রেমিটেন্স যুদ্ধারা কিভাবে খায়,আর বাড়িতে খায় ডাইনিং টেবিলে

রেমিটেন্স যুদ্ধারা কিভাবে খায়,আর বাড়িতে খায় ডাইনিং টেবিলে

দলিল ফারুক,কাতার থেকে।প্রবাসীরা এভাবেই খায় : তাদের পাঠানো টাকায় পরিবারের লোকেরা খায় ডাইনিং টেবিলে। প্রবাসীদের পরিবারকে যদি জিজ্ঞাসা করা হয় আপনার ছেলে; স্বামী; বা ভাই প্রবাসে কি করে? উত্তর আসবে, বিদেশে থাকে কিন্তু কি কাজ করে জানি না।
কিংবা অত কিছু জানতেও চায় না অনেকেই। এ কথাটাই অপ্রিয় সত্য। পরিবারের সদস্যরা কিংবা আত্মীয়স্বজন মনে করেন বিদেশ মানেই রোপন করা টাকার গাছ যা ঝাঁকি দিলেই কেবল টাকা আর টাকা।
কোন প্রবাসী যদি ঘরে টাকা কম দেয় পরিবারের সদস্যরা ধরে নেয় যে, তাদের ছেলে টাকা জমা করছে বা ছেলে বদলে গেছে। আর যদি বিবাহিত হয় তাহলে তো কথাই নেই।
সবাই এক বাক্যে বিশ্বাস করে ছেলে যা কামাই করছে সব শ্বশুরবাড়ি যাচ্ছে।কিন্তু আসলে যে তার বেতন কত; কোথায় থাকে; কিভাবে থাকে; কি খাচ্ছে; কি কাজ করে; যা আয় করে তা হালাল না কি হারাম তা জানার কোন প্রয়োজন মনে করে না।
শুধুমাত্র মাস শেষে টাকা পেলেই হয়।প্রবাসীরা যে কতটা অবহেলিত তা বলার অপেক্ষা রাখে না। খুব কম প্রবাসী আছে যারা পরিবারের সমর্থন পেয়ে থাকবে। গড়ে প্রতিদিন ৫৫-৬২ জন প্রবাসীর মরদেহ দেশে যায়।একদিকে পারিবারিক চাপ,অন্যদিকে কাজের এবং কোম্পানির টেনশন, আমার দেশের সরকারের অবহেলা,দলালের যন্ত্রণা,বিদেশে বাংলাদেশ এম্বাসি ও রাষ্ট্রীয় হাইকমিশনের অবহেলা, সবমিলিয়ে যাদের অধিকাংশই মৃত্যুর কারণ হিসেবে দেখানো হয় “হঠাৎ_মৃত্যু” বা স্ট্রোক।যার জন্য দায়ী মানসিক চাপ, তাই,অন্তত  প্রবাসীদের পরিবারের প্রতি অনুরোধ রইল যে আপনার ঘরের প্রবাসী সন্তানকে মানসিক_চাপ থেকে দুরে রাখতে চেষ্টা করুন।দেশের সরকারের প্রতি আকুল আবেদন বিমান বন্ধর,ভিসা প্রসেসিং, পাসপোর্ট হয়রানি,আইডি কার্ড বানানুর হয়রানি এসব থেকে যেন অন্তত প্রবাসীরা মুক্তি পায়।প্রবাসীরা বেশী কিছু চাইনা,একটু সম্মান নিয়ে বাচতে চাই। সম্প্রতি সরকারের উদ্যোগ নেওয়া প্রবাসীদের জন্য ভি আই পি কার্ড প্রণয়ন এবং বিদেশ থেকে পাঠানো টাকাই ২% কমিশন দেওয়ার সিদ্ধান্ত কে বিশ্বের সকল প্রবাসীদের পক্ষথেকে আমরা সাধুবাদ জানাই, ইহা যেন দ্রুত কার্যকর হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*