চন্দনাইশে বঙ্গবন্ধু জাতীয় গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট শুভ উদ্ভোধন

চন্দনাইশে বঙ্গবন্ধু জাতীয় গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট শুভ উদ্ভোধন

মোঃ নুরুল আলম, চন্দনাইশ প্রতিনিধি:যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় কর্তৃক অনুমোদিত অনূর্ধ্ব-১৭ বছর বয়সী কিশোর-কিশোরীদের নিয়ে অনুষ্ঠিত ‘জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান জাতীয় গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট (অনূর্ধ্ব-১৭) চন্দনাইশ উপজেলায় শনিবার (৮ সেপ্টেম্বর) বিকাল ৩ ঘটিকায় উপজেলা সদরস্থ কাশেম মাহবুব উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে অনুষ্ঠিত হয়েছে। উদ্ভোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, চট্টগ্রাম-১৪ (চন্দনাইশ-সাতকানিয়া আংশিক) আসনের সংসদ সদস্য, জাতীয় সংসদের প্যানেল স্পীকার, বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য, বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব নজরুল ইসলাম চৌধুরী এম.পি। চন্দনাইশ উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সভাপতি এবং দোহাজারী পৌরসভার প্রশাসক আ.ন.ম বদরুদ্দোজা’র সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চন্দনাইশ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মোহাম্মদ আবদুল জব্বার চৌধুরী, চন্দনাইশ পৌরসভার মেয়র মাহবুবুল আলম খোকা, দক্ষিণ জেলা আ.লীগ সহ-সভাপতি ও বরকল ইউ.পি চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান, বরমা ইউ.পি চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম, হাশিমপুর ইউ.পি চেয়ারম্যান আলমগীরুল ইসলাম চৌধুরী, জোয়ারা ইউ.পি চেয়ারম্যান আমিন আহমদ চৌধুরী রোকন, উপজেলা আ.লীগ সহ-সভাপতি মাষ্টার আহসান ফারুক, বলরাম চক্রবর্তী, সাবেক জাতীয় ফুটবলার আসকর খান বাবু, আবুল বশর, আমিনুল্লাহ্, উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার যুগ্ম সম্পাদক সাংবাদিক এড. দেলোয়ার হোসেন, সাংবাদিক সৈয়দ শিবলী সাদিক কফিল, আর.ডি.ও রাসেল চৌধুরী, যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা আবু সালেহ, একাডেমিক সুপার বিপিন রায়, সহকারী প্রকৌশলী নজরুল ইসলাম প্রমূখ। উদ্ভোধনী দিনে চন্দনাইশ পৌরসভা একাদশ ৩-১ গোলে বরমা ইউনিয়ন একাদশকে পরাজিত করে। বিপুল দর্শকের উপস্থিতিতে অনুষ্ঠিত খেলায় প্রথমার্ধের ৪০ মিনিটে পেনাল্টিতে গোল করে চন্দনাইশ পৌরসভা একাদশকে ১-০ গোলে এগিয়ে দেন মানিক। এর ৩মিনিট পর বরমা ইউনিয়ন একাদশের বাবু গোল করে খেলায় সমতা ফেরান। দ্বিতীয়ার্ধের ৩৫ মিনিটে জনি দাশ এবং ৪১মিনিটে মানিক গোল করে চন্দনাইশ পৌরসভা একাদশের জয় নিশ্চিত করেন। খেলায় ধারাভাষ্যকার ছিলেন সাবেক ফুটবলার মোঃ আমিন ও মোঃ কামরুল ইসলাম মোস্তফা। রেফারি ছিলেন মোঃ হোসেন। সহকারী রেফারী ছিলেন মোঃ ফরিদ ও মোঃ এনাম। ৯ ও ১০ সেপ্টেম্বর দু’টি করে খেলা অনুষ্ঠিত হবে বলে জানা গেছে। ৯ সেপ্টেম্বর বিকাল ২.৩০ মিনিটে বরকল বনাম বৈলতলী, ৩.৩০ মিনিটে দোহাজারী বনাম ধোপাছড়ি। ১০ সেপ্টেম্বর বিকাল ২.৩০ মিনিটে গাছবাড়ীয়া বনাম হাশিমপুর, ৩.৩০ মিনিটে জোয়ারা বনাম কাঞ্চনাবাদ’র খেলা অনুষ্ঠিত হবে। নির্দেশিকা সূত্রে জানা গেছে, ইউনিয়ন ভিত্তিক দলগুলোকে নিয়ে আন্তঃইউনিয়ন খেলার মাধ্যমে সেরা খেলোয়াড়দের নিয়ে উপজেলা দল গঠিত হবে। উপজেলা দল জেলা পর্যায়ে আন্তঃউপজেলা খেলায় অংশগ্রহণ করবে। বিভিন্ন উপজেলা থেকে আগত দলের অংশগ্রহণে আন্তঃউপজেলা খেলার মাধ্যমে সেরা খেলোয়াড়দের নিয়ে জেলা দল গঠিত হবে। ৮ টি বিভাগের সকল জেলা এবং ঢাকা, রাজশাহী, চট্টগ্রাম ও খুলনা সিটি কর্পোরেশনের দল নিয়ে স্ব স্ব বিভাগীয় পর্যায়ে খেলা অনুষ্ঠিত হবে। বিভাগীয় পর্যায়ের প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহনকারী দলের মধ্য হতে সেরা খেলোয়াড়দের নিয়ে বিভাগীয় দল গঠিত হবে। ৮ টি বিভাগীয় দল নিয়ে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে জাতীয় পর্যায়ের খেলা অনুষ্ঠিত হবে। এ টুর্নামেন্টের মাধ্যমে যে সকল প্রতিশ্রুতিশীল খেলোয়াড় পাওয়া যাবে তাদের মধ্য হতে যারা বিকেএসপিতে ভর্তির যোগ্য তাদের অগ্রাধিকার ভিত্তিতে বিকেএসপিতে ভর্তির ব্যবস্থা এবং অন্যান্য খেলোয়াড়দের বাফুফের ডেভেলপমেন্ট উইংয়ের মাধ্যমে দীর্ঘমেয়াদী প্রশিক্ষনের ব্যবস্থা করা হবে। পরবর্তী বছর থেকে মেয়েদের জন্য আয়োজন করা হবে বলে জানা গেছে। লেখাপড়ার পাশাপাশি খেলাধুলার মাধ্যমে অনূর্ধ্ব-১৭ বছরের কিশোর-কিশোরীদের শারীরিক, মানসিক ও নান্দনিক বিকাশ, প্রতিযোগিতার মাধ্যমে সহিষ্ণুতা, মনোবল বৃদ্ধি ও খেলাধুলায় উৎসাহী করে গড়ে তোলা এবং ক্রীড়া চর্চায় উদ্বুদ্ধকরণ, মাদকাসক্তি, জঙ্গিবাদসহ সকল অসামাজিক কর্মকান্ড হতে বিরত রাখার লক্ষে এই টুর্নামেন্ট আয়োজিত হচ্ছে বলে নির্দেশিকা সূত্রে জানা গেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*