বাংলা নব বর্ষ উদযাপণে নগরীতে অপসংস্কৃতির প্রতিরোধের ডাক

বর্ষ বরণে নানা আয়োজন চট্টগ্রামে
বাংলা নব বর্ষ উদযাপণে নগরীতে অপসংস্কৃতির প্রতিরোধের ডাক

হোসেন বাবলাঃচট্টগ্রামে সম্মিলিত ভাবে পহেলা বৈশাখ উদযাপনের মূল কেন্দ্র ডিসি হিল পার্ক। সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের আয়োজনে প্রতিবছর এখানে পুরনো বছরকে বিদায় ও নতুন বছরকে বরণ করার জন্য দুইদিনের অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়ে থাকে। মুক্ত মঞ্চে নানা সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের পাশাপাশি থাকে নানা গ্রামীণ পন্যের পশরা।এছাড়াও থাকে পান্তা ইলিশেরব্যবস্থা।
এ ছাড়া ২য় বৃহত্তম বৈশাখী আয়োজন সি আর বি রেলওয়ে মাঠে । বৈশাখী মেলা ও বলি খেলার আয়োজনের মধ্যে রয়েছে শিশু সংগঠন ফুলকীর তিনদিন ব্যাপী উৎসব যা শেষ হয় বৈশাখের ১ম দিবসে। নগরীর বাংলাদেশ মহিলা সমিতি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে বর্ষবরণ মেলার আয়োজন হয়ে থাকে।চট্টগ্রাম চেম্বারের বানিজ্য মেলার বৈশাখ আয়োজন হয়ে থাকে আরো জমকালো অনুষ্ঠান মালা।বন্দর-পতেঙ্গা ইপিজেডঃনগরীর দক্ষিনে এই তিনটি থানা এলাকায় পহেলা বৈশাখ উদযাপনে বিভিন্ন সংগঠন ,শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের উদ্যোগ আয়োজন হয়ে থাকে ব্যতিক্রম নানান কর্মসূচি ।

পতেঙ্গাস্থ নাজির পাড়া আইডিয়াল স্কুলে ১৪এপ্রিল রোববার  (বাংলা-১৪২৬)সকাল থেকে পিঠা পুলির উৎসব আয়োজন পতেঙ্গা বাসীকে সত্যিই বাঙ্গালীর হারিয়ে যাওয়া সংস্কৃতিকে আবারো মানুষের মাঝে চেতনা জাগাতে ব্যতিক্রম ছাত্র-ছাত্রীদের অনুপ্রেরণা দিবে।
সকালে প্রধান অতিথি থেকে উৎসবের উদ্বোধন করেন সী-বিচ দোকান মালিক সমিতির সভাপতি মাষ্টার মোঃ ওয়াহিদুল আলম, উদ্বোধক অতিথি পতেঙ্গা আইডিয়াল স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ-এস.এম দিদারুল আলম, বিশেষ অতিথি ছিলেন-সমাজ সেবী মোঃ আলী,সমাজকর্মী আব্দুল্লাহ আল মামুন,সাহিত্য ও ক্রীড়া সংগঠক-মু:বাবুল হোসেন বাবলা,প্রধান শিক্ষক ফজলুর রহমান রুবেল সহ শিক্ষক-শিক্ষীকা,অভিভাবক মন্ডলী। পরে ছাত্রী-ছাত্রীদের তৈরিকৃত বিভিন্ন রকমের পিঠা গুলো প্রদর্শনী ও স্বল্প মূল্যে বিক্রি করা হয়।
ইপিজেডস্থ দঃহালিশহর উচ্চ বিদ্যালয়ঃ বন্দরটিলাস্থঐতিহ্যবাহি দঃহালিশহর উচ্চবিদ্যালয় মাঠে পহেলা বৈশাখ উদযাপনে মেলা ও বির্তক প্রতিযোগিতার আয়োজন বসে এবং দিনব্যিাপী ব্যতিক্রম নানান কর্মসূচিতে বাংলা নববর্ষ কে বরণ করেন।
উৎসব কমিটির আহবায়ক শিক্ষক মুনিরুল আনোয়ারের সভাপতিত্বে দিনব্যাপী কর্মসূচির উদ্বোধন করেন বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি মোঃ সেলিম আফজাল। সম্মানিত অতিথি ছিলেন-ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মোঃইসমাইল হোসেন, সিনিয়র শিক্ষক মোঃ ফজল করিম,ওসমানগনি ,ইয়াকুব আলী,গোলাম মহিউদ্দিন, ইলিয়াছ আলী,শিক্ষীকা হোময়রা বেগম,পরিচালনা পর্ষদের সৈয়দ আলম ,মোঃশরীফ প্রমুখ ।বির্তক প্রতিযোগিতায় বিচারক ছিলেন-শিক্ষীকা নাজমুন নাহার,মেহেনাজ জামান,রাবেয়া খানম এবং এর সার্বিক নির্দেশনায় ছিলেন-শিক্ষীকা আকলিমা বেগম । এতে ১৮বছরের আগে মেয়েদের বিয়ে নহে এই গুরুত্বপূর্ন বিষয়ে পক্ষে দশম শ্রেনী বিজ্ঞান বিপক্ষের সম্মিলত শ্রেনীকে পরাজিত করে পুরস্কার লাভ করেন।জয়ী দলের মাহফুজা আক্তার রুনা শ্রেষ্ট বক্তা নির্বাচিত হন।
বিকেলে সমূদ্র সৈকত মাঠে সূচনা এ্যাড ক্রিয়েশন উদ্যোগে বৈশাখী বাংলা গানের আয়োজন,বন্দর কলেজ মাঠে মোগর লড়াই,বই মেলা, পান্তা ভাত ও মুড়ি-মুড়কি দেশী খাবার উৎসব, ব্যারিস্টার কলেজ রোডে পাহাড়ী সংস্কৃতি পরিষদের উদ্যোগে পাহাড়ী অনুষ্ঠান মালার আয়োজন ছিল দেখার মত বিনোদন উৎসব।

বেপজা ,শাহীন ও বিএন স্কুল মাঠঃ পহেলা বৈশাখ উদযাপনের দিন ব্যাপি মেলার আয়োজন থাকে সুন্দর ও সু-শৃংখল। যাহাতে এলাকার শতশত নর-নারী স্ব-পরিবারে বাংলার ঐতিহ্যবাহি লোকজ শিল্প ওতৈজসপত্র ক্রয় করে বাসাবাড়ীতে আনতে দেখা যাই। তবে এবারের বৈশাখ উদযাপন ছিল বেতিক্রম পতেঙ্গা সৈকত এলাকায়। সরকারের উন্নয়ন কাজেই দৃশ্যপট নতুন রূপে দেখলো এই বৈশাখীতে।

এসব আয়োজনে সবারই একই বক্তব্য বাঙ্গালী পেচা মুখোশ এবং অপসংস্কৃতি প্রতিরোতে সকল কে ঐক্য বদ্ধ ভাবে সুষ্টধারার সাংস্কৃতিক আন্দোলন গড়ে তুলার আহবান জানান

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*