বোয়ালখালীতে স্মরণকালের সর্ববৃহৎ অগ্নিকান্ডে ২১ঘর ভষ্মিভূত, ২ কোটি টাকার ক্ষতি

fire pic 02.jpg123দেবাশীষ বড়ুয়া (রাজু), বোয়ালখালী প্রতিনিধি :: বোয়ালখালীতে স্মরণকালের সর্ববৃহৎ অগ্নিকান্ডে ২১ ঘর ভষ্মিভূত হয়ে ২কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। গত রবিবার রাতে উপজেলার খিতাপচর গ্রামে এ ভয়াবহ অগ্নিকান্ডের ঘটনাটি ঘটে। এ নিয়ে চলতি মাসে পৃথক ৫ অগ্নিকান্ডের ঘটনায় অর্ধশত বসতঘর ভস্মিভূত হয়ে প্রায় ৫ কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে। গৃহহারা হয়ে পড়েছে শতশত মানুষ। এ পর্যন্ত সরকারি ও বেসরকারি পর্যায়ে এদের সহযোগিতা কেউ এগিয়ে আসেনি।

ক্ষতিগ্রস্থরা জানায়, রবিবার রাত ২টার দিকে উপজেলার সারোয়াতলী ইউনিয়নের খিতাপচর গ্রামের হাজী বোরহান গাজীর পাড়ায় বৈদ্যূতিক খুঁটি থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়ে নুরুল বশর, আহমুদুল হক বাশি, মো. ইকবাল, মো. শাহ আলম, মো. শাহাদাত, মো. আবদুল গফুর, নুরুল ইসলাম, মো. মুছা, মো. দিদারুল আলম, আবুল মুছা, মো.খোরশেদ, মো. জাহাঙ্গীর, মো. আলমগীর, মো. ইসমাইল, মো. রফিক, আবুল  বশর, মো. সাইফুদ্দিন, মো. কফিল, মো. আজাদ, মো. খোকন ও বালি আকতরের ঘরে  ছড়িয়ে পড়ে। এতে ২১ বসতঘর ভষ্মিভূত হয়। পটিয়া ফায়ার সার্ভিসের একটি ইউনিট স্থানীয়দের সহযোগিতায় আড়াই ঘন্টাপর আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। এতে ২ কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে দাবি করেছেন অগ্নিদূর্গতরা।

গতকাল সকালে উপজেলা নির্বাহী অফিসার খন্দকার নুরুল হক, অফিসার ইনচার্জ মো. শামছুল ইসলাম, স্থানীয় চেয়ারম্যান নুর মোহাম্মদ, জাপা’র সভাপতি আমান উল্লাহ আমান, ইউপি সদস্য আবদুল মান্নান ঘটনাস্থলে পৌঁছলেও দূর্গতদের সহযোগিতার খবর পাওয়া যায়নি।

তবে সাংসদ মঈন উদ্দীন খান বাদলের পক্ষে মান্নান মেম্বার পরিবার প্রতি ১৫ কেজি করে চাউল বিতরণ করেন। এছাড়া স্থানীয় রহমানিয়া দরবারের শাহাজাদা নজরুল ইসলাম ক্ষতিগ্রস্থদের দশ হাজার টাকা আর্থিক সহায়তা দেন। ২১ পরিবারের শতাধিক সদস্য বর্তমানে অন্যত্র আশ্রয় নিয়েছে। এদের সহযোগিতায় বিত্তবানদের এগিয়ে আসা প্রয়োজন।

উল্লেখ্য, চলতি মাসে শাকপুরায় ১২ বসত ঘর ভষ্মিভূত হয়ে অর্ধকোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। এছাড়া সারোয়াতলী ইউনিয়নের বেঙ্গুরা, দক্ষিণ সারোয়াতলী ও পশ্চিম সারোয়াতলীতে পৃথক অগ্নিকান্ডে ১৭ ঘর ভষ্মিভূত হয়ে কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। স্থানীয়ভাবে ক্ষতিগ্রস্থরা যৎসামান্য সহযোগিতা পেলেও তা প্রয়োজনের তুলনায় অপ্রতুল। এ পর্যন্ত সরকারি ও বেসরকারি পর্যায়ে অগ্নি দূর্গতদের সহযোগিতায় কেউ এগিয়ে আসেনি।

গৃহহারা এসব পরিবার অন্যত্র আশ্রয় নিয়ে নতুন ঘরবাঁধার স্বপ্ন দেখছে। এদের মানবিক বিপর্যয় থেকে রক্ষা করতে সমাজের বিত্তবানদের জরুরী ভিত্তিতে এগিয়ে আসা প্রয়োজন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*