নাচোলে ওসির তৎপরতায় আইন-শৃংখলার উন্নতি ॥ জনমনে স্বস্তি

নাচোলে ওসির তৎপরতায় আইন-শৃংখলার উন্নতি ॥ জনমনে স্বস্তি

নিজস্ব প্রতিবেদক : চাঁপাই নবাবগঞ্জ জেলার নাচোল উপজেলার আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির ক্রমাগত অবনতির মোড় ঘুরিয়ে দিয়েছেন নাচোল থানার অফিসার ইনর্চাজ (ওসি) চৌধুরী জোবায়ের আহম্মদ। এই ওসি যোগদানের পর কমে গেছে মাদকের ভয়াবহতা, খুন-খারাপি, অপহরণ, চুরি, ডাকাতি, ছিনতাইসহ চাঁদাবাজির ঘটনা। বর্তমান পরিস্থিতিতে স্বস্তিবোধ করছেন উপজেলার কৃষক সমাজ ও বিভিন্ন রাজনৈতিক সংগঠনসহ ব্যবসায়ী এবং সুশীল সমাজের নেতারা। সাধারণ মানুষ বলছেন হঠাৎ করেই পাল্টে গেছে অপরাধ প্রবণ এ উপজেলার দৃশ্যপট। গা ঢাকা দিয়েছে অনেক অপরাধী। অপরাধীদের কেউ কেউ পেশা পাল্টে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসতে শুরু করেছে। পুলিশের কৌশলী ভূমিকার কারণেই ভেঙ্গে পড়েছে অপরাধীচক্রের নেটওয়ার্ক। আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির এই উন্নতিতে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন অনেকে। স্থানীয় রাজনীতি সচেতন মহল বলছেন, উপজেলার আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির উন্নয়নে অসাধারণ ভূমিকা রয়েছে নাচোল থানা পুলিশের। বিশেষ করে থানার ওসি চৌধুরী জোবায়ের আহম্মদ যোগদানের মধ্য দিয়ে অপরাধ দমনে তার আন্তরিকতার প্রমাণ দিয়েছেন। তবে প্রশাসনের এই সাফল্যে গাত্রদাহ শুরু হয়েছে কিছু সন্ত্রাসী, মাদক ব্যবসায়ী ও দুর্বৃত্তেরসহ দালালদের। কারণ ইতিমধ্যে তাদের স্বার্থে আঘাত পড়েছে। যেকারণে এ থানার ওসির বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র হচ্ছে বলেও অভিযোগ পাওয়া গেছে। খোজ খবর নিয়ে জানা গেছে, জেলার গুরুত্বপূর্ণ এ উপজেলার আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি ক্রমাগতভাবে উন্নতির দিকে যাচ্ছে। ইতিপূর্বে এই থানার পূর্বের ওসি আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নিতে হিমশিম খান রাজনৈতিক নেতা ও দালালদের কারণে। এমন পরিস্থিতিতে এ থানায় দায়িত্ব গ্রহণ করেন ওসি চৌধুরী জোবায়ের আহম্মদ। বর্তমান ওসি যোগদানের পর উপজেলার সার্বিক আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি বেশ উন্নতি হয়েছে বলে আইন-শৃংখলা কমিটির সদস্য রা। জনসাধারণ বলছে আইন-শৃংখলার উন্নতির ব্যাপারে ওসির ভাল ভূমিকা রয়েছে। জনসাধারণ ও উপজেলা চত্বরের বিভিন্ন অফিসের অফিসাররা ওসিকে নাচোলের সার্বিক আইন-শৃংখলা পরিস্থিতি আরো উন্নত করতে দাবি জানান। উপজেলার বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ স্বস্তিবোধ করে বলছেন, তারা বর্তমান পরিস্থিতিতে বেশ খুশি। এর আগের ওসিদের কর্মকান্ডে মানুষের মধ্যে যে হতাশার সৃষ্টি হয়েছিল তা কাটতে শুরু করেছে। এ ব্যাপারে একজন অসহায় ব্যাক্তি জানান, থানায় কোন সমস্যা সমাধানের যেকারণে এখানে আসলে,ওৎ গেড়ে বসেছিল চাঁদাবাজরা। কিন্তু পাল্টে গেছে দৃশ্যপট। এখন দিনে ও রাতে পুলিশের টহলদারীতে বা নজরদারীতে চুরি ডাকাতি কমে গেছে। ফলে পোষ্য সন্ত্রাসীরাও চুরি ডাকাতি ছিনতাইসহ নানাবিধ অপকর্ম চালাতে পারছে না। তারমতে নাচোল থানার বর্তমান ওসি চৌধুরী জোবায়ের আহম্মদ যোগদানের পর চাঁদাবাজ-সন্ত্রাসীরা গাঁ ঢাকা দিয়েছে।বিভিন্ন সমাজের মানুষ বলছে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি পূর্বের তুলনায় অনেক ভাল। বিশেষ করে বাজার এলাকায় যানজট, ছিনতাই ও চাঁদাবাজি বন্ধ হয়েছে। ওসি বেশ চমক দেখিয়েছেন। বর্তমান ওসি চৌধুরী জোবায়ের আহম্মদ কৌশলী ভূমিকার কাছে হার মেনেছে অপরাধীরা। পাড়া-মহল্লায় শান্তি-শৃঙ্খলা কমিটি তৈরি করে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির উন্নতি করেছেন। তিনি প্রশংসা পাওয়ার দাবি রাখেন। তবে পুলিশের এই প্রশংসনীয় ভূমিকা মানতে পারছেন না কতিপয় স্বার্থাম্বেষী মহল। কারণ পুলিশের ভূমিকায় ছিনতাই, চাঁদাবাজি, মাদক ব্যবসাসহ বিভিন্ন অপকর্মের মাত্রা বেশ কমে গেছে। নাচোল থানার অফিসার ইনর্চাজ (ওসি) চৌধুরী জোবায়ের আহম্মদ বলেন, জনগণের সার্বিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে ন্যায় ও নিষ্ঠার সঙ্গে আজীবন কাজ করে যাব। এ থানাকে সব ধরণের অপরাধমুক্ত ও একটি আদর্শ থানা হিসেবে গড়ে তোলার প্রত্যয় নিয়ে কাজ শুরু করেছি। এ ধারা অব্যাহত থাকবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*