাকার যোগাযোগ,শিক্ষা,স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা সেবার ক্ষেত্রে বিরাজমান সমস্যার সমাধান, সু শাসন,ন্যায় বিচার, এলাকার জনগণের জান মালের নিরাপত্তা বিধান সর্বোপরি আইন শৃংখলা রক্ষায় আমি নিরলস ভাবে কাজ করে যাব।এজন্য আমি এলাকাবাসীর দোয়া ও সমর্থন প্রত্যাশা করছি। প্রার্থীদের প্রতিশ্রুতি,প্রার্থীদের যোগ্যতা সবকিছু বিবেচনা পূর্বক ভোটাররা তাদের কাঙ্কিত প্রতিনিধি নির্বাচিত করবেন।এখন শুধু অপেক্ষার পালা কারা পড়তে যাচ্ছেন বিজয়ের মালা। এলাকাবাসী নির্বাচন অফিস সুত্রে জানা যায়,ফটিকছড়ি উপজেলা পরিষদ নির্বাচন হতে যাচ্ছে দ্বিতীয় ধাপে। ১৮ ফেব্রুয়ারি ছিল মনোনয়ন জমাদানের শেষ সময়,২৭ ফেব্রুয়ারী ছিল প্রত্যাহারের শেষ সময় এবং আগামী ১৮মার্চ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। মোট ৩ লাখ ৭৬ হাজার ৪শত ৮৫ জন ভোটার তাদের ভোটারিধিকার প্রয়োগ করবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*