জমিলোভী মিল্টনের পূর্ব পরিকল্পিত মামলা থেকে জামিন পেলেন ভুক্তভোগীরা

কাঠালিয়ায় নিজের মাথা নিজে ফাটিয়ে থানায় মামলা

জমিলোভী মিল্টনের পূর্ব পরিকল্পিত মামলা থেকে জামিন পেলেন ভুক্তভোগীরা

মো: মোছাদ্দেক বিল্লাহ: ঝালকাঠির কাঠালিয়ায় প্রতিপক্ষদের ফাঁসাতে নিজের মাথা নিজে ফাটিয়ে থানায় মমলা করে হয়রানি করার অভিযোগ উঠছে। পূর্ব পরিকল্পিত সেই মামলায় আসামী করা হয়েছে ঘটনা স্থলথেকে প্রায় ২৫০ কি:মি: দূরে ঢাকায় থাকা সাদ্দাম খান সহ ৬৫ বছরের একবৃদ্ধকেও। তবে পরিকল্পিত সেই মিথ্যা মামলা দায়ের করার পরের দিনই সকল আসামীদের জামিনে মুক্তি দিয়েছে আদালত।

সরেজমিনে এলাকা ঘুরে ভুক্তভোগী ও এলাকাবাসীর দেয়া বর্ননায় জানাগেছে, উপজেলার দক্ষিন চেচরি গ্রামের মৃত.শাহজান খান এর ছেলে মিল্টন খান ওরফে মামলাবাজ মিল্টনের সাথে একই বংশের মোশারেফ খান ,আরিফ খান,শাহালম খান ,ঈসমাইল খান এদের সাথে জমিজমা নিয়ে দীর্ঘ দিন যাবৎ পারিবারিক বিরোধ চলে আসছিল । পারিবারিক বিরোধ ছারাও আরিফ খানদের ক্রয়কৃত একটি জমি দিনের পর দিন দখলে নিয়ে যাচ্ছিল মিল্টন খান। গত বৃহাস্পতিবার তারা তাদের নিজের জমিতে গাছপালা রক্ষার সার্থে বেড়া দিলে সেই রাতেই মিল্টন তার বাহিনী নিয়ে জমিতে থাকা শতাধিক কলাগাছ কেটে ফেলে । অত:পর গত শুক্রবার রাত সাড়ে ৯ টার দিকে কাঠালিয়া থেকে আরিফ খান তাদের নিজ এলাকা চেচরির নতুন হাট বাজারে একটি চায়ের দোকানে চা খেতে যায় । এমন সময় মিল্টনও সেখানে উপস্তিথ হয় এবং আরিফের সাথে জমিজমা নিয়ে কথা কাটাকাটি শুরু করে। একপর্যায়ে সুচতুর এই মিল্টন প্রতিপক্ষদের ফাঁসানোর জন্য তার পরিচিত এক অসাধু দোকানীর দোকানে গিয়ে নিজের হাতে থাকা একটি কাচেঁর গ্লাস দিয়ে নিজের মাথায় নিজে আঘাত করে ফাটিয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে। পরে তার সহযোগীরা তাকে আমুয়া হাসপাতালে ভর্তিকরে তার স্ত্রী সাথী বেগমকে বাদী করে একই পরিবারে চারজনকে স্বাক্ষী করে মোঃ মোশারেফ খান, পুত্র পলাশ খান ও সাদ্দাম খান (ঘটনার সময় তিনি ঢাকায় অবস্থান করছিলেন), মৃত. বাবুল খানের ছেলে আরিফ খান, একই বংশের আল আমিন খান, হাসিব খান,ইসমাইল খান, শাহ আলম খান, মিজান জমাদ্দারের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরো ৫/৬ জনকে আসামী করে কাঠালিয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। মামলা নং ০৫ তারিখ ৮/৬/১৯ইং।
অপরদিকে মামলা হওয়ার একদিনের ব্যাবধানে রোববার পূর্ব পরিকল্পিত সেই মিথ্যা মামলায় সকল আসামীদের জামিনে মুক্তি দিয়েছে আদালত।
একই গ্রামের বসবাসকারী মিল্টনের চাচা ভুক্তভোগী শাহলাম খান, মোশারেফ খান ও ইসমাইল খান জানান, মিল্টন পরবিত্ত লোভী এক জঘন্য সন্ত্রাসী। ওর সাথে আমরা কখনও আপোষ করতে পারি না। আপোষ করতে চাইলে নারী র্নিযাতন সহ ভয়াবহ মামলার হুমকি দিয়ে থাকে। মিল্টনকে একাধিক মামলায় পালাতক আসামী হিসাবে গ্রেপ্তার করছে পুলিশ।
আরো জানাযায়, মিল্টন খান গত কয় এক বছর যাবত আরিফ খানকে জমিজমা নিয়ে মিথ্যা মামলা হামলা করে হয়রানী করে আসছিলো। গত ০৬-০১-২০১৮ তারিখ সেই পূর্ব শত্রুতার জের ধরে আরিফকে ডেকে নিয়ে প্রকাশ্যে খুন ঘুমের হুমকি দেয় ও হামলা চালায়। আরিফ খান নিরুপায় হয়ে কাঠালিয়া থানায় একটি সাধারন ডায়েরি করলে তৎকালিন সময় কাঠালিয়া থানার এ এস আই মনিরুল ইসলাম বিষয়টি তদন্ত করে সত্যতা পেয়ে আদালতে প্রেরন করেন এবং সেই মামলায় পালাতক আসামী হিসাবে মিল্টনকে পুলিশ আটক করে আদালতে প্রেরন করে ।
এছারাও গত কয়েক মাস আগে একই পদ্ধতিতে জমিলোভী মিল্টন তার দলবল নিয়ে তার চাচা মাও: নুরুল আমিনের জমি দখলের চেষ্টা চালায়। অভিনব কায়দায় ঢোল-বাদ্যসহকারে মিল্টনের সন্ত্রাসী বাহিনী দিন দিন আরো বেপরোয়া হয়ে উঠছে। এলাকাবাসী তার সন্ত্রাসী ও নাশকতার ভয়ে প্রতিবাদ করতে পারছে না। দ্রুত মিল্টনকে আইনের মাধ্যমে শাস্তির দাবি জানিয়েছে এলাকাবাসী ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*