নুসরাতের মতোই চলে গেলেন দগ্ধ চট্টগ্রামের যুবতী শাহেনুরও

নুসরাতের মতোই চলে গেলেন দগ্ধ চট্টগ্রামের যুবতী শাহেনুরও
নিজস্ব প্রতিবেদক : ছাত্রী নুসরাত জাহান রাফির মতোই না ফেরার দেশে চলে গেলেন স্ত্রীর স্বীকৃতি চাইতে গিয়ে দগ্ধ শাহেনুর। নিহত শাহিনুর চট্টগামের রাউজানের নতুন হাট এলাকার সোনাগাজী গ্রামের জাফর আলমের মেয়ে।
সোমবার (২২ এপ্রিল) সকালে ঢাকা মেডিকেলে মারা চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান শাহেনুর। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে ২ জনকে আটক করা হলেও পলাতক রয়েছে অভিযুক্ত স্বামী সালাহ উদ্দিন।
পুলিশ জানায়, দেড় বছর আগে মুঠোফোনের সম্পর্কের জেরে কমলনগরের আইয়ুব নগর এলাকার সালাহ উদ্দিনের সঙ্গে চট্টগ্রামের রাউজানের মেয়ে শাহেনুরের বিয়ে হয়। গত শুক্রবার বিকেলে স্ত্রীর স্বীকৃতি পেতে ওই এলাকায় যান শাহেনুর।
এ সময় সালাহ উদ্দিনের আগের স্ত্রী ও দুই সন্তানের সামনে স্ত্রীর মর্যাদা দাবি করলে সালাহ উদ্দিনের সঙ্গে বাকবিতণ্ডা হয়। তারপরে রোববার বিকেলে ইউপি মেম্বারের কাছে গেলে বিয়ের কাগজপত্র আনতে পরামর্শ দেয়া হয়।
কিন্তু কাগজ আনতে যাওয়ার কিছুক্ষণ পরই তার শরীরে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়ার খবর পাওয়া যায়। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার কোরে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও পরে সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাকে ঢাকা মেডিকেলে পাঠানো হয়।
ঘটনা তদন্তে কাজ শুরু করেছে পুলিশ জানিয়ে লক্ষীপুর পুলিশ সুপার আ স ম মাহাতাব উদ্দিন বলেন, ‘ঘটনা যাচাই-বাছাই করে পরবর্তীতে আইনগত ব্যবস্থা আমরা নেবো।’
মৃত্যুর আগে চিকিৎসাধীন অগ্নিদগ্ধ শাহিনুর আক্তার সাংবাদিকদের জানান, তিনি তার স্বামী সালাহ উদ্দিনের কাছে আসলে স্বীকৃতি না দিয়ে উল্টো তার শরীরের কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*