পঞ্চগড়ে ইটভাটায় ব্যাপক ক্ষতি দিশেহারা কৃষক

পঞ্চগড়ে ইটভাটায় ব্যাপক ক্ষতি দিশেহারা কৃষক

মোহাম্মদ সাঈদ পঞ্চগড় থেকেঃ জেলার দেবীগঞ্জ থানার ৮নং দন্ডপাল ইউনিয়নে মৌমারী নয়ন পাড়া অবস্থিত কেএসবি ব্রিক্স ভাটা। গত তিন দিন আগে ভাটার গ্যাস ছেড়ে দিলে কালো ধোয়ায় আশপাশ এলাকার মৌসুমি ফসলের ব্যাপক ক্ষতি সাধন হয়।বিশেষ করে চায়না ,বাদাম,সহ আম লিচু ঝড়ে গেছে।প্রায় ৩০ একর জমির ধান ও বাদামে অপুরনীয় ক্ষতি হয়। আজ সকালে ইসমাইল নামের একজন কৃষক মোবাইলে খবর দিলে সেখানে দেখা যায় তার বাগানের লিচু সম্পুর্ণ ঝরে গেছে। তিনি বলেন আমি গত মৌসুমে লিচু বিক্রি করেছিলাম ৫০ হাজার টাকার। এবার খাবার লিচুও পাবোনা।সব মিলে দেখা যায় ঐ এলাকার প্রায় ৫০ জন কৃষকের ৩০ একর জমির ফসল সহ গাছের ফুল ও ফল ঝরে তো পরছেই অনেকের আবার গাছও মরে গেচে।এব্যপার উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা হুমায়ুন কাদের সরকার দিন রাত পরিশ্রম করছেন ফসল বাচাতে যাবতীয় ঔষধ সহ কলকৌশন ব্যাবহার করছেন।ভুক্তভোগী বীর মুক্তি যোদ্ধা বিশ্বনাথ রায় বলেন,গত ৩/৪ দিন হয়ে গলে আমাদে এতো বড় ক্ষতি হওয়ার পরেও ভাটার মালিক জুয়েল চৌধুরী দেখতে আসেননি খোজও নিতে আসেননি কৃষকদের জমির কি পরিমান ক্ষতি সাধিত হয়েছে। তিনি আক্ষেপের সহিত বলেন মুলত আমরা এখন এতিমের মতো বাস করছি নইলে এতো ক্ষয়ক্ষতি হওয়ার পরেও ভাটার মালিক না আসলেও সরকারের কোন উর্ধতন কর্মকর্তাও গরীব কৃষকের ক্ষতি দেখতে কেউ আসেননি।তিনি আরো বলেন,মৌমারী জুয়েল চৌধুরীর ভাটা বন্ধ করে তাকে অতিসত্তর আইনের আওতায় এনে গরীব কৃষকের ক্ষতিপুরন দেয়া হোক, না দিলে এলকার কৃষকদের পথে বসা ছাড়া তাদের আর কোন উপায় থাকবেনা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*