প্রতিবাদী জনতাকে শান্তনা দিয়ে অবরুদ্ধ টেকনাফ সড়ক মুক্ত : ওমর হত্যা কারিদের ঠিকানা টেকনাফে হবে না -ওসি প্রদীপ

প্রতিবাদী জনতাকে শান্তনা দিয়ে অবরুদ্ধ টেকনাফ সড়ক মুক্ত : ওমর হত্যা কারিদের ঠিকানা টেকনাফে হবে না -ওসি প্রদীপ

নাছির উদ্দীন রাজ, টেকনাফ।টেকনাফে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের নাটকিয়তা শেষ না হতে মানবতার স্বার্থে আশ্রয় দেয়া রোহিঙ্গারা জমির মালিক কে গুলি করে বুক ঝাঁজরা করে দেয়।গত ২২অগাষ্ট রাত ১০টায় নিজ বাড়ি থেকে ডেকে টেকনাফের জাদিমুরা এলাকার মোনাফ কোম্পানির ছেলে হ্নীলা ৯নং ওয়ার্ড যুবলীগ ও জাদিমুরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি ওমর ফারুক (৩২)কে রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীরা হত্যা করে।রাতে সাধারন জনতা জাদিমুরা রোহিঙ্গা ক্যম্প ২৭ হতে গুলি বিদ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করে। ২৩ অগাস্ট সকালে ওমর হত্যার বিচারের দাবীতে স্থানিয় বিক্ষুব্ধ জনসাধরন বিভিন্ন স্লোগান ও টায়ারে আগুন দিয়ে টেকনাফ কক্সবাজার মহা সড়ক অবরোধ করে।ঘটনা ভিন্ন হাতে প্রবাহীত ও জনগণের নিরাপন্তা যখন প্রশ্নবিদ্ধ হচ্ছিল তখনি টেকনাফ মডেল থানার ওসি প্রদীপ কুমার সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে এসে বিক্ষুব্ধ জনতাকে শান্তনার বাণী শুনিয়ে দির্ঘ সময় ধরে যানচলাচলে বন্ধ থাকা টেকনাফ কক্সবাজার মহাসড়ক মুক্ত করে চলা চল স্বাবাভিক করে দেন।প্রদীপ বলেন আমার কাছে কোন অপরাধীরা ছাড় পায়নাই যুবলীগ নেতা ওমর কে যে বা যারা হত্যা করেছে অতি ধ্রুত সময়ের মধ্যে আইনের শাস্তি পেতে হবেই।ঘটনা স্থলে দুই আসামী ও গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়েছে পুলিশ।এসময় উপস্থিত ছিলেন সহকারী কমিশনার (ভুমি)আবুল মনসুর ও প্রশাসনিক দপ্তরের বিভিন্ন শ্রেনীর কর্মকর্তা গণ। নিহতের বাবা বলেন আমার ছেলেকে রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী রফিক গ্যং ও স্থানিয় কিছু কোচক্রি মহল মিলে হত্যা করেছে।হত্যা কারিদের অতি সহজে গ্রেপ্তার করে ফাঁসির কাঠগড়ায় জুলালে আমার মন শান্তি হবে।পরে কক্সবাজার থেকে ময়না তদন্ত শেষ করে বাদে মাগরিব জাদিমুরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে শোকাহত মানুষের অশ্রু সিক্ত ভাল বাসায় নামাজে জানাযা সম্পন্ন করে পারিবারিক কবরস্হানে দাপন করা হয়।জানাযায় উপস্থিত ছিলেন উখিয়া টেকনাফের সাবেক সংসদ অধ্যাপক মোহাম্মদ আলী,আব্দুরহমান বদি,টেকনাফ উপজেলা চেয়ারম্যান নুরুল আলম, হ্নীলা ইউনিয়ন চেয়ারম্যান রাশেদ মোহাম্মদ আলী সহ রাজনৈতিক ও সামাজি ব্যক্তিবর্গ। তারাও বলেছেন ওমর হত্যা করিদের আইনের কাঠগড়ায় দাড়ঁ না করালে আরো কত ওমর হত্যা হবে তা জানানেই।যদি বিচার না হয় তালে আমরা স্থানিয় অধিকার পরিষদ করে রোহিঙ্গাদের বিরোদ্ধে কর্মসুচি দিব।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*