অনলাইন গ্রুপস এসোসিয়েশন এর প্রাক মহাসম্মেলন ও মহাসম্মেলন এর প্রস্তুতি সভা

অনলাইন গ্রুপস এসোসিয়েশন এর প্রাক মহাসম্মেলন ও মহাসম্মেলন এর প্রস্তুতি সভা 
জাহাঙ্গীর বাবু :: গত ১৪ জুন ২০১৯  শুক্রবার ঢাকার বাংলা  মটরের বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রের তৃতীয় তলায় অনুশীলন সাহিত্য সভার ১৭৮ তম কাব্য কবিতা আলোচনার পর  রাত আট টায়    অনলাইন গ্রুপস এসোসিয়েশন এর প্রাক মহাসম্মেলন ও মহাসম্মেলন এর চতুর্থ প্রস্তুতি সভা   অনুষ্ঠিত হয়।
সম্মানিত কবি, লেখক ও সংগঠকবৃন্দ আসসালামু আলাইকুম।অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন অনলাইন গ্রুপস এসোসিয়শনের সম্মানিত সভাপতি অভিনেতা ,কবি ও সংগঠক,অভিনেতা এবিএম সোহেল রশিদ। সভা পরিচালনা করেন অনলাইন এসোসিয়শনের সাধারণ সম্পাদক কবি ও সংগঠক টিপু রহমান।
আলোচনায় অংশ নেন সম্মেলন প্রস্তুতি ব্যবস্থাপনা উপকমিটির আহবায়ক কবি ও সংগঠক মোসলেহ উদ্দিন ,সম্মেলন কমিটির অন্যতম উপদেষ্টা কবি ও সংগঠক মাহবুব খান,কবি ও সংগঠক রাবেয়া রুবী,কবি ও সংগঠক রবিউল প্রধান,কবি ও সংগঠক জসিম উদ্দিন ভুঁইয়া,কবি ও সংগঠক ফাতেমা সুলতানা সুমি ,কবি ও সংগঠক জহিরুল হক বিদ্যুৎ,কবি ও সংগঠক ইখতিয়ার হুসাইন ,কবি ও সংগঠক এম নন্দিনী খান ,কবি ও সংগঠক সাংবাদিক আই জামান চমক,প্রবাসী কবি,সংগঠক,সাংবাদিক জাহাঙ্গীর বাবু সহ সহ অর্ধশতাধিক  কবি ও সংগঠক প্রমুখ।  
আলোচনার শুরুতে কবি ও সংগঠক আই জামান চমক অনলাইন এসোসিয়শনের বিরুদ্ধে অসাধু প্রকাশনী ও বর্ণচোরা কিছু সংগঠকের ঔদ্ধত্যপূর্ণ আচারন এবং সংগঠন বিরোধী কার্যকলাপের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান। কবি মাহাবুব খান সাম্প্রতিক সময়ে কিছু অসাধু ব্যাক্তি উদ্দেশ্য প্রণোদিত উস্কানীমুলক,সাংগঠনিক  তৎপরতায় ঈর্ষাপরায়ণ ব্যাক্তিদের হীন কর্মকান্ডের  সমালোচনা করেন,সাধারণ সম্পাদক টিপু রহমানের কাছে পরবর্তীতে পদক্ষেপ ও আশুকরণীয় সম্পর্কে জানতে চান। টিপু রহমান বিশ্লেষন করে সকল প্রশ্নের জবাব দেন এবং ভবিষ্যতে সমুচিত জবাবের আশ্বাস দেন। সভাপতি তুলে ধরেন আগামী অনুষ্ঠানের পরিকল্পনা।উপস্থিত সকলে সমর্থন জানান।    সভায় সম্মেলনকে সফল করার লক্ষ্যে  কবি ও সংগঠকবৃন্দের অনেকগুলো   প্রস্তাবনা  লিপিবদ্ধ করা হয়। আগামী সভায় এ নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।
প্রস্তাবনার মধ্যে, আগামী জুলাই মাসে বৈরী আবহাওয়ার কথা বিবেচনায় এনে এবং প্রবাসী বাঙালী ও বিদেশী সংগঠকদের ভিসা প্রাপ্তি সাপেক্ষে  উপস্থিতি নিশ্চিত করতে  সেপ্টেম্বরে মহাসম্মেলন  করা যায় কিনা এ রকম প্রস্তাবনা অনেকেই রাখেন।
যেহেতু এই সম্মেলন স্মরণ কালের একটি বড় সম্মেলন হবে বলে আশা করছেন আয়োজক গন, তাই মহাসম্মেলনের  আগে প্রত্যেক সংগঠন প্রধান বা প্রতি গ্রুপ থেকে ২ জন করে  দুই শতাধিক সংগঠনের সংগঠকদের  নিয়ে জুলাই মাসে প্রাক সম্মেলন করার প্রস্তাব রাখা হয়। সেখানে সবাই মিলে মহাসম্মেলনের রোডম্যাপ সর্বসম্মতিতে  প্রনয়ণ  করা হলে সম্মেলন সফল হবে বলে অনেকেই আশা প্রকাশ করেন।
 সম্মেলনের বাজেট নিয়েও বিস্তারিত আলোচনা হয়। 
 আগামী সভায় এব্যাপরে মুক্ত আলোচনার ভিত্তিতে  সবার মতামত নিয়ে সিদ্ধান্ত নেয়ার প্রস্তাব গৃহীত হয়।
সম্মেলন প্রস্তুতি উপকমিটিগুলোর কর্মকাণ্ডে সন্তোষ প্রকাশ করে উপস্থিত কবি,সংগঠক বৃন্দ,ফটো সেশন, বাংলামটরের উমুক্ত চা স্টলে আপ্যায়ন পর্বের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘটে ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*