মানবতা কে প্রধান্য দেয়ায় বাংলাদেশের ভবিষ্যৎ হুমকির মুখে

মানবতা কে প্রধান্য দেয়ায় বাংলাদেশের ভবিষ্যৎ হুমকির মুখে

নাছির উদ্দীন রাজ (টেকনাফ) :: আগামী ২৫আগষ্ট বাংলাদেশে রোহিঙ্গা আগমনের দুই বছর পূর্তি।পাশের দেশ মায়নমার রাখাই রাজ্য হতে তাদের দেশের সেনা বাহীনি আরকান রাজ্যে বসবাস কারী মায়নমার মুসলিমদের সীমাহীন নির্যাতন, নিপীড়ন ও নারী শিশুদের অন্ধকার যোগের বর বরতাকে হার মানা সেই শাসন থেকে নিজেদের জীবন রক্ষার জন্য পাশের দেশের সীমানায় অবস্তান করছিল।বিশ্বের সব বড় বড় রাষ্ট্রের চোখ যখন ছোট স্বাধীন বাংলাদেশের দিকে।তখন মানবতার খাতিলে এ দেশের সীমানা খুলে দেয়ার জন্য যখন দল, মত, ধর্ম, বর্ণ, সব শ্রেনী পেশার মানুষ একমত হল। তখন সব অবস্হা বুঝে সরকার প্রধান জননেন্ত্রী শেখহাসিনা মানবতার দিক বিবেচনা করে সীমানা খুলে দেয়ার নির্দেশ দেন।এবং তাদের নির্দিষ্ট এক জায়গায় রেখে সকলের প্রতি সহযোগিতায় হাত বাড়িয়ে দেয়ার ঘোষনা দেন।ঠিক সে ভাবে নির্দেশ পালন করে দেশের সমস্ত প্রসাশন,প্রসাশক,জনপ্রতিনিধি, ও সেচ্ছাসেবী সংগঠন গুলি।অদ্য বদি সেভাবেই চলছে।কিন্তুু সেই মানবতা এখন দেশের হুমকির স্বরুপ হিসেবে কাজ করছে।প্রতিনিয়ত দেখা যাচ্ছে রোহিঙ্গাদের কোন ভাবেই থামানু যাচ্ছেনা!তারা বড় বড় দাতা সংস্থা থেকে তাদের প্রয়োজনের আষি শতাংশ সাহায্য পেলেও, তা অবমূল্যায়ন করে দেশের বিভিন্ন জেলা,বিভাগ থেকে গ্রামে গঞ্জে ছড়িয়ে যাচ্ছে।নেই কোন তাদের রক্ষার সীমানা প্রাচীর ও।সূত্র জানাগেছে বর্তমানে দেশের এমন কোন জায়গা নেই যেখানে রোহিঙ্গা পৌছাই নাই।এত প্রসাশনিক চেক পোষ্ট ও চাপের মুখে কি ভাবে তারা দেশের বিভিন্ন প্রান্তে ছড়িয়ে পড়ল।সুধু তা নয়,তারা এখন বিভিন্ন ভাবে দুরদুরান্তে গিয়ে বাংলাদেশের নাগরিক হওয়ার জন্য চেষ্টা চালাচ্ছে বলে খবর পাওয়া গেছে।অনেকে গুপনে জন্ম নিবন্ধন, আইডি কার্ড,পাসপোর্ট ও করেছেন।( উখিয়া টেকনাফ) পারছেন না,তাই কক্সবাজার, চন্দনাইশ,নোয়াখালী,পটিয়া সহ নানা প্রান্তথেকে করছেন।সাবচেছে বড় হল রোহিঙ্গাদের দখলে স্বাধীন দেশের শ্রমবাজার,মসজিদের ইমামতি,বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষক,স্কুল, মাদ্রাসার ছাত্র,জেলে,মাঝি, সহ অনেক কিছু।এমন কি বিশ্বের দৈর্ঘ্য পর্যটন নগরী কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতেও তাদের ছোট বড় ব্যবসা প্রতিষ্টিত হয়েছে।সব ছেয়ে বড় বিষয় হল যারা মায়নমারে অবস্হান কালে বিভিন্ন জীহাদি ও ধর্মিয় প্রলোভন দেখিয়ে গড়েউটা সংগঠন গুলো আবার স্বক্রিয় হচ্ছে এ দেশে।মাদক, মানব পাচারে তো জড়িত আছেই।দিন দিন জন্ম পাচ্ছে হাজার হাজার শিশু।অনেক রোহিঙ্গা  যারা ১০বছর আগে এসেছে তারা এদেশের নাগরিক হয়ে বাংলাদেশী দের তাড়াচ্ছে এরকম দৃষ্টান্ত ভুরি ভুরি।গবেষনায় দেখা গেছে এরক অনিয়ন্ত্রিত ভাবে চলতে থাকলে দেশের ভবিষ্যতে হুমকির মুখে পড়বে।তাই দেশ ব্যপি ছড়িয়ে না পড়তে যথাযথ প্রদক্ষেপ নেওয়ার জন্য অনুরোধ জানিয়েছেন দেশের সাধারন জনগন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*