সুনামগঞ্জে উন্নয়নের মূলধন বোরো ধান – জেলা প্রশাসক

সুনামগঞ্জে উন্নয়নের মূলধন বোরো ধান – জেলা প্রশাসক

সারওয়ার হোসেন : জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আব্দুল আহাদ শুক্রবার দিনভর দিরাই-শাল্লায় নানা কর্মসূচিতে সময় কাটিয়েছেন। দুপুর ১২ টায় তিনি শাল্লা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে স্থানীয় কর্মকর্তাদের সাথে মতবিনিময় করেন। এরপর তিনি উপজেলা পরিষদের নতুন ভবনে ক্যান্টিন ও অফিসার ক্লাবের উদ্বোধন করেন। দুপুর ১ টায় তিনি জাতীয় ভূমি সপ্তাহ উপলক্ষে স্থানীয় লোকজনের সাথে কথা বলেন ও গণশুনানী করেন। এরপর তিনি উপজেলা সদরের পাশের ভান্ডাবিল হাওরের কৃষকদের সাথে ধান কাটেন ও ধান মাড়াই করেন। ধান কাটা ও মাড়াইকালে তিনি বলেন,‘কৃষকরাই এই দেশের অর্থনীতির মূল চালিকাশক্তি। কৃষকরাই রোদে পুড়ে, বৃষ্টিতে ভিজে সোনালী ফসল ফলান। তারাই হাড়ভাঙা পরিশ্রম করে দেশের ১৬ কোটি মানুষের খাদ্যের যোগান দেন। আর সুনামগঞ্জের উন্নয়নের মূলধন হাওরের বোরো ধান। এখানের ধান হলেই কৃষকরাই ধনি। বর্তমান সরকার কৃষি ও কৃষক বান্ধব সরকার। সুনামগঞ্জের বোরো ফসল রক্ষায় আন্তরিক। প্রতি বছরের ন্যায় এবারও ফসলরক্ষায় প্রতিটি হাওরের বাঁধ নির্মাণ করা হয়েছে। তবে ফসল কাটার পর বাঁধগুলোকে রক্ষা করতে সবার নজরদারী প্রয়োজন, তাহলেই বাঁধগুলো টেকসই হবে।’ এরপর বিকালে জেলা প্রশাসক শাল্লার বরাম হাওরের বাঁধ পরিদর্শন শেষে চোরাবস্তি হিসেবে পরিচিত নারকিলা গ্রাম পরিদর্শন করেন ও পৃথক দুইটি স্থানে গ্রামের লোকজনকে নিয়ে উঠান বৈঠক করেন। উঠান বৈঠকে তিনি নারকিলা গ্রামে একটি বাড়ী একটি খামার প্রকল্প বাস্তবায়নসহ সরকারের নানা উন্নয়ন পরিকল্পনা বাস্তবায়নের মাধ্যমে নারকিলার নেতিবাচক পেশার লোকজনকে সমাজের মূল ¯্রােতে ফিরিয়ে আনা হবে। এজন্য সমাজের সকল শ্রেণি পেশার লোকজনকে এগিয়ে আসতে হবে।’ এরপর সন্ধ্যায় তিনি দিরাইয়ের উজান ধলে প্রয়াত বাউল স¤্রাট শাহ্ আব্দুল করিমের কবর জিয়ারত করেন ও শাহ্ আব্দুল করিম সৃষ্টি যাদুঘর পরিদর্শন করেন। পরে স্থানীয় শিল্পীদের পরিবেশিত শাহ আব্দুল করিমের গান শুনেন। এর আগে দুপুরে তিনি শাল্লা উপজেলায় যাওয়ার পথে দিরাই-শাল্লার উদগল বিল হাওরের বোরো ফসলরক্ষা বাঁধ পরিদর্শন করেন ও কৃষকদের সাথে কথা বলেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন, শাল্লা উপজেলা নির্বাহী অফিসার আল মুক্তাদির হোসেন, দিরাই উপজেলা নির্বাহী অফিসার শরিফুল ইসলাম, উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) বিশ্বজিৎ দেব, সহকারি কমিশনার আসিফ আল জিনাত ও জেলা প্রশাসকের শিশু সন্তান আনাফ নাহিদ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*