রাজাকার পুত্র নব্য আওয়ামীলীগার পৌর মেয়র মকছুদকে দ্রুত গ্রেফতার পুর্বক শাস্তির আওতায় আনতে হবে

সাংবাদিক ছালামত উল্লাহ’র উপর হামলা ও মামলা প্রত্যাহারের হুমকির প্রতিবাদে মানববন্ধনে বক্তারা

রাজাকার পুত্র নব্য আওয়ামীলীগার পৌর মেয়র মকছুদকে দ্রুত গ্রেফতার পুর্বক শাস্তির আওতায় আনতে হবে
প্রেস বিজ্ঞপ্তি
বর্তমান সরকার একটি গণমুখি ও সাংবাদিক বান্ধব সরকার। সাংবাদিকদের কল্যানে গুরুত্বপূর্ণ কর্মসূচি প্রনয়ন করেছে বর্তমান সরকার। কিন্তু সরকারের প্রশাসনের ভিতরে এবং জনপ্রতিনিধির আড়ালে কিছু দুষ্টচক্র ঘাপটি মেরে থেকে সাংবাদিকদের ক্ষতি করে এবং অন্যায় ভাবে হামলা-মামলা দিয়ে সরকারের সুনাম নষ্ট করার অপচেষ্টায় লিপ্ত রয়েছে। এদেরই একজন মহেশখালী পৌরসভার কথিত মেয়র নব্য আ্ওয়ামীলীগার রাজাকার পুত্র ও ইয়াবা কারবারি মকছুদ। একজন জনপ্রতিনিধি হয়ে রাজাকার পুত্র মকছুদ মহেশখালী প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ও মহেশখালী পৌরসভার ৯ নং ওয়ার্ড়ের কাউন্সিলর ও সিটিজি পোস্ট ডট কমের মহেশখালী প্রতিনিধি সাংবাদিক মো: ছালামত উল্লাহর উপর বর্বরোচিত হামলা চালিয়ে তার হাত-পা গুড়িয়ে দিয়েছে তা একটি জঘন্য ও নেক্কারজনক ঘটনা। এই হামলা সাংবাদিক সমাজ ও সচেতন জনগোষ্টি মেনে নিতে পারে না। সাংবাদিকরা জাতির বিবেক। দেশ ও জাতির কাংখিত উন্নয়নের নিরন্তর জনবান্ধব এবং জাতির দর্পণ খ্যাত সাংবাদিক সমাজ । সাংবাদিকরা নিজেদের লেখনির মাধ্যমে জাতির সামনে তুলে ধরেন সমাজের নানা অসংগতি ও সমস্যা । দেশ,জাতি ও সরকারের সচিত্র উন্নয়ন কর্মকান্ড জনসম্মুখে তুলে ধরে জাতির বৃহত্তর দায়িত্ব পালন করছে সাংবাদিক সমাজ। অবিলম্ভে আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে হামলাকারী রাজাকার পুত্র মকছুদকে গ্রেফতার পুর্বক আইনের আওতায় আনতে হবে। মহেশখালী প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ও মহেশখালী পৌরসভার ৯ নং ওয়ার্ড়ের কাউন্সিলর মো: ছালামত উল্লাহর উপর বর্বরোচিত হামলা চালিয়ে তার হাত-পা গুড়িয়ে দেয়ার প্রতিবাদে আয়োজিত মানববন্ধনে বক্তারা এই দাবী জানান।
মহেশখালীতে পৌরসভার মেয়র ও নব্য আ্ওয়ামীলীগার রাজাকার পুত্র মকছুদের নেতৃত্বে মহেশখালী প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ও মহেশখালী পৌরসভার ৯ নং ওয়ার্ড়ের কাউন্সিলর মো: ছালামত উল্লাহর উপর বর্বরোচিত হামলা চালিয়ে তার হাত-পা গুড়িয়ে দেয়ার প্রতিবাদে গত ৩ মে বিকাল ৪ টায় চট্টগ্রামের মোমিন রোড়স্থ চেরাগী চত্ত্বরে বঙ্গবন্ধু সাংবাদিক পরিষদ ও সিটিজি পোস্ট পরিবারের উদ্যোগে হামলাকারী নব্য আ্ওয়ামীলীগার ও রাজাকার পুত্র মকছুদের গ্রেফতার পূর্বক শাস্তির দাবীতে এবং আহত সাংবাদিক এম,সালামত উল্লাহর সু-চিকিৎসা নিশ্চিত করনের লক্ষে প্রতিবাদ সভা ও মানববন্ধন বঙ্গবন্ধু সাংবাদিক পরিষদের প্রতিষ্টাতা আহ্বায়ক সাংবাদিক স.ম.জিয়াউর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্টিত হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন,সিটিজি পোস্ট ডট কমের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডা: জামাল উদ্দিন,দৈনিক দেশবার্তার সম্পাদক লায়ন আবু ছালেহ,আবদুর রাজ্জাক, রাজীব চক্রবর্তী, ইসমাইল হোসেন,মোহাম্মদ নাসির উদ্দিন, শাহাদাত হোসেন সাজ্জাদ, আনসারুল করিম হান্নান, নূর মোহাম্মদ সিকদার, নুরুল হক সিকদার, ইঞ্জিনিয়ার হাফিজুর রহমান, মহরম আলী সুজন, মাসুমা কামাল আঁখি, ফাহমিদা আক্তার পুষ্পা, রোজিনা আক্তার, জসিম মোল্লা, জুবায়ের বিন জিহাদী,সংগঠক শিমুল দত্ত, রতন ভট্টাচার্য্য,শ্রমিক নেতা মো: আবু তালেব,মো:বেলাল উদ্দিন, সাংবাদিক মো:সেলিম উদ্দিন, মো:রাজু চৌধুরী, হামিদা আক্তার, ফাহমিদা আক্তার পুষ্পা, মো: কামাল হোসেন, কবি মো: সোহেল প্রমুখ।
সভায় বক্তারা আরো বলেন,অবিলম্বে হামলাকারী রাজাকার পুত্র মকছুদকে গ্রেফতার করতে হবে। স্বাধীন বাংলাদেশে একজন রাজাকার পুত্রের এতবড় দু:সাহসী হামলা জাতি কখনো মেনে নিতে পারে না। সভায় বক্তারা বলেন,সাংবাদিক বান্ধব সরকারের আমলে সাংবাদিকের উপর হামলা চালিয়ে রাজাকার পুত্র মকছুদ দু:সাহস দেখিয়েছে। অবিলম্বে হামলাকারীকে গ্রেফতার করতে হবে এবং সাংবাদিক সালামত উল্লাহর সু-চিকিৎসার ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে হবে।
উল্লেখ্য,২ এপ্রিল মঙ্গলবার রাত আনুমানিক নয় টায় মহেশখালী উপজেলার দীঘির উত্তর পাড়ের ননগেজেট কর্মচারী ক্লাবের সামনে থেকে মেয়র মকছুদ ও তার দলীয় লোকজন একটি সিএনজি গাড়ীতে তুলে দ্রুত স্থান ত্যাগ করে পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ড়ের দক্ষিন হিন্দুপাড়ার চরপাড়া সড়কের তপুজ্জাইলার বাড়ীর পাশে নিয়ে গিয়ে তাকে এলোপাতাড়ি রড়,হাতুডি, ইলেকট্রিক্স তার ও লাঠি দিয়ে পিটিয়ে হাত পা গুড়িয়ে দিয়ে আহত অবস্থায় ফেলে নব্য আ্ওয়ামীলীগার রাজাকার পুত্র মকছুদ দ্রুত পালিয়ে যায়। পরে আহত সাংবাদিক সালামত উল্লাহর আতœচিৎকারে পথচারী লোকজন তাকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে দ্রুত মহেশখালী হাসপাতালে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তার অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে প্রেরণ করেন। কক্সবাজার সদর হাসপাতাল আহত সাংবাদিকের অবস্থা গুরুতর ও আশংকাজনক হওয়ায় তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল রকলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। বর্তমানে আহত সাংবাদিক সালামত উল্লাহ চিকিৎসাধীন রয়েছে।
এই নিয়ে সারা বাংলাদেশে সাংবাদিক সমাজসহ সূধীজনদের কাছে ক্ষোভের সঞ্চার সৃষ্টি হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*