হায়দার আলী রনি আহবায়ক ও এইচ এম ফারুক সচিব—-কালারপোল হাজী মো: ওমরা মিয়া চৌধুরী উচ্চ বিদ্যালয় প্রাক্তন শিক্ষার্থী পরিষদ গঠিত

হায়দার আলী রনি আহবায়ক ও এইচ এম ফারুক সচিব—-
কালারপোল হাজী মো: ওমরা মিয়া চৌধুরী উচ্চ বিদ্যালয় প্রাক্তন শিক্ষার্থী পরিষদ গঠিত

আবদুর রাজ্জাক,বিশেষ প্রতিনিধি/নওশেদা বিনতে দিবা,কর্ণফুলী (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি ॥চট্টগ্রামের কর্ণফুলী উপজেলার শিকলবাহাস্থ ঐতিহ্যবাহী কালারপোল হাজী মো: ওমরা মিয়া চৌধুরী উচ্চ বিদ্যালয় প্রাক্তন শিক্ষার্থী পরিষদ গঠন উপলক্ষে গতকাল ২৪ মে ২০১৯ খ্রিস্টাব্দ শুক্রবার বিদ্যালয় মিলনায়তনে দক্ষিণ জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য প্রাক্তন ছাত্র মুক্তিযোদ্ধা সিদ্দিক আহমদ বি.কম’র সভাপতিত্বে এক সভা অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত সভায় উপস্থিত সকল প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের সর্বসম্মতিতে কর্ণফুলী উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও বিদ্যালয়ের প্রাক্তন শিক্ষাথী হায়দার আলী রনিকে আহবায়ক ও এইচ এম ফারুককে সদস্য সচিব করে ৫০১ সদস্য বিশিষ্ট কালারপোল হাজী মো: ওমরা মিয়া চৌধুরী উচ্চ বিদ্যালয় প্রাক্তন শিক্ষার্থী পরিষদ গঠন করা হয়।
এছাড়াও চট্টগ্রাম চেম্বারের সাবেক সহ-সভাপতি,বর্তমান পরিচালক ও বিদ্যালয়ের প্রাক্তন শিক্ষার্থী সৈয়দ জামাল আহমদকে প্রধান উপদেষ্টা করে ৫০ সদস্য বিশিষ্ট উপদেষ্টা পরিষদ গঠন করা হয়।
এতে প্রধান অতিথি ছিলেন, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ফারুক চৌধুরী। প্রধান বক্তা ছিলেন সাদার্ন ইউনিভার্সিটির অধ্যাপক ও বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি অধ্যাপক এম.মহিউদ্দিন চৌধুরী। ৯৩ ব্যাচের শিক্ষার্থী নুর আহমদের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় বক্তব্য রাখেন, কর্ণফুলী উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও স্কুলের প্রাক্তন শিক্ষাথী হায়দার আলী রনি, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান দিদারুল ইসলাম চৌধুরী, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মুহাম্মদ আবদুর রহীম চৌধুরী, প্রাক্তণ শিক্ষার্থী আমির হোসেন আমু, আমির হোসেন, মাহবুব আলম, এইচ এম ফারুক, আবদুল ওয়াদুুদ, সকির আহমদ, বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সদস্য মো: সামশুদ্দিন চৌধুরী, রাবেয়া খাতুন, মাহবুব আলী খান, আবদুস ছবুর, ইঞ্জিনিয়ার রিজুয়ানুল ইসলাম, মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন শাহীন, জাফর আহমদ, বাহার উদ্দিন, নুরুল আক্তার, আবদুল গফুর, মোহাম্মদ হাসান, আবদুর রহমান বাবলু, হারুনুর রশিদ,মো: জহির, আবদুল্লাহ আল মামুন, আবুল কালাম, মোহাম্মদ মুছা, মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর, মহিউদ্দিন প্রমুখ।
সভায় সিদ্ধান্ত হয়, সকল সদস্যসহ আরো যারা বিদ্যালয়ের প্রাক্তন শিক্ষার্থী পরিষদে অর্ন্তভূক্ত হতে চান তাদের ৫শ টাকা ফি দিয়ে রশিদ সংগ্রহ করতে আহবান জানানো হয়। আগামীতে আরো বড় পরিসরে অনুষ্ঠানের লক্ষে এ পরিষদ কাজ করবে এবং তাতে সকলের সহযোগিতা কামনা করা হয়।
সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে ফারুক চৌধুরী বলেন, যারা বিদ্যালয়ের উন্নয়ন ও অগ্রগতি চান তাঁদের সকলে একই প্লাটফর্মে এসে কাজ করতে হবে। প্রাচীন এ বিদ্যালয়ের ঐতিহ্য ফিরিয়ে আনতে এবং আরো অগ্রগতিতে সকলের সস্মিলিত প্রচেষ্টা জরুরি বলে তিনি মন্তব্য করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*