চট্টগ্রাম উত্তরজেলা সেচ্ছাসেবক দলে সহ-সভাপতি পদ প্রত্যাশী আবু সৈয়দ মেম্বার

চট্টগ্রাম উত্তরজেলা সেচ্ছাসেবক দলে সহ-সভাপতি পদ প্রত্যাশী আবু সৈয়দ মেম্বার

সাইফুল ইসলাম।। পেশায় একজন ব্যবসায়ী ও উদ্যোক্তা হলেও এলাকায় সমাজ সেবক হিসেবে খ্যাতি রয়েছে তার। তিনি এলাকার ছোট-বড় সকলেরই আপন ও প্রিয় ব্যক্তি এবং বিএনপি দলীয় লোক হলেও আওয়ামীলীগসহ দল-মত নির্বিশেষে সবার কাছে জন দরদি এক মানুষ। বলেছিলাম ফটিকছড়ি উপজেলার সুয়াবিল ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের আবু সৈয়দ মেম্বারের কথা।কথায় মিষ্টবাসী মনের দিক থেকেও একজন সাদা মনের মানুষ। এলাকার মানুষের সাথে কথা বলে জানা গেছে সৈয়দ মেম্বার প্রতিনিধি হিসেবে খুব জনপ্রিয়। এলাকার লোকজন আসন্ন সুয়াবিল ইউপি নির্বাচনে তাকে নিজেদের প্রতিনিধি হিসেবে আবারো দেখতে চান। তিনি বর্তমানে হাজিরখীল সরকারি জুনিয়র উচ্চ বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন। এছাড়াও তিনি বিভিন্ন ধর্মীয়, সামাজিক সংগঠনের সাথে জড়িত রয়েছেন। বলা যায় আপাদমস্তক একজন সংগঠক। তিনি ২০০৩ সালে ৯নং ওয়ার্ডের মেম্বারের দায়িত্বসহ সুয়াবিল ইউপিতে তৎকালে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের দায়িত্বও পালন করেছিলেন। সামাজিক প্রতিনিধিত্ব ও সংগঠক এর পাশাপাশি রাজনৈতিক জীবনে জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি)’র একজন একনিষ্ঠ ও ত্যাগী কর্মী। এক সাক্ষাৎকারে রাজনৈতিক জীবন নিয়ে তিনি বলেন,”আমি ছাত্র জীবন থেকে জাতীয়তাবাদী দলের রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত ছিলাম। ছাত্র রাজনীতির পর সুয়াবিল ইউনিয়ন যুবদলের সভাপতির দায়িত্বও পালন করেছি”। তবে এই রাজনীতির মাঝখানে আওয়ামী সরকার ক্ষমতায় আসার পর কিছুটা ঝিমিয়ে পড়েন। বর্তমানে তিনি বিএনপি অঙ্গ সংগঠন সেচ্ছাসেবক দলের উত্তর জেলার সহ-সভাপতির পদপ্রার্থী। এ ব্যাপারে আশাবাদি হয়ে তিনি বলেন, দলের কাছে আমি একজন স্বচ্ছ মনের মানুষ আমাকে সবাই চেনে। যদি দল আমাকে ভালো মনে করে তাহলে আমি এই পদে আসতে আগ্রহী। এছাড়াও আমার চেয়ে যোগ্য কাউকে দায়িত্ব দিলেও আমি তার আনুগত্য মেনে দলের জন্য কাজ করে যাবো। আসন্ন ইউপি নির্বাচন নিয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এলাকার জনসাধারন আমাকে নির্বাচন করতে উৎসাহিত করছে। তাই আমি বিএনপি তথা ২০ দলীয় জোট থেকে নির্বাচন করতে চাই। উত্তরজেলা সেচ্ছাসেবক দলের দায়িত্ব পেলে আসন্ন জাতীয় নির্বাচন এর চ্যালেঞ্জ মুকাবিলায় তিনি কতটা প্রস্তুত এ ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি বলেন, একাদশ জাতিয় সংসদ নির্বাচন একটি চ্যালেঞ্জিং ব্যাপার। আমি প্রথমে যেটা করবো পুরো জেলায় সাংগঠনিক ভিত্তি মজবুত করবো। আর নির্বাচনে চাইবো আপোষে সকল চ্যালেঞ্জ মুকাবিলা করতে। তাতে সরকারের পক্ষ থেকে প্রতিবন্ধকতা আসলে গণতান্ত্রিক উপায়ে দলের উচ্চ পর্যায়ের নির্দেশনা অনুযায়ি রাজপথে সকল আন্দোলন সংগ্রামের জন্য প্রস্তুত। এতে আমার সর্বোচ্চ ত্যাগ থাকবে। সর্বোপরি তিনি মানুষের কাছে একজন সাদা মনের মানুষ হিসেবে অমর থাকতে চান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*