৬৪ জেলায় ঘুরার ব্যতিক্রমী উদ্যোগ

৬৪ জেলায় ঘুরার ব্যতিক্রমী উদ্যোগ

বিশেষ প্রতিনিধি :: সিলেটী ভ্রমণ কণ্যা রেশমা জান্নাতুল রুমা নারী বিষয়ক সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে প্রতিটি জেলায় জেলায় নারীদের সচেতনতার বার্তা পৌছে দিতে ‘৬৪টি জেলা ঘুরার ব্যাতিক্রমী উদ্যোগ’ গ্রহণ করেছেন। তিনি মঙ্গলবার (২৩ এপ্রিল) সিলেট থেকে প্রথম যাত্রা শুরু করবেন। শুরুতে তিনি চট্টগ্রাম, খাগড়াছড়ি, রাঙ্গামাটি ও বান্দরবান জেলায় ভ্রমণ করবেন। প্রতিটি জেলায় নারীদের নিয়ে পৃথক পৃথক সেমিনার করবেন। সচেতনতার বার্তার মধ্যে থাকছে বিভিন্ন ক্যান্সার, যৌন হয়রানি, বাল্য বিবাহ, মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস। আগামী ১৬ ডিসেম্বরের মধ্যে তিনি ৬৪ জেলা ঘুরার ব্যতিক্রমী এ উদ্যোগ সম্পন্ন করবেন। গতকাল সোমবার সিলেট সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী ও সাবেক মেয়র বদর উদ্দিন আহমদ কামরান তার এই উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়ে শুভ কামনা জানিয়েছেন। মেয়র আরিফ স্বাগতিক টি-শার্ট দিয়ে রেশমা জান্নাতুল রুমার এই সাহসী উদ্যোগের ভূয়শী প্রশংসা করেন। পাশাপাশি ৬৪ জেলা ভ্রমণের ব্যতিক্রর্মী উদ্যোগের সফলতা কামনা করেন। সামাজিক দায়বদ্ধতা ও মনের প্রশান্তির জন্য মানুষ কোন না কোন ভালো কাজের সাথে নিজেকে সংযুক্ত রাখে। সামাজিক দিক দিয়ে মেয়েদের কাজ করাটা অনেক কঠিন। ইতোমধ্যে সিলেটের সামাজিক প্লাটফর্মে কাজ করছে কয়েকশ তরুন-তরুনী। তাদের উদ্দ্যেশ্য সমাজকে ভালো কিছু দেওয়া। সমাজের দরিদ্র মানুষের পাশে দাঁড়ানো। সিলেটে ঠিক তেমনি ভাবে দীর্ঘ ১০ বছর ধরে কাজ করছে রেশমা জান্নাতুল রুমা নামে এক তরুনী। তার জন্ম স্থান হবিগঞ্জ জেলার মাছুলিয়া আবাসিক এলাকায়। জে.কে এন্ড এইচ.কে হাই স্কুলে এসএসপি, বৃন্দাবন সরকারি কলেজ থেকে এইচএসসি পাশ করে সিলেট ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভ্যাসিটি থেকে আইন বিভাগে স্নাতক ডিগ্রি ও স্নাতকোত্তর শেষ করেছেন। বর্তমানে সিলেট নগরীর উপশহর থাকেন। তিনি সুবিধাবঞ্চিত শিশু, দরিদ্র নারী ও রক্ত নিয়ে কাজ করেন। জয় বাংলা ইয়ূথ এ্যাওয়ার্ড প্রাপ্ত ইচ্ছা পূরণ সামাজিক সংগঠন, ফিমেল ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশন ও সদ্য অভিষেক হবিগঞ্জ ইয়ূথ সোসাইটির প্রতিষ্ঠাতা হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। তার পাশাপাশি চট্টগ্রাম লোহাগাড়ার বৃহত্তর সংগঠন আন্দর কিল্লার ব্লাড ব্যাংকের উপদেষ্টা, সিলেটের রক্তাঙ্গন সামাজিক সংগঠনের পরামর্শদাতা, সিলেট আইন সহায়তা কেন্দ্র (আসক) মহানগরের সদস্য, ম্যান রাইট্স ফাউন্ডেশন সিলেট বিভাগের মহিলা সম্পাদিকা, আন্তর্জাতিক পর্যায়ের সংগঠন ব্লু-লাক্সারি ইনভেষ্টমেন্টের এসিস্ট্যান্ট কমিউনিকেশন ম্যানেজার, ইন্টারন্যাশনাল ইয়ূথ সোসাইটির ইয়ূথ এম্বেসেডর হিসেবে কাজ করছেন। তাছাড়াও তিনি ছোটবেলা থেকেই স্কাউট, বন্ধু সভা ও রোটার‌্যাক্টিয়ের সাথে জড়িত ছিলেন। ৬৪ জেলা ঘুরার এই সাহসী উদ্যোগ সফলের জন্য তিনি সিলেটবাসীর কাছে দোয়া কামনা করেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*