রাজশাহী-৪ আসনে বিএনপির তৃণমূল আবু হেনাকে চাই

রাজশাহী-৪ আসনে বিএনপির তৃণমূল আবু হেনাকে চাই
আলিফ হোসেন, তানোর ;; রাজশাহী-৪ বাগমারা সংসদীয় আসনে বিএনপির তৃণমূল (সাবেক) এমপি আবু হেসাকে এবারো প্রার্থী হিসেবে ভোটের মাঠে চাই। স্থানীয় বিএনপির তৃণমূল (সাবেক) এমপি আবু হেসাকে সাম্ভব্য প্রার্থী ধরে নিয়ে ইতমধ্যে নির্বাচনী মাঠে জম্পেশ প্রচার-প্রচারণা ব্যস্ত সময় পার করছেন। তাঁর বিশাল কর্মী বাহিনী তার যোগ্যতা তুলে ধরে সাধারণে ভোটারদের দৌড়-গোড়ায় গিয়ে প্রচারণা করতে শুরু করেছে। জানা গেছে, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালেয়র ছাত্র, সাবেক রাস্ট্রদ্রত, প্রকৃতির মহসচিব, কাস্টম পরিচালক এক সময়ের তুখোড় ছাত্রনেতা, নির্বাচনী এলাকার বাসিন্দা, প্রবীণ ও মেধাবী নেতৃত্ব গুনে এবং এলাকার উন্নয়ন কর্মকান্ডের মাধ্যমে আবু হেনা ইতমধ্যে দলের চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার আস্থা অর্জনে সক্ষম হয়েছেন। তাঁর নেতৃত্ব গুনে তাঁর নির্বাজনী এলাকায় একাধিকবার বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী দলীয় কর্মসূচি ও জনসভায় অংশগ্রহণ করেছে।
সংশ্লিষ্ট নির্বাচনী এলাকার বিএনপির তৃণমূলের অভিমত, সাবেক সাংসদ আবু হেনা এখানো বিএনপির তৃণমূলে পচ্ছন্দের শীর্ষে রয়েছে তাকে ঘিরে জমে উঠেছে বিএনপির তৃণমূলে রাজনীতির মাঠ। এসব বিবেচনায় মনোনয়ন দৌড়ে অন্যদের থেকে অনেক এগিয়ে রয়েছেন আবু হেনা। এছাড়াও আবু হেনার বিকল্প নতুন কোনো প্রার্থীকে এই এলাকার সাধারণ মানুষ কখনই তাদের নেতা হিসেবে মেনে নিবে না এমন কথা নির্বাচনী এলাকার প্রায় প্রতিটি মানুষের মূখে মূখে প্রচার হচ্ছে।
সূত্র জানায়,রাজশাহী-৪ (বাগমারা-মোহনপুর) সংসদীয় আসনে তিনি দুইবার বিএনপির মনোনয়ন নিয়ে বিপুল ভোটের ব্যবধানে বিজয়ী হয়েছেন। পরবর্তীতে শুধুমাত্র বাগমার উপজেলাকে একটি আসন ঘোষণা করা হয়। বাগমারা ও মোহনপুরের শিক্ষা-স্বাস্থ্য, বিদ্যুৎ, সড়ক যোগাযোগ ও অবকাঠামো উন্নয়নের সিংহভাগ হয়েছে আবু হেনার হাতে। এছাড়াও তিনি রাজনৈতিক সহাবস্থান সৃষ্টি করায় তার সময়ে নির্বাচনী এলাকায় কোনো রাজনৈতিক হানাহানি ছিলনা। বিলাস ও প্রচার বিমূখ কর্মী-জনবান্ধব প্রবীণ এই রাজনৈতিক নেতা আবু হেনা এখানো বাগমারার সব শ্রেণী-পেশার মানুষের কাছে সমান জনপ্রিয়। বাগমারায় বিএনপির রাজনীতিতে এখানো আবু হেনার কোনো বিকল্প নাই। ফলে আবু হেসাকে ঘিরে নির্বাচনী এলাকায় বিএনপি ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের মধ্যে দীর্ঘদিন বিরাজমান মতবিরোধ, মানঅভিমান ও ঐক্য প্রশ্নের বরফ গলতে শুরু করেছে। এখন তৃণমূলের নেতাকর্মীরাও এটা বুঝতে সক্ষম হয়েছেন পাওয়া-না পাওয়া নিয়ে তাদের মধ্যে মান-অভিমান থাকবে সেটাই স্বাভাবিক, আবার নির্বাচনী এলাকায় বিএনপির রাজনীতিতে সাবেক এমপি আবু হেনার কোনো বিকল্প নাই এটাও সত্য। এসব বিবেচনায় তৃণমূলের নেতা ও কর্মী-সমর্থকগণ ফের আবু হেনা মূখী হতে শুরু করেছে। বাগমারা বিএনপির রাজনীতিতে আবু হেনাকে ঘিরে দীর্ঢ়দিন পরে বিএনপির রাজনীতিতে ফের প্রাণচাঞ্চল্য ফিরে এসেছে। জানা গেছে, প্রবীণ, ত্যাগী ও মেধাবী নেতৃত্ব হিসেবে আবু হেনা নির্বাচনী এলাকার সাধারণ মানুষের মধ্যে একটি নিজস্ব অবস্থান গড়ে তোলেছেন। আবার বিএনপি বিরোধীরাও আবু হেনাকে শক্ত প্রতিপক্ষ ও হেভিওয়েট প্রার্থী হিসেবে শিকার করছে। আবু হেনার ওপর ভরসা ও আস্থা রেখেই বিএনপি এবং সহযোগী সংগঠনের নীতিনির্ধারক ও জৈষ্ঠ নেতারা তৃণমূলের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ, গণসংযোগ, বর্ধিত এবং কর্মীসভা করে ব্যস্ত সময় পার করছেন। ফলে দীর্ঘদিন পর নির্বাচনী এলাকায় বিএনপির নেতাকর্মী ও সমর্থকগন আবারও চাঙ্গা হয়েছে উঠেছে। রাজনীতিতে হয়েছে নাটকীয় পরিবর্তন দলীয় শক্তি দিন দিন ক্রমেই জোরদার হচ্ছে। আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে বিএনপি ঐক্যবদ্ধ হওয়ায় তাদের রাজনীতিতে নাটকীয় পরিবর্তন ও ফিরেছে প্রাণচাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে গণজোয়ার। আবার প্রবীণ, ত্যাগী ও মেধাবী, রাজনৈতিক দূরদর্শীতা সম্পন্ন বিচক্ষন, কর্মী-জনবান্ধব রাজনৈতিক নেতা হিসেবে দলমত নির্বিশেষে সব শ্রেণী ও পেশার মানুষের কাছে এখানো সমান সমাদৃত আবু হেনা বলে একাধিক সূত্র নিশ্চিত করেছে। এসব বিবেচনায় বিএনপির তৃণমূল আবারো আবু হেনাকে প্রার্থী করার জোর দাবি তুলেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*