জাপানের বিশ্ববিদ্যালয়ের বিশিষ্ট অধ্যাপক পদে বাংলাদেশী ডঃ সুমন বড়ুয়া

জাপানের বিশ্ববিদ্যালয়ের বিশিষ্ট অধ্যাপক পদে বাংলাদেশী ডঃ সুমন বড়ুয়া

সম্প্রতি জাপানের সেইসা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ আন্তর্জাতিক খ্যাতিমানের বাংলাদেশী চিকিৎসা বিজ্ঞানী ডঃ সুমন বড়ুয়াকে উক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে “গ্লোবাল হেলথ অ্যান্ড ইন্টারন্যাশনাল ডেভলপমেন্টের” বিশিষ্ট অধ্যাপক (Distinguished Professor) পদে নিয়োগ দিয়েছে। ডঃ বড়ুয়ার সুদীর্ঘ কর্মজীবনের সর্বোচ্চ স্বীকৃতি হিসাবে এ নিয়োগ দেয়া হয়েছে জানিয়ে সর্বসাধারণের অবগতির জন্য এ’সংবাদ বিশ্ববিদ্যালয়ের নিউজ লেটারে ছাপানো হয়েছে। তিনি ২০১৬ সালের জানুয়ারী থেকে এই বিশ্ববিদ্যালয়ে খণ্ডকালীন অধ্যাপক হিসাবে অধ্যাপনা করেছেন এবং এ বছরের মে মাস থেকে পূর্ণকালীন অধ্যাপক হিসাবে যোগদান করেছেন।

এর পূর্বে ডঃ বড়ুয়া বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (হু)-এর বিশ্বব্যাপী গ্লোবাল লেপ্রসি প্রোগ্রাম বা কুষ্ঠরোগ নিরাময় প্রকল্পের পরিচালক হিসাবে প্রায় চার বছরকাল দায়িত্বরত থেকে ২০১৫ সালের জুনে অবসর গ্রহণ করেছেন। তিনি ২০০৮ থেকে ২০১১ সাল পর্যন্ত হু-এর দক্ষিন-পূর্ব এশিয়ার ১১টা দেশের এবং ২০০২ থেকে ২০০৭ সাল পর্যন্ত হু-এর প্রশান্ত মহাসাগর অঞ্চলের ৩৭টা দেশের কুষ্ঠরোগ নিরাময় প্রকল্পের আঞ্চলিক পরামর্শদাতা হিসাবে দায়িত্ব পালন করেছেন। জাপানে জাতীয় পর্যায়ে কমিউনিটি হেলথ ডেভলপমেন্টে অবদানের স্বীকৃতি হিসাবে প্রতিবছর ওয়াকাতসুকি অ্যাওয়ার্ড প্রদান করা হয় এবং এর ২১তম অ্যাওয়ার্ড ড: বড়ুয়াকে ভূষিত করা হয়েছিল ২০১২ সালে। এ পদক প্রাপ্তিতে তিনি হলেন দ্বিতীয় জাপানী নন এমন ব্যক্তি।

জাপানের আন্তর্জাতিক সহযোগিতায় অন্যান্য এশীয় দেশগুলির স্বাস্থ্য-ব্যবস্থা উন্নয়নমূলক প্রকল্পসমূহে ভবিষ্যতে অংশগ্রহনের উদ্দেশ্যে জাপান এবং এসব দেশের স্বাস্থ্যকর্মী এবং অন্যান্য স্বাস্থ্য পেশাদারদের বিভিন্ন ট্রেনিং প্রোগ্রামে গত দু’দশকেরও বেশি সময় ধরে উল্লেখযোগ্য অবদানের স্বীকৃতি হিসাবে এ পুরষ্কার পেয়েছিলেন। ড: বড়ুয়া নব্বইয়ের দশকে জাপান আন্তর্জাতিক সহযোগিতা সংস্থা (জাইকা)-র প্রাথমিক স্বাস্থ্য পরিচর্যার প্রশিক্ষণ কোর্সের উপদেষ্টার দায়িত্বও পালন করেছেন। উল্লেখ্য যে, এ প্রশিক্ষণ কোর্সের অংশগ্রহণকারীরা বর্তমানে বাংলাদেশসহ ২০ টিরও বেশি দেশে জাইকা বিশেষজ্ঞ হিসাবে কাজ করে যাচ্ছেন।

এ ছাড়া, ড: বড়ুয়া তিন দশকেরও বেশি সময় ধরে জাপানের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে খণ্ডকালীন প্রভাষক হিসাবেও কাজ করে আসছেন এবং তরুণ প্রজন্মকে আন্তর্জাতিক সহযোগিতার ক্ষেত্রে অবদান রাখার জন্যে অনুপ্রাণিত করে চলেছেন। ধৈর্য সহকারে তাদের প্রত্যেককে দীর্ঘমেয়াদী সহায়তা প্রদান করেন এবং নিজস্ব জীবনযাত্রা সন্ধানে তাদেরকে গাইড করে আসছেন। বিশ্বব্যাপী স্বাস্থ্য-ব্যবস্থা উন্নয়নের পাশাপাশি এসব দেশের বিভিন্ন ক্ষেত্রে টেকসই উন্নয়নের বিষয়গুলির উপর বিস্তৃত অভিজ্ঞতা এবং দক্ষতা অর্জন করেছেন ড: বড়ুয়া। ডঃ বড়ুয়ার ক্রিয়াকলাপ বিভিন্ন সময়ে জাপানের এবং এশিয়া ও আফ্রিকার বেশ কয়েকটি দেশের সামাজিক এবং প্রিন্ট মিডিয়াগুলিতে ছাপানো হয়েছে এবং প্রদর্শিত হয়েছে।

তিনি ঐতিহ্যবাহী টোকিও বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আন্তর্জাতিক স্বাস্থ্য নীতি ও স্বাস্থ্য পরিকল্পনা বিষয়ে মাস্টার অফ পাবলিক হেলথ (এমপিএইচ) ডিগ্রি এবং পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করেছেন। ইতোপূর্বে, ডঃ বড়ুয়া ফিলিপাইনের রাষ্ট্রীয় বিশ্ববিদ্যালয় থেকে চিকিৎসা শাস্ত্রে ডক্টর অফ মেডিসিন (এম ডি) ডিগ্রি লাভ করেন। ডঃ বড়ুয়া চট্টগ্রাম জেলার রাউজান উপজেলার হোয়ারাপাড়া গ্রাম নিবাসী মৃত যামিনী রঞ্জন বড়ুয়া এবং মৃত নীহারিকা বড়ুয়ার তৃতীয় পুত্র এবং মহামান্য মহাসংঘনায়ক বিশুদ্ধানন্দ মহাথেরো-র ভ্রাতুষ্পুত্র।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*