রামগড় চা বাগানের কার্যকম বন্ধ; প্রতিবাদে শ্রমিকদের বিক্ষোভ, পাল্টা পাল্টি অভিযোগ

রামগড় চা বাগানের কার্যকম বন্ধ; প্রতিবাদে শ্রমিকদের বিক্ষোভ, পাল্টা পাল্টি অভিযোগ
রামগড় (খাগড়াছড়ি)প্রতিনিধি: হিল প্ল্যাটেশন লিঃ পরিচালনাধীন বৃহত্তর চট্টগ্রামে ঐতিহ্যবাহী রামগড় চা বাগানটি কতৃপক্ষ শ্রমিকদের চা উৎপাদন অবৈধভাবে বন্ধ করার প্রতিবাদে শনিবার সকাল ১০টায় বাগান এলাকায় বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ সভা করেছে বাগানের কর্মরত হাজার হাজার শ্রমিক ও তাদের পরিবার।
শ্রম অধিদপ্তর বরাবরে রামগড় চা বাগান পঞ্চায়েত কমিটির লিখিত অভিযোগে বলা হয়েছে, চট্টগ্রাম জেলার ভূজপুর থানাধীন ঐতিহ্যবাহী রামগড় চা বাগানের ৮ শতাদিক শ্রমিক ও তাদের পরিবারের স্বার্থ বিরোধী প্রকল্প বাস্তবায়ন ও বিভিন্ন দাবী নিয়ে শ্রমিকরা জড়ো হলে প্রথমে বাগান কতৃপক্ষ মৌখিক আদেশে ও ১৮ এপ্রিল নোটিশের মাধ্যমে বাগানে কর্মরত সকল শ্রমিককে কাজে যোগ দিতে নিষেধ করে বাগানের অফিসে তালা দিয়ে সকল কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণা করে। শ্রমিকরা জানান, তারা কাজে যোগ দিতে চান কিন্তু কতৃপক্ষ অফিসে তালা দিয়ে উদাও।
এদিকে বাগান কতৃপক্ষের নোটিশে বলা হয়, বর্ষা মৌসুমে ফেনী নদীর পানিতে রামগড় চা বাগানের নিন্মাঞ্চলের প্রায় ২০ শতাংশ বাগান প্লাবিত হয়ে তলিয়ে যায় এ কারণে কোম্পানি নিজ খরচে পানি নিস্কাশন ব্যবস্থা সংস্কার করিতে চাইলে শ্রমিক নেতাদের প্ররোচনায় শ্রমিকরা উৎপাদন ও সকল কাজ বন্ধ করে বেআইনভাবে ধর্মঘট শুরু করে এবং সংস্কার কাজের সরঞ্জামাধী ও কর্মকর্তার অফিস ভাংচুর করে।
এরপরও শ্রমিকদের কাজে যোগ দিতে নোটিশ করা হলেও শ্রমিকরা কাজ বন্ধ রেখে ধর্মঘট চলমান রাখায় নিরাপত্তার স্বার্থে বিকল্প উপায় না পেয়ে বাগান সম্পূর্ণরুপে বন্ধ করে দেয়।
অপরদিকে বক্তব্য শ্রমিক নেতারা বাগান কতৃপক্ষের নোটিশ মিথ্যাচার দাবী করে বলেন, বাগানের পানি নিস্কাশনে একটি লেক নির্মান করা হলেও কতৃপক্ষ লেকটিতে মৎস চাষ শুরু করে তার ধারাবাহিকতায় আরেকটি লেক তৈরীর লক্ষে বিশাল বাঁধ নির্মান শুরু করে বাঁধটি নির্মিত হলে বষা মৌষুমে তাদের শতশত বাড়িঘর পানির নিচে তলিয়ে যাবে।
তাছাড়া শতবছরের ঐতিহ্যবাহি চা বাগানে কর্মরত শ্রমিকদের বেতন বৃদ্ধির আবেদন করা হয়েও শ্রমিক প্রতি প্রতিদিন ১০২ টাকা হারে বেতন দেয়া হচ্ছে যা বর্তমানে মোটেও গ্রহনযোগ্য নয়, শ্রমিকরা তাদের অধিনে কিছু জমিতে চাষাবাদ করে যা কতৃপক্ষ মৎস প্রকল্পের আওতায় নিয়ে যেতে চায়।
এছাড়া বাগানের ৮ শতাদিক শ্রমিকের পরিবারের উন্নত চিকিৎসা ও শিক্ষায় ব্যবস্থার দবী করা হলেও বাগান কতৃপক্ষ চাননা তাদের সন্তানরা সু-শিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে দেশ ও জাতীর জন্য ভূমিকা রাখুক।
রামগড় চা বাগান পঞ্চায়েত কমিটির সাবেক সভাপতি প্রদীপ লাল এর সভাপতিত্বে বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য রাখেন, সংগঠনটির সভাপতি মদন রাজধর, সম্পাদক যতন কর্মকার, পঞ্চায়েত সেক্রেটারী বিল্পব মুন্ডা, সাবেক ভেলী সেক্রেটারী পরিমলসহ প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*