ছাতক-দোয়ারার সীমান্তে ভারতীয় গরু চোরাকারবারীরা সক্রিয়

ছাতক-দোয়ারার সীমান্তে ভারতীয় গরু চোরাকারবারীরা সক্রিয়

জামরুল ইসলাম রেজা, ছাতক প্রতিনিধি : ছাতক-দোয়ারার সীমান্ত পথে ভারতীয় গরু চোরাকারবারীরা সক্রিয় হয়ে উঠেছে। রমজান ও ঈদুল ফিতরকে সামনে রেখে চোরাকারবারীরা ভারতীয় গরু মওজুদ করতে সীমান্তের বিভিন্ন এলাকাকে তাদের নিরাপদ রুট হিসেবে বেচে নিয়েছে। আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর চোখ ফাঁকি মিয়ে ছাতক ও দোয়ারার সীমান্ত পাড়ি দিয়ে প্রতিদিন ভারতীয় গরু বাংলাদেশে প্রবেশ করছে। এ কাজটি সম্পন্ন করতে চোরাকারবারী সিন্ডিকেট দলের ভারত ও বাংলাদেশের বেশ কিছু দালাল কাজ করছে বলে স্থানীয়রা জানান। মাঝে-মাঝে বিজিবির অভিযানে গরুসহ চোরাই পণ্য ধরাও পড়লে চোরাকারবারীরা থেকে যাচ্ছে অধরা। এসময় এসব গরু ও পণ্য পরিত্যাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে বলে বিজিবির পক্ষ থেকে চালিয়ে দেয়া হচ্ছে। প্রতিনিয়ত ভারতী গরু বাংলাদেশে প্রবেশ করায় এখানের গরু ব্যবসায়ীদের মধ্যে দেখা দিয়েছে চরম হতাশা। গরু ফার্মের মালিকরাও তাদের গরু বিক্রি নিয়ে পড়েছেন অনেকটা বিপাকে। আই-শৃঙ্খলা বাহিনীর কঠোরতা বাড়লেও গরু চোরাকারবারীদের রোধ করা সম্ভব হচ্ছে না। মধ্য রাত থেকে ভোর রাত পর্যন্ত সীমান্তে চোরাকারবারীরা থাকে সক্রিয়। প্রতিনিয়ত রাতের আঁধারে বিজিবির চোখ ফাঁকি দিয়ে ভারত থেকে অবৈধভাবে গরু বাংলাদেশে নিয়ে এসে এলাকায় বিভিন্ন হাটে বিক্রি করে থাকে। জানা গেছে বীরেন্দ্র নগর ও বাংলাবাজারের একটি কতিপয় চক্র ভারতীয় গরু পাচার করেই ছাতকসহ সুনামগঞ্জের বিভিন্ন হাটের চোরাকারবারিদের কাছে কমদামে গরু বিক্রি করছে। এতে স্থানীয় গরু কারবারী, কৃষক, গরু ব্যবসায়ী ও গবাদিপশুর খামার মালিকরা পড়েছেন বিপাকে। ফলে গরু লালন-পালন করা গ্রামের কৃষকদের লোকসানের ঘানি টানতে হচ্ছে। পাশাপাশি কৃষক ও গবাদিপশুর খামার মালিকরা দেশীয় গরু পালনে অনিহা প্রকাশ করছেন দিনদিন। একটি বিশ্বস্থ সূত্র মতে জানা যায়, ভারতীয় গরু চোরাকারবারী চক্রের প্রধান এজেন্ট ও গরু চোরাকারবারির গডফাদার ছাতকের গোবিন্দগঞ্জ-সৈদেরগাঁও ইউনিয়নের গোবিন্দনগর ও বিলপার গ্রামের কতিপয় চোরাকারবারীরা স্থানীয় প্রভাবশালীদের ম্যানেজ করে চোরাই ব্যবসা করে যাচ্ছে। ভারতীয় গরু চোরাকারবারী এসব চক্রের বিরুদ্ধে তদন্ত পূর্বক আইনী ব্যবস্থা নিতে সীমান্তে নিয়োজি আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী প্রতি প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন গরু লালন-পালনকারী কৃষক ও গবাদি পশুর খামার মালিকরা আহবান জানিয়েছেন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*