কচুয়ায় ডাক্তারের অবেহেলায় প্রসূতি মা ও সন্তানের মৃত্যু, থানায় মামলা

কচুয়ায় ডাক্তারের অবেহেলায় প্রসূতি মা ও সন্তানের মৃত্যু, থানায় মামলা
নিজস্ব প্রতিনিধিঃ কচুয়া উপজেলার গোহট উত্তর ইউনিয়নে অবস্থিত ফয়েজুন্নেছা হাসপাতালে হালিমা বেগম(৩৫) স্বামী- সাব্বির মিয়া,গ্রাম-দেওকান্তা, উপজেলা -চান্দিনা,জেলা-কুমিল্লা। এক প্রসূতি মা ও সন্তান ভুল চিকিৎসায় মৃত্যু বরণ করেছে।
থানায় অভিযোগ সুত্রে জানা যায়,গত ৭ আগষ্ট হালিমা বেগমের(৩৫) প্রসব ব্যথা দেখা দিলে ফয়েজুন্নেছা হাসপাতালে ভর্তি করলে দায়িত্বরত চিকিৎসক সিজার এর মাধ্যমে তার প্রসব ঘটায়। ওই প্রসূতি মায়ের একটি কন্যা সন্তান ভূমিষ্ঠ হওয়ার পর তার শারিরীক অবস্থা অবনতি দেখে কর্তব্যরত চিকিৎসক ওই কন্যা সন্তানটিকে কুমিল্লার একটি প্রাইভেট হাসপাতালে প্রেরণ করে।কন্যা সন্তানটি ওই হাসপাতালে চিকিৎসারত অবস্থায় মৃত্যু বরণ করে।
এদিকে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ প্রসূতি হালিমা বেগমকে ডাক্তারি পরামর্শ মোতাবেক চিকিৎসা দিয়ে তার স্বামীর বাড়িতে প্রেরণ করে।বাড়িতে প্রেরণের পর হালিমা বেগমের যতই দিন যায় ততই পেটের ব্যথা বাড়তে থাকে।তাৎক্ষনিক তাকে আবারও হাসিমপুরস্থ ফয়েজুন্নেছা হাসপাতালে ডাক্তার দেখালে পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে ডাক্তার তার জরায়ুতে টিউমার আছে বলে ঔষধ লিখে দেন।ডাক্তারি পরামর্শ মোতাবেক ঔষধ সেবনের পরেও হালিমা বেগমের পেটের ব্যথা ভালো না হওয়ায় তার স্বামী সাব্বির মিয়া কুমিল্লা শহরস্থ মনোহরপুর আদর্শ হাসপাতালে গত ২৯ আগস্ট ভর্তি করায়। এসময় কর্তব্যরত ডাক্তার পরীক্ষা-নিরিক্ষা শেষে রোগীর অভিভাবকে জানায়- তার পেটের ভিতরে একটি কাপড়ের গজ রয়েছে।জরুরি ভিত্তিতে তার অপারেশন করা প্রয়োজন। পরবর্তীতে ২৯ আগস্ট তাকে অপারেশন করানোর পর ১ সেপ্টেম্বর ওই হাসপাতালে প্রসূতি হালিমা বেগম মারা যায়। হালিমা বেগমের তিন পুত্র সন্তান রয়েছে।
অপরদিকে হালিমা বেগমের ভাই আবুল কালাম(৫০),পিতা মৃত আলী আহমেদ,সাং- কুটিয়া লক্ষীপুর,কচুয়া-চাঁদপুর বাদী কচুয়া থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।
অভিযোগের প্রেক্ষিতে কচুয়া থানা পুলিশ দায়িত্ব কাজে চিকিৎসাজনিত অবহেলার দায়ে ৩০৪(ক) ৩৪ ধারায় একটি মামলা দায়ের করে। যার নং- ০৪,তারিখ-০২-০৯-২০১৮।

মামলা দায়রের প্রেক্ষিতে পুলিশ নিহত হালিমা বেগমের লাশ কচুয়া থানায় নিয়ে আসে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*