সাতক্ষীরার দেবহাটা থানা ঘেরাও : জনতার বিক্ষোভ

সাতক্ষীরার দেবহাটা থানা ঘেরাও : জনতার বিক্ষোভ

হেলাল উদ্দীন সাতক্ষীরা জেলা প্রতিনিধি :: বিদ্রোহী চেয়ারম্যান প্রার্থীর  সমর্থকসহ  আওয়ামী লীগের সাত নেতাকর্মীকে গ্রেফতারের প্রতিবাদ জানিয়ে সাতক্ষীরার দেবহাটা থানার সামনে দিনভরবিক্ষোভ প্রদর্শন করেছে বিক্ষুব্ধ জনতা। আটক নেতাকর্মীদের নিঃশর্ত মুক্তিনা দেওয়া পর্যন্ত তারা সেখানে অবস্থান কর্মসূচি পালন করবেন বলে ঘোষনা দেন। তবে বিকাল ৩ টায় পাঁচজনকে ছেড়ে দেওয়া হলে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে যায়।
শুক্রবার ভোর থেকে শুরু হয় এই বিক্ষোভ। এতে যোগ দেন  দেবহাটা উপজেলাআওয়ামী লীগ সভাপতি নোয়াপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান মো. মুজিবুর রহমান ,সেক্রেটারি মনিরুজ্জামান মনি এবং বিদ্রোহী প্রার্থী জেলা আওয়ামী লীগের
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক অ্যাড ভোকেট গোলাম মোস্তফা ছাড়াও চারটিইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান।দেবহাটা উপজেলায় চেয়ারম্যান পদের নির্বাচনে বিদ্রোহী প্রার্থী গোলামমোস্তফা জানান,বৃহস্পতিবার গভীর রাতে দেবহাটা থানা পুলিশ তার আনারস
প্রতীকের সমর্থক পারুলিয়া ইউনিয়ন ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সেক্রেটারি রবিউলইসলাম, সখিপুর ইউনিয়ন ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি শহিদুল ইসলাম, যুবলীগসভাপতি আবু রায়হান,  মনিরুল ইসলাম , আবুল কাসেম ও রাজু আহমেদসহ ছাত্রলীগও  যুবলীগের সাত নেতাকে গ্রেফতার করে।তাদের বিরুদ্ধে কোনো ধরনের অভিযোগ কিংবা গ্রেফতারি পরোয়ানা নেই জানিয়েতিনি বলেন,একটি বিশেষ মহলের ইঙ্গিতে আইন শৃংখলার অবনতি ঘটাতে পুলিশ এইকাজ করেছে। আগামি ২৪ মার্চ অনুষ্ঠেয় নির্বাচনের মাত্র দু’দিন আগে তাদেরগ্রেফতারের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে তিনি তাদের নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করেন।প্রতিবাদ কর্মর্সূচিতে আরও অংশ নেন  কুলিয়া ইউপির ভারপ্রাপ্ত  চেয়ারম্যানআসাদুল ইসলাম, সখিপুর ইউপি চেয়ারম্যান শেখ ফারুক হোসেন রতন, দেবহাটা ইউপিচেয়ারম্যান মো. আবুবকর, পারুলিয়া ইউপি চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম, উপজেলা
যুবলীগ সভাপতি ও সম্পাদক মো. মিজানুর রহমান ও বিজয় ঘোষ, সাবেক ছাত্রলীগ
সভাপতি সাইফুল ইসলামসহ অনেকেই।
এ বিষয়ে জানতে ফোন করা হলে দেবহাটা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ( ওসি)বিপ্লব কুমার  সাহা জানান,কিছু অভিযোগের ভিত্তিতে তাদের থানায় নিয়ে আসাহয়। বিকাল ৩ টার দিকে  যাচাই বাছাই করে কোনো অভিযোগ না পাওয়ায় পাঁচজনকেউপজেলা আওয়ামী লীগ সম্পাদক মনিরুজ্জামান মনির জিম্মায় ছেড়ে  দেওয়া হয়েছে।অপর দুইজন আবু রায়হান ও রাজু আহমেদের বিরুদ্ধে আগের মামলা থাকায় তাদেরআদালতে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে।তিনি আরও জানান,এখন পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*