বগুড়ার শেরপুর পৌরশহরের উলিপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় চত্বরে সামান্য বৃষ্টিতেই বিদ্যালয়ে হাঁটু

বগুড়ার শেরপুর পৌরশহরের উলিপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় চত্বরে সামান্য বৃষ্টিতেই বিদ্যালয়ে হাঁটু

পানিবগুড়া প্রতিনিধি ঃ পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা না থাকায় বগুড়ার শেরপুর পৌরশহরের উলিপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় চত্বরে সামান্য বৃষ্টিতেই  হাঁটুপানি জমে। যার ফলে চলতি বর্ষা মৌসুমে স্থায়ী জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। ফলে বিদ্যালয়টিতে শিক্ষার্থীর উপস্থিতির হার কমে গেছে। পাশাপাশি শিশুরা খেলাধুলা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। এছাড়া মাঠে জমে থাকা পানি পচে দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছে। এতে করে শিক্ষার পরিবেশও মারাত্মকভাবে বিঘ্নিত  হচ্ছে। অথচ বিষয়টি সমাধানে সংশ্লিষ্টদের তেমন কোন মাথা ব্যথা নেই। তাদের কাছে একাধিকবার ধর্না দিয়েও কোন ফল হয়নি। ১৯৩১ খ্রিস্টাব্দে প্রতিষ্ঠিত বগুড়ার শেরপুর পৌরশহরের উলিপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বর্তমানে ৩৫০জন শিক্ষার্থী লেখাপড়া করছে। এখানে শিক্ষক-শিক্ষিকা রয়েছেন দশজন। সরেজমিনে দেখা যায়, বিদ্যালয় চত্বরের বিশাল মাঠটিতে হাঁটুপানি জমে আছে। বিদ্যালয়ের আশপাশের বাসা-বাড়ি, রাস্তা ও পানি নিষ্কাশনের ড্রেন থেকে মাঠটি অনেকটা নিচু। ফলে প্রতিবছর বর্ষায় আশপাশের পানি এসে মাঠটিতে জমে স্থায়ী জলাদ্ধতার সৃষ্টি হয়। বর্তমানে বিদ্যালয় মাঠের মাঝে পানি আটকে রয়েছে। এমনকি জমে থাকা পানি পচে দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছে। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা  মমতাজ বেগম জানান, ২০০৭ খ্রিস্টাব্দে এই বিদ্যালয়ে যোগদান করার পর থেকেই দেখছি জলাবদ্ধতা। তবে বিগত বছরগুলোতে জলাবদ্ধতার পানি অল্প সময়ের মধ্যেই নিষ্কাশন হতো। কিন্তু এবার পানি নামছেই না। এরপর আবার প্রতিদিনই ভারি বৃষ্টিপাত হচ্ছে। ফলে স্থায়ী জলাবদ্ধতা মারাত্মক আকার ধারণ করেছে। তিনি আরও বলেন, বিদ্যালয়ের মাঠটি খুবই নিচু। তাই পানি বের হতে পারে না। আশপাশের সব পানি এখানে এসে জমা হয়ে স্থায়ী জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। শিক্ষার্থীর উপস্থিতির হার কিছুটা কমেছে। বিশেষ করে শিশু শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের অভিভাবকরা বিদ্যালয়ে পাঠাতে আগ্রহ হারাচ্ছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*