বাগমারায় ভ্রাম্যমাণ আদালতে মাদকসেবীর কারাদন্ড

বাগমারায় ভ্রাম্যমাণ আদালতে মাদকসেবীর কারাদন্ড

নিজস্ব প্রতিবেদক : মাদক দ্রব্য সেবন ও ছেলের অত্যাচারে অতিষ্ট হয়ে নিজের ছেলেকে পুলিশের হাতে ধরিয়ে দিলেন বাবা সামছুর রহমান নিজেই। পুলিশ মাদক সেবী ছেলে আমিনুল হোসেন বাক্কার (২০) কে গ্রেপ্তার করে ভ্রাম্যমান আদালতে হাজির করেন। ভ্রাম্যমান আদালতের এ্যাক্সিকিউটিভ ম্যাজিষ্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার (ভুমি) আবুল হায়াত মাদক সেবী আমিনুল হোসেন বাক্কারকে ১ মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড ও ১ হাজার টাকার অর্থ করেন। অর্থদন্ড দিতে না পারায় আরো ৭ দিনের কারাদন্ড বাড়িয়ে দেন। ঘটনাটি ঘটেছে রাজশাহীর বাগমারা উপজেলার দ্বীপপুর ইউনিয়নের খাঁপুর গ্রামে। ওই ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

ভ্রাম্যমান আদালত সূত্রে জানা যায়, উপজেলার দ্বীপপুর ইউনিয়নের খাঁপুর গ্রামের সামছুর রহমানের মাদকাসক্ত ছেলে আমিনুল হোসেন বাক্কার নিষিদ্ধ ঘোষিত মাদক হিরোইন সেবন করে পরিবারের সদস্যদের নানা ভাবে নির্যাতন করে আসছে। বিষয়টি মাদকসেবী আমিনুল হোসেন বাক্কারের বাবা সামছুর রহমান ছেলের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য ্উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর লিখিত অভিযোগ দাখিল করেন।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার জাকিউল ইসলাম বিষয়টি তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার জন্য বাগমারা থানার ওসি আতাউর রহমানকে নির্দেশ দেন। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নির্দেশ পেয়ে বাগমারা থানার পুলিশের সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) মশিউর রহমান ও আরিফ হোসেন অভিযান চালিয়ে খাঁপুর গ্রামের নিজ বাড়ী থেকে মাদকসহ আমিনুল হোসেন বাক্কারকে গ্রেপ্তার করে ভ্রাম্যমান আদালতে হাজির করলে সে নিজের দোষ স্বীকার করে। ভ্রাম্যমান আদালতের এ্যাক্সিকিউটিভ ম্যাজিষ্ট্রেট ও উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভুমি) আবুল হায়াত ১ মাসের বিনাশ্রম করাদন্ড ও ১ হাজার অর্থদন্ড করেন। অর্থদন্ড দিতে না পারায় আরো ৭ দিনের কারাদন্ডের নির্দেশ দেন।

এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে ভ্রাম্যমান আদালতের এ্যাক্সিকিউটিভ ম্যাজিষ্ট্রেট ও উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভুমি) আবুল হায়াত বলেন, মাদক সেবন ও পরিবারের সদস্যদের উপর নির্যাতনের চালানোর বিষয়টি স্বীকার করায় তাকে ১ মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করা হয়েছে। সাজা প্রাপ্ত আমিনুল হোসেন বাক্কারকে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হবে বলে বাগমারা থানার পুলিশ জানিয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*